পাকিস্তানকে উড়িয়ে ইতিহাস গড়ল অস্ট্রেলিয়া

33
gb

জিবি নিউজ ২৪ ডেস্ক//

নয় বছর পর দেশের মাটিতে পাকিস্তানের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজ জয়ের স্বাদ পেল অস্ট্রেলিয়া। আজ শুক্রবার সিরিজের তৃতীয় ও শেষ টি-টোয়েন্টি ম্যাচে অস্ট্রেলিয়ার কাছে ১০ উইকেটে উড়ে গেছে পাকিস্তান। এই জয়ের ফলে তিন ম্যাচের সিরিজ ২-০ ব্যবধানে জিতে নিয়েছে অস্ট্রেলিয়া। পাঁচ বছর পর জাতীয় দলে ফিরে ম্যাচসেরা হয়েছেন অজি পেসার শন অ্যাবোট। সিরিজ সেরা হয়েছেন দুর্দান্ত ফর্মে থাকা স্টিভেন স্মিথ। সর্বশেষ ২০১০ সালে দেশের মাটিতে অস্ট্রেলিয়া এক ম্যাচের সিরিজ জিতেছিল পাকিস্তানের বিপক্ষে।

পার্থে টস হেরে ব্যাট হাতে নেমে তৃতীয় ওভারেই প্রথম উইকেট হারায় পাকিস্তান। প্রথম দুই ম্যাচে হাফ-সেঞ্চুরি করা নতুন অধিনায়ক বাবর আজম এবার আর নিজেকে মেলে ধরতে পারেননি। ১টি চারে ৬ রান করে অস্ট্রেলিয়ার পেসার মিচেল স্টার্কের বলে লেগ বিফোর হন বাবর। পরের ডেলিভারিতেই রিজওয়ানকে বোল্ড করে হ্যাটট্রিকের সুযোগ তৈরি কেরন স্টার্ক। কিন্তু শেষ পর্যন্ত পারেননি। ১৫ রানে ২ উইকেট হারানোর চাপ সামলে উঠার আগেই পাকিস্তান শিবিরে তৃতীয় আঘাত হানেন অস্ট্রেলিয়ার আরেক পেসার শন অ্যাবট। দুই অংকে পা দেয়া আরেক ওপেনার ইমাম উল হককে (১৪) ফেরদ পাঠান তিনি।

দলীয় ২২ রানে ইমামের বিদায়ে পাকিস্তানকে চাপমুক্ত করার চেষ্টা করেন হারিস সোহেল ও ইফতেখার আহমেদ (৪৫)। অস্ট্রেলিয়ার বোলারদের উপর মারমুখী হবার চেষ্টা করেছিলেন তিনি। তবে ১০ম ওভারের প্রথম বলে সোহেল-ইফতেখার জুটিতে ভাঙ্গন ধরান অস্ট্রেলিয়ার স্পিনার অ্যাস্টন আগার। ৮ রান করে আউট হন সোহেল। এরপর অস্ট্রেলিয়ার পেসার কেন রিচার্ডসনের পেস তোপে পাকিস্তানের ব্যাটসম্যানরা যাওয়া-আসার মিছিল শুরু করেন। পুরো ইনিংসে ইমাম ও ইফতেখার ছাড়া আর কোনো ব্যাটসম্যানই দুই অংকের কোটা স্পর্শ করতে পারেননি। ২০ ওভারে ৮ উইকেটে ১০৬ রানের মামুলি সংগ্রহ পায় পাকিস্তান।

জবাবে ১০৭ রানের সহজ লক্ষ্যে নিজেদের ইনিংস শুরু করে অস্ট্রেলিয়া। অধিনায়ক অ্যারন ফিঞ্চের মারমুখী ব্যাটিংয়ে পাওয়ার প্লেতে ৫৬ রান তুলে নেয় অস্ট্রেলিয়া। এসময় ২০ বলে ৩১ রান করেন ফিঞ্চ। তার সঙ্গী ডেভিড ওয়ার্নারের ব্যাট থেকে এসেছিল ১৬ বলে ২২ রান। ১১ ওভারে অস্ট্রেলিয়ার রান একশ ছাড়ায়। তখন দুই জনই হাফ-সেঞ্চুরির দোঁড়গোড়ায় ছিলেন। দলও ছিল জয় থেকে ৭ রান দূরে। ১২তম ওভারের পঞ্চম বলে বাউন্ডারি মেরে টি-টোয়েন্টি ক্যারিয়ারে ১১তম হাফ-সেঞ্চুরি পূর্ণ করেন ফিঞ্চ। আর ঐ বাউন্ডারিতে অস্ট্রেলিয়ার জয়ও নিশ্চিত হয়। ফিঞ্চ ৩৬ বলে ৪ বাউন্ডারি ও ৩টি ছক্কায় ৫২ এবং ওয়ার্নার ৩৫ বলে ৪ বাউন্ডারি এবং ২টি ছক্কায় ৪৮ রানে অপরাজিত থেকে মাঠ ছাড়েন।

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More