দিল্লিতে বাংলাদেশ-ভারত ম্যাচ বাতিল হোক : গৌতম গম্ভীর

101
gb

জিবি নিউজ ২৪ ডেস্ক//

অনেক ঝড় ঝঞ্ঝা সামলে দুই সেরা তারকাকে দেশে রেখে প্রায় এক মাসের সফরে ভারতে গেছে বাংলাদেশ দল। এই প্রথমবার ভারতের মাটিতে টি-টোয়েন্টি এবং টেস্ট ফরম্যাটের দুটি পূর্ণাঙ্গ সিরিজ খেলবে টাইগাররা। একদিন পর ৩ নভেম্বর প্রথম টি-টোয়েন্টি আয়োজিত হবে দিল্লির ফিরোজ শাহ কোটলা স্টেডিয়ামে। ৭ এবং ১০ নভেম্বর দ্বিতীয় ও তৃতীয় টি-টোয়েন্টি। প্রথম টেস্ট হবে ১৪ নভেম্বর থেকে। দ্বিতীয় টেস্ট হবে দিবা-রাত্রির; অনুষ্ঠিত হবে ২২ নভেম্বর ইডেন গার্ডেনে। তবে দিল্লির ম্যাচ নিয়েই চিন্তিত হয়ে পড়েছেন ভারতের পরিবেশবিদ এবং সাবেক ক্রীড়াবিদরা।

ভয়াবহ বায়ু দুষণের কারণে দিল্লিতে ‘হেলথ ইমার্জেন্সি’ ঘোষণা করা হয়েছে। দিল্লির বাতাস এখন সহ্যসীমার থেকে অনেক বেশি দূষিত। অ্যাজমা বা শ্বাসকষ্টজনিত রোগীদের ক্ষেত্রে যা ভয়ঙ্কর হয়ে উঠতে পারে। সেই দিল্লিতেই কিনা ম্যাচ! এই অবস্থায় ক্রিকেট খেলা হবে কী করে! গতকাল বৃহস্পতিবার বাংলাদেশের তরুণ ওপেনার লিটন দাস মাস্ক পরে অনুশীলনে নেমেছিলেন। তারপর থেকে ভারতে এই ম্যাচ নিয়ে আলোচনা বেড়ে গেছে। গত কয়েক বছর ধরে শীতকাল এলেই দিল্লির বাতাসে দূষণের পরিমাণ আশ্চর্যজনকভাবে বেড়ে যায়। এই বছর অবশ্য শীতকাল আসের আগেই দূষণ বেড়েছে। এমন অবস্থায় ম্যাচ আয়োজনে নারাজ সাবেক ভারতীয় ওপেনার গৌতম গম্ভীর।

বিজেপির এই সাংসদ বলেছেন, দিল্লির বাতাস এতটাই দূষিত যে সেখানে ম্যাচ আয়োজনের প্রশ্নই ওঠে না। এমন পরিবেশে খেলতে নামলে ক্রিকেটারদের অসুস্থ হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। গম্ভীরের ভাষায়, ‘সবাই দেখতে পাচ্ছেন দিল্লির বাতাসের কী অবস্থা। এমন অবস্থায় খেলতে নামলে ক্রিকেটারদের ফিটনেস ধরে রাখাটাই আসল চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়াবে। ম্যাচ আয়োজনের থেকে এই মুহূর্তে দূষণের বিরুদ্ধে লড়াই করাটা আসল। দিল্লিবাসীরা এখন ম্যাচ নিয়ে খুব বেশি ভাবছেন না। বরং এখানকার মানুষ দূষণ নিয়েই বেশি চিন্তিত। সাধারণ মানুষের কাছে এখন সব থেকে বড় সমস্যা দূষণ। সেখানে ম্যাচ হল কী হল না তা অত্যন্ত তুচ্ছ ব্যাপার। এমন দূষণ নিয়ে ক্রিকেটাররাও হয়তো চিন্তিত হবে।