অপ্রাপ্ত বয়স্কের কাছে সিগারেট বিক্রি করায় জরিমানা 

48
gb
জিবি নিউজ ডেস্ক।।
১৩ বছর বয়সী এক কিশোরের কাছে সিগারেট বিক্রি করায় টাওয়ার হ্যামলেটস বরার একটি গ্রোসারি দোকানকে অর্থদন্ডে দন্ডিত করা হয়েছে।
কাউন্সিলের ট্রেডিং স্ট্যান্ডার্ডস টিমের অভিযানের অংশ হিসেবে অপ্রাপ্ত বয়স্ক এক কিশোরকে সিগারেট কিনতে রোমান রোডস্থ অল ইন ওয়ান বাজার নামের শপটিতে পাঠানো হয়েছিলো।
গত ১ আগষ্ট বো’র টেমস ম্যাজিষ্ট্রেট কোর্টে শুনানিকালে অভিযুক্তরা দোষ স্বীকার করে নিলে আদালত তাদের অর্থ দন্ডে দন্ডিত করার পাশাপাশি মামলার খরচ ও ভিক্টিম সারচার্জ প্রদানের নির্দেশ দেন এবং কালেকশন অর্ডারও জারি করেন।
উল্লেখ্য, গত বছরের ২০ ডিসেম্বর কাউন্সিলের ট্রেডিং স্ট্যান্ডার্ডস বিভাগ বরার বিভিন্ন দোকানে পরীক্ষামূলকভাবে সিগারেট বা তামাকজাতীয় পণ্য কেনার অভিযান চালায়। ঐ সময় ১৩ বছর বয়সী এক কিশোরকে অল ইন ওয়ান বাজার নামের দোকানে সিগারেট কিনতে পাঠালে সে বিনা প্রশ্নে এক প্যাকেট মেফেয়ার গ্রিন সিগারেট কিনে নিয়ে আসে। বিক্রেতা হাসানুর রহমান এসময় কিশোর ক্রেতার কাছে তার বয়স সম্পর্কে কিছুই জিজ্ঞেস করেননি। পরে অফিসারদের কাছে তিনি দাবি করেন যে, তিনি ঐ প্রতিষ্ঠানে কাজ করেন না, ঐ সময় তাদেরকে কিছুটা সহযোগিতা করেছেন মাত্র। তবে আদালতে শুনানির পর তাকে ৫০ পাউন্ড জরিমানা, ১০০ পাউন্ড মামলার খরচ ও ৩০ পাউন্ড ভিক্টিম সারচার্জ প্রদানের নির্দেশ দেয়া হয়।
এছাড়া আদালত অল ইন ওয়ান বাজারকে ২১০ পাউন্ড জরিমানা, মামলার খরচ বাবদ আরো ৫০০ পাউন্ড এবং ভিক্টিম সারচার্জ বাবদ ৩০ পাউন্ড প্রদানের এবং দোকানটির পক্ষে আদালতে প্রতিনিধিত্বকারী বেথনাল গ্রীণের পালমার্স রোডের মোহাম্মদ দিলওয়ার হোসেনকে, যিনি সিগারেট বিক্রির সময় উপস্থিত ছিলেন, ১৩৩ পাউন্ড অর্থদন্ড, মামলার খরচ বাবদ ২০০ পাউন্ড ও ৩০ পাউন্ড ভিক্টিম সারচার্জ প্রদানের নির্দেশ দেন।
এ প্রসঙ্গে মেয়র জন বিগস বলেন, অনুর্ধ আঠারো বয়সীদের কাছে এ ধরনের পণ্য বিক্রি গুরুতর অপরাধ। আমাদের অফিসারদের এই সফল অভিযানের প্রেক্ষিতে যারা নিজেদের আইনের উর্ধে ভাবে, তারা এ ধরনের অপরাধমূলক কাজ থেকে বিরত থাকবে বলে আমরা আশা করছি।
কেবিনেট মেম্বার ফর এনভায়রনমেন্ট, কাউন্সিলর ডেভিড এডগার বলেন, সিগারেট ক্রয় করতে আসা ক্রেতাদের বয়স চেক করার ক্ষেত্রে বারার অধিকাংশ দোকান মালিকই দায়িত্বশীল ভূমিকা পালন করে থাকেন। আমাদের ট্রেডিং স্ট্যান্ডার্ডস টিম নিয়মিতই এ ধরনের পরীক্ষামূলক ক্রয় অভিযান পরিচালনা করে থাকে এবং যখন তারা আইন অমান্যকারী কাউকে পায়, তখন তার বিরুদ্ধে যথাযথ আইনী পদক্ষেপ গ্রহণ করে থাকে।
তিনি বলেন, কম বয়সে যাতে কেউ ধুমপান বা তামাকজাতীয় পণ্যের প্রতি আকৃষ্ট না হয়, তা নিশ্চিত করতেই গুর“ত্বপূর্ণ এই কাজ চালিয়ে যাওয়া হচ্ছে।
gb
মন্তব্য
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More