নিউইয়র্কে বাংলাদেশীর ওপর হামলার প্রতিবাদে র‌্যালি, সমাবেশ

542

   বর্ণবৈষম্যমূলক হামলা, ছিনতাইসহ যেকোন অপরাধমূলক কার্যকলাপ বন্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণের আশ্বাস পুলিশ বিভাগের
হাকিকুল ইসলাম খোকন ||

নিউইয়র্কে বাংলাদেশীদের ওপর সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদে র‌্যালি ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। স্থানীয় সময় ২০ অক্টোবর শুক্রবার দুপুর ২টায় ব্রঙ্কসের বাঙালী অধ্যুষিত স্টারলিং বাংলাবাজার এলাকায় বাংলাদেশী কমিউনিটি অব ব্রঙ্কস আয়োজন করে এই কর্মসূচির। বাংলাবাজার জামে মসজিদের সামনে থেকে শুরু হয়ে র‌্যালিটি ইউনিয়নপোর্ট রোডে গিয়ে শেষ হয়। জুমার নামাজের পরপরই কর্মসুচিতে বাংলাবাজার জামে মসজিদের মুসলীসহ জড়ো হন দল-মত-বর্ণ নির্বিশেষে বিপুল সংখ্যক প্রবাসী। তারা বাংলাদেশীদের ওপর ছিনতাইকারীসহ অন্যান্য সন্ত্রাসী হামলার তীব্র প্রতিবাদ ও নিন্দা জানান। র‌্যালি থেকে ’ছিনতাইকারী-সন্ত্রাসীমুক্ত ব্রঙ্কস চাই’ সহ নানা শ্লোগান দেয়া হয়।


কর্মসুচি চলাকালে গিøব এভিনিউ ও গেøাভার স্ট্রিট এলাকায় সংক্ষিপ্ত এক সমাবেশে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন বাংলাবাজার জামে মসজিদের সভাপতি বিশিষ্ট ব্যবসায়ী গিয়াস উদ্দিন, নিউইয়র্ক সিটির সাবেক পুলিশ কমিশনার জো রামোস এবং ভিকটিম মুশফিকুর চৌধুরী রাহাত। এসময় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন নিউইয়র্ক সিটি পুলিশ ডিপার্টমেন্টের ৪৩ পুলিশ প্রিসেনক্টের কমান্ডিং অফিসার ইন্সপেক্টর ফাস্টো বি পিসারডো, ৪৫ পুলিশ প্রিসেনক্টের কমিউনিটি এ্যাফিয়ার্স ইউনিটের অফিসার জন সাউহরাডা সহ পুলিশ বিভাগের কর্মকর্তাবৃন্দ। বাংলাদেশ কমিউনিটির নের্তৃবৃন্দও এসময় উপস্থিত ছিলেন।
সমাবেশে আলহাজ গিয়াস উদ্দিন ব্রঙ্কসে সাম্প্রতিক সময়ে ঘটে যাওয়া ছিনতাইকারীসহ অন্যান্য সন্ত্রাসী হামলার উল্লেখ করে এসব বন্ধে কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণে প্রশাসনের প্রতি জোর দাবি জানান।
ভিকটিম মুশফিকুর চৌধুরী রাহাত তার ওপর ছিনতাইকারীদের হামলার বিবরণ দিয়ে এ র‌্যালি আয়োজনের জন্য বাংলাদেশী কমিউনিটিকে বিশেষ ধন্যবাদ জানান।
সমাবেশে পুলিশের পক্ষ থেকে বাংলাদেশী কমিউনিটির নিরাপত্তায় বিশেষ ব্যবস্থা গ্রহণের কথা জানান হয়। বর্ণবৈষম্যমূলক হামলা, ছিনতাইসহ যেকোন অপরাধমূলক কার্যকলাপ বন্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণে দৃঢ় অঙ্গীকারের কথাও পুনর্ব্যক্ত করা হয় এসময়। কোন ঘটনা ঘটলে সঙ্গে সঙ্গে পুলিশকে জানাতে পরামর্শও দেয়া হয়। পুলিশি টহল বাড়ানো, পুলিশের নজরদারি জোরদারসহ অপরাধ প্রবন বিভিন্ন এলাকায় সিসি ক্যামেরা স্থাপনেরও আশ্বাস প্রদান করা হয়।
উল্লেখ্য, ব্রঙ্কসে মুশফিকুর চৌধুরী রাহাত নামে এক বাংলাদেশী যুবক ছিনতাইকারীর হামলার শিকার হন গত ১৪ অক্টোবর শনিবার। রাত প্রায় সাড়ে দশটায় ব্রঙ্কসের গিøব এভিনিউ ও গেøাভার স্ট্রিট এলাকায় কিউ এনালিস্ট মুশফিকুর চৌধুরী রাহাত (২৬)কে তিন স্পেনিস যুবক এলোপাতারি কিল ঘুষি মেরে মারাত্মক জখম করে। সেন্ট রেমন্ড ও গেøাভার স্ট্রিট এভিনিউ এলাকায় বসবাস করেন ভিকটিম রাহাত। তার দেশের বাড়ি সিলেটের আম্বরখানায়।
এর আগে গত ২৭ সেপ্টেম্বর ব্রঙ্কসে বৃহত্তর কুমিল্লা সমিতির সিনিয়ার সহ সভাপতি খবির উদ্দিন ভূইয়া (৫৮) সন্ত্রাসী হামলার শিকার হয়ন। ওইদিন রাত প্রায় আট টায় ব্রঙ্কসের ক্যাসেলহিল সাবওয়ের অদূরে ক্যাসেলহিল এবং স্টারলিং এভিনিউর কর্ণারে খবির উদ্দিন ভূইয়া কে ৪/৫জন যুবক এলোপাতারি কিল ঘুষি মেরে মারাত্মক জখম করে। খবির উদ্দিন ভূইয়ার দেশের বাড়ি কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলায়। তিনি সপরিবারে দীর্ঘদিন ওই এলাকায় বসবাস করছেন।