মরাবাঁচার ম্যাচে আজ দ. আফ্রিকার মুখোমুখি পাকিস্তান

40

বিশ্বকাপের গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে আজ মুখোমুখি পাকিস্তান দক্ষিণ আফ্রিকা। লর্ডসে এই ম্যাচ শুরু হবে বিকাল সাড়ে তিনটায়। টিকে থাকতে হলে আজ প্রোটিয়াদের হারাতেই হবে সরফরাজ বাহিনীর।

অন্যদিকে চোকার দক্ষিণ আফ্রিকার অবস্থা আরও করুণ। আজ জিতলেও পরবর্তী রাউন্ড খেলার নিশ্চয়তা নেই তাদের। আগের ম্যাচে নিউজিল্যান্ডের কাছে চার উইকেটের হারে সেমিফাইনালের আশা একরকম শেষই হয়ে গেছে দক্ষিণ আফ্রিকার। ছয় ম্যাচে প্রাপ্তি মোটে তিন পয়েন্ট। একমাত্র জয় আফগানিস্তানের বিপক্ষে। অলৌকিক কিছু না ঘটলে বাকি তিন ম্যাচ জিতলেও কোনো লাভ হবে না প্রোটিয়াদের।

পাকিস্তানের ঝুলিতেও তিন পয়েন্ট। তবে দক্ষিণ আফ্রিকার চেয়ে এক ম্যাচ কম খেলায় তাদের সম্ভাবনার কফিনে এখন শেষ পেড়েকটি ঢুকেনি। সেমির আশা বাঁচিয়ে রাখতে আজ জিততেই হবে। শুধু আজ নয় ৫ ম্যাচে ৩ পয়েন্ট নিয়ে পয়েন্ট টেবিলের তলানির দিকে অবস্থান করা পাকিস্তানকে বাকি চার ম্যাচও জিততে হবে।

দক্ষিণ আফ্রিকার পর নিউজিল্যান্ড, আফগানিস্তান ও বাংলাদেশের মুখোমুখি হবে পাকিস্তান।

স্বাগতিক ইংল্যান্ডের বিপক্ষে একমাত্র জয় বাদ দিলে বিশ্বকাপে সময়টা একেবারেই ভালো কাটছে না পাকিস্তানের। শেষ ম্যাচে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ভারতের কাছে শোচনীয় হারে আত্মবিশ্বাসও ঠেকেছে তলানিতে। চার ইনিংসে ১৩ উইকেট নেয়া মোহাম্মদ আমির ছাড়া কারও পারফরম্যান্সেই নেই ধারাবাহিকতা। সবচেয়ে বেশি হতাশ করেছেন অভিজ্ঞ অলরাউন্ডার শোয়েব মালিক। তার জায়গায় আজ একাদশে আসতে পারেন হারিস সোহেল।

আরেক অলরাউন্ডার মোহাম্মদ হাফিজ অবশ্য ব্যর্থতার দায় নির্দিষ্ট কারও কাঁধে চাপাতে নারাজ। বলেছেন, ‘আমরা দল হিসেবে ব্যর্থ হয়েছি। নির্দিষ্ট কোনো খেলোয়াড়কে আপনি দায়ী করতে পারেন না। দায় সবারই সমান। এখান থেকে ঘুরে দাঁড়াতে দরকার দলীয় প্রচেষ্টা। ভালো দিকটা হল, এখনও সব কিছু শেষ হয়ে যায়নি। দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষেই জয়ের ধারায় ফিরতে চাই আমরা’।

পেসার ওয়াহাব রিয়াজের কণ্ঠেও ঘুরে দাঁড়ানোর প্রত্যয়, ‘নিজেদের তুলে ধরতে হবে আমাদের। দলে সবাই আমরা ভালো বন্ধু, একে অপরের শক্তি। এই ১৫ জনই পারি দলকে টেনে তুলতে। সব সময়ই চাপের মুখে ভালো খেলে পাকিস্তান। এবারও আমরা ফাইনাল পর্যন্ত যেতে পারি। তবে বেশি দূরে না তাকিয়ে এখন আমাদের প্রতিটি ম্যাচ ধরে এগোতে হবে। সবার আগে দক্ষিণ আফ্রিকাকে হারাতে হবে।’

পরিসংখ্যান বলছে এ পর্যন্ত ৭৮ ম্যাচে মুখোমুখি হয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকা পাকিস্তান। পাকিস্তান জিতেছে ২৭ ম্যাচে আর দক্ষিণ আফ্রিকা জিতেছে ৫০ ম্যাচে। একটি ম্যাচ ফলহীন ড্র হয়েছে। পরিসংখ্যানে এগিয়ে আছে প্রোটিয়ারা। তবে পাকিস্তান আজ জিততে মরিয়া।

মন্তব্য
Loading...