রোহিঙ্গা গণহত্যার দায়ে আন্তর্জাতিক আদালতে মামলা কানাডার সমর্থ

এস. হাসান

রাখাইনে রোহিঙ্গা গণহত্যার দায়ে আন্তর্জাতিক আদালতে ৫৭ জাতি ইসলামি সহযোগিতা সংস্থার (ওআইসি) পক্ষে গাম্বিয়া একটি মামলা দায়ের করায় আন্তর্জাতিক ভাবে ভিন্নমাত্রার কূটনৈতিক চ্যালেঞ্জ শুরু হয়েছে।

কানাডার পররাষ্ট্রমন্ত্রী ক্রিস্টিয়া ফ্রিল্যান্ড গত ৬ নভেম্বর, ২০১৯ মিয়ানমার সরকারের বিরুদ্ধে গণহত্যা মামলা চালানোর সিদ্ধান্তকে সমর্থন করছেন । রাখাইনে প্রথাগত সহিংসতা সমর্থন করে ৭ লক্ষের ও বেশি রোহিঙ্গা মুসলমানকে তাদের দেশ ছেড়ে পালাতে বাধ্য করেছিল। পররাষ্ট্র বিষয়ক মন্ত্রী ক্রিশ্চিয়া ফ্রিল্যান্ড এক বিবৃতিতে এ পদক্ষেপ গণহত্যার অপরাধের জন্য জবাবদিহিতা বাড়িয়ে তুলবে, যার মধ্যে গণহত্যা, পদ্ধতিগত বৈষম্য, ঘৃণ্য, বিদ্বেষপূর্ণ বক্তব্য এবং যৌন ও লিঙ্গ-ভিত্তিক সহিংসতা অন্তর্ভুক্ত রয়েছে উল্লেখ করেন।

এতদিন দ্বিপক্ষীয় ভিত্তিতে প্রত্যাবাসন–সংকটের সুরাহা করতে যারা উৎসাহ দিচ্ছিলেন, তাঁদের আবারো নতুন করে ভাবতে হবে কারন ইতিমধ্যে তা অকার্য্যকর ও শুধুমাত্র সময়ক্ষেপন বলেই প্রতিয়মান হয়েছে।

বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, কানাডা ইউনিট কমান্ড নির্বাহী , বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশ এর আহ্বায়ক ও ডাইভার্স এডমন্টন সম্পাদক দেলোয়ার জাহিদ, মিয়ানমারে চলমান রোহিঙ্গাদের উপর নিপীড়ন, নির্যাতন, অগ্নিসংযোগ, লুন্ঠন, ধর্ষন, ও বর্বরোচিত গণহত্যার বিষয়ে আন্তর্জাতিক স্বীকৃতির একটি উল্লেখযোগ্য পদক্ষেপ হিসেবে বর্ণনা করে মিয়ানমারের দায়মুক্তির মেয়াদকে দীর্ঘায়িত ক