চাঁপাইনবাবগঞ্জে ৩ দিনব্যাপী ‘জাতীয় নজরুল সম্মেলন’ উদ্বোধন

36

জাকির হোসেন পিংকু,চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি:
চাঁপাইনবাবগঞ্জে ৩ দিনব্যাপী (২৬-২৮’জানুয়ারী) ‘জাতীয় নজরুল সম্মেলন’ উদ্বোধন করা হয়েছে। জেলা প্রশাসনের সহযোগিতায় সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের  ‘কবি নজরুল ইনিষ্টিটিউট’ সম্মেলন আয়োজন করেছে।
রোববার (২৬’ডিসেম্বর) সকালে জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সামনে থেকে ‘নজরুল র‌্যালী’ বের হবার মধ্যে দিয়ে অনুষ্ঠানমালার সূচনা হয়। বর্ণাঢ্য র‌্যালীটি শহরের প্রধান সড়কগুলো ঘুরে নবাবগঞ্জ সরকারী কলেজ মাঠে এসে শেষ হয়। এখানে বেলুন ও পায়রা উড়িয়ে সম্মেলনের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করা হয়। পরে কলেজ মাঠে সম্মেলন মঞ্চে উদ্বোধনী আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।
জেলা প্রশাসক এজেডএম নূরুল হকের সভাপতিত্বে সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড.ফায়েক উজ্জামান। বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন নবাবগঞ্জ সরকারী কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর ড. শংকর কুমার কুন্ডু ও নবাবগঞ্জ সরকারী মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর মনোয়ারা খাতুন।
সভায় মূখ্য আলোচক ছিলেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের সংগীত বিভাগের প্রফেসর ড. অসিত রায়। তিনি ‘নজরুলের গানে স্বাধীনতা’ বিষয়ে আলোচনা করেন। সভায় আলোচক ছিলেন নবাবগঞ্জ সরকারী কলেজের অবসরপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ প্রফেসর সুলতানা রাজিয়া  ও রাজশাহীর শহ মখদুম কলেজের অসরপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ ড.তসিকুল ইসলাম রাজা। জেলা কালচারাল অফিসার ফারুকুর রহমান ফয়সলের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে স্বগাত বক্তব্য দেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক(সার্বিক) এ,কে,এম, তাজকির-উজ-জামান।
সভায় বক্তরা জাতীয় কবি,প্রেম ও দ্রোহের কবি কাজী নজরুল ইসলামের জীবন ও সাহিত্য কর্মের বিভিন্ন দিক নিয়ে আলোচনা করেন। কবি  জাতির সামনে  কি কি আদর্শ রেখে গেছেন তা তাঁর বিভিন্ন লেখা ও কবিতা থেকে উদ্ধৃতির মাধ্যমে উপস্থাপন করেন তাঁরা। বক্তরা বলেন অসংখ্য লেখনীতে স্বাধীনতার স্বপ্ন দেখিয়েছিলেন অসাম্প্রদায়িক নজরুল। সেই স্বপ্ন ধারণ করেছিলেনে বঙ্গবন্ধু। কবি বলেছিলেন,বাঙ্গালী যেদিন ঐক্যবদ্ধ হয়ে বলতে পারবে ‘বাঙ্গালীর বাংলা’ সেদিন তারা অসাধ্য সাধন করবে। বাঙ্গালীর মত জ্ঞান শক্তি ও প্রেম-শক্তি বুঝি পৃথিবীর কোন জাতির নেই। বঙ্গবন্ধু মুক্তিযুদ্ধে বিজয়ের পর ১৯৭২ সালে নিজে দেশে ফেরার পরপরই সাম্য ও মানবতার কবি নজরুলকে দেশে নিয়ে আসেন।
অনুষ্ঠানে সংস্কৃতি ও শিল্পানূরাগী,শিক্ষক-শিক্ষার্থী,সরকারী-বেসরকারী কর্মকর্তা এবং সুধীজনেরা উপস্থিত ছিলেন।
সম্মেলন উপলক্ষে ৩ দিনই আয়োজন করা হয়েছে আলোচনা সভা,বইমেলা, আলোকচিত্র প্রদর্শনী ও নজরুলের জীবনীভিত্তিক তথ্যচিত্র প্রদর্শনী। প্রকাশ করা  হয়েছে নজরুলের কর্ম নিয়ে বিখ্যাত লেখকদের লেখা নিয়ে একটি সংকলন। এছাড়া সম্মেলন মঞ্চে প্রতিদিন সন্ধ্যায় আয়োজন করা হয়েছে কবিতাপাঠ,সংগীত ও নৃত্য নিয়ে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।
এদিকে,সম্মেলনকে ঘিরে জেলা শিল্পকলা একাডেমীতে শুরু হয়েছে ৫ দিনব্যাপী (২৪-২৮’জানুয়ারী) নজরুল সংগীত প্রশিক্ষণ। এতে অংশ নিচ্ছেন ৫০ প্রশিক্ষনার্থী। প্রশিক্ষণ প্রদান করছেন জোসেফ কমল রড্রিক্স ও কমল হাসান খান।  ###

এই ওয়েবসাইটটি আপনার অভিজ্ঞতা উন্নত করতে কুকি ব্যবহার করে। আমরা ধরে নিচ্ছি যে আপনি এটির সাথে ঠিক আছেন তবে আপনি চাইলে অপ্ট-আউট করতে পারেন Accept আরও পড়ুন