ইউএনের মোবাইল নম্বর ক্লোন করে চাঁদা দাবি, ফেসবুকে সতর্কতা

154

সিলেটর ওসমানীনগর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. আনিছুর রহমানের সরকারি মোবাইল নম্বর (০১৭৩০৩৩১০২৯) ক্লোন করে চাঁদা আদায়ের চেষ্টা করেছে একটি প্রতারক চক্র। তবে এ ব্যাপারে উপজেলা প্রশাসনের ফেসবুক পেজে সতর্কতামূলক পোস্ট দেয়া হয়েছে।

শনিবার রাত সোয়া ১১টার দিকে নম্বরটি ক্লোন করে চাঁদা আদায়ের চেষ্টা করা হয়। উপজেলার বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের প্রধানের কাছে ইউএনওর পক্ষ থেকে ল্যাপটপ ও মাল্টিমিডিয়া প্রজেক্টর দেয়া হবে, এর বিনিময় সাত হাজার টাকা করে বিকাশের মাধ্যমে পাঠানোর জন্য তাগিদ দেন প্রতারকরা।

বিষয়টি স্থানীয় প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দুই প্রধান শিক্ষক ওসমানীনগর উপজেলা প্রেসক্লাবের সভাপতিকে অবগত করলে তিনি সে বিয়ষটি ইউএনও মো. আনিছুর রহমানকে জানান।

এর পর পরই ইউএনও মো. আনিছুর রহমানের নির্দেশে তার অফিসের অফিস সহকারী-কাম কম্পিউটার মুদ্রাক্ষরিক প্রভাংশু শেখর দাস বাদী হয়ে রাতেই এ ব্যাপারে ওসমানীনগর থানায় একটি সাধারণ (ডায়েরি নং-১৭৭৭) রুজু করেন।

এর পাশাপাশি কারও নিকট ইউএনওর নম্বর থেকে কেউ টাকা-পয়সা চাইলে না দিতে উপজেলা প্রশাসনের ফেসবুক পেজে সতর্কতামূলক পোস্ট দেয়া হয়।

ইসবপুর রাজচন্দ্র সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা মিতা দে বলেন, আমার মোবাইল ফোনে ইউএনওর পরিচয় দিয়ে সরকারি বরাদ্দের ল্যাপটপ দেয়া হবে, এর বিনিময়ে সাত হাজার টাকা বিকাশে পাঠানোর জন্য বলে প্রতারক চক্রের একজন। বিষয়টি ভুয়া জেনে আমি টাকা দিইনি।

ওসমানীনগর থানার ওসি এসএম আল মামুন ইউএনওর পক্ষ থেকে সাধারণ ডায়েরি রুজুর সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, জিডি তদন্তের জন্য একজন অফিসারকে নিয়োগ করা হয়েছে। এ বিষয়ে তদন্তপূর্বক প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

ওসমানীনগরের ইউএনও মো. আনিছুর রহমান বলেন, এ ঘটনায় ওসমানীনগর থানায় সারাধারণ ডায়েরি করা হয়েছে। আমার নম্বর থেকে কেউ কোনো টাকা-পয়সা চাইলে না দেয়ার জন্য সবার প্রতি অনুরোধ রইল।