সাংবাদিক কাউসার চৌধুরী চিকিৎসায় কমিউনিটির বিশাল সাড়া ৪১ লক্ষ টাকা সংগ্রহ, কিডনী ও লিভার ট্রান্সপ্লান্ট সম্পন্ন

506
gb

স্টাফ রিপোর্টার ||

সিলেটের মেধাবী সাংবাদিক কাউসার চৌধুরী দীর্ঘদিন যাবৎ লিভার ও কিডনীর জঠিল রোগে আক্রান্ত ছিলেন। স্থানীয়ভাবে দীর্ঘ চিকিৎসার এক পর্যায়ে ডাক্তাররা তার লিভার ও কিডনী প্রতিস্থাপনের পরামর্শ দিয়েছিলেন। তাই ব্যয়বহুল এই চিকিৎসার খরচ তার পরিবারের একার দ্বারা বহন করা অসম্ভব হয়ে উঠেছিলো। ভারতে গিয়ে কিডনী ও লিভার প্রতিস্থাপনে ডাক্তাররা জানিয়েছিলেন প্রায় ৫০/৬০ লক্ষ টাকা প্রয়োজন হবে। এমন অবস্থায় অসহায় কাউসার চৌধুরীর পাশে দাঁড়িয়েছিলেন বিলেতের বাংলাদেশী কমিউনিটি।


গত বছর ২০১৬ সালে কাউসার চৌধুরীর বিলেত প্রবাসী কয়েকজন সহকর্মী মিলে গঠন করেন জার্নালিস্ট কাউসার কিডনী ট্রিটমেন্ট ফান্ড ইউকে’ নামের একটি ক্যাম্পেইন কমিটি। এই কমিটি বাংলামিডিয়ার সাংবাদিক, ব্যবসায়ী ও কমিউনিটির মানুষকে সাথে নিয়ে ফান্ড রেইজিংয়ের সুচনা করে। পরে ২০১৬ সালের ১১ই মে চ্যানেল এস টেলিভিশনে লাইভ ফান্ড রেইজিং করা হয়। তাতে সবমিলিয়ে কমিটমেন্ট আসে ৪৫ হাজার পাউন্ডের। এর থেকে সর্বশেষ উত্তোলিত হয় ৪১ লাখ টাকা। এই অর্থ দিয়ে ভারতের জেপি হাসপাতালে কিডনী ও লিবার ট্রান্সপ্লান্ট করান কাউসার চৌধুরী।
দীর্ঘ আড়াই মাস চিকিৎসা শেষে গত ২০ আগষ্ট সুস্থ অবস্থায় দেশে ফিরেন তিনি। তিনি বর্তমানে আল্লাহর অশেষ মেহেরবানীতে সুস্থ আছেন এবং আনুসাঙ্গিক চিকিৎসা বর্তমানে সিলেটে চালিয়ে যাচ্ছেন। তার চিকিৎসার আপডেট জানাতে গত ২০ অক্টোবর, শুক্রবার ইস্ট লন্ডনের বারাকা ইটারী রেস্টুরেন্টে মিডিয়া ব্রিফিংয়ের আয়োজন করা হয়। তাতে চিকিৎসা পরবর্তী বিস্তারিত তুলে ধরেন যুক্তরাজ্য সফররত কাউসার চৌধুরীর মামা, সিলেট জজ কোর্টের এপিপি এডভোকেট শামসুল হক। তিনি কাউসার চৌধুরীর পরিবারের পক্ষ থেকে সবার প্রতি অসীম কৃতজ্ঞতা ও ধন্যবাদ জানান। শামসুল হক বলেন, বিলেতে বাংলাদেশী কমিউনিটির এতো বিশাল সাড়া আসলে সিলেট বাসীকে অভিভূত করেছে। প্রবাসীদের এই দান এবং বাংলা মিডিয়ার সহযোগিতা না থাকলে কাউসারের চিকিৎসা কঠিন ছিলো।
তিনি বলেন, কাউসারকে তার জীবনের বাকী সময়টুকুও চিকিৎসা চালিযে যেতে হবে। ডায়ালাইসিসহ নিয়মিত চেকআপ করাতে হবে। ওষধবাবত সারাজীবন প্রতিমাসে ৬ থেকে ৭ হাজার টাকা ব্যয় করতে হবে। তাকে সুস্থভাবে বেঁচে থাকতে তিনি সকলের আরো সহযোগিতা কামনা করেন।
ক্যাম্পেইন কমিটির চীফ কো-অর্ডিনেটর ও লন্ডন বাংলা প্রেসক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি মুহিব চৌধুরীর সভাপতিত্বে এবং কমিটির অন্যতম সদস্য ও লন্ডন বাংলা প্রেসক্লাবের সাধারন সম্পাদক মুহাম্মদ জুবায়েরের পরিচালনায় এতে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন কমিটির কো- অর্ডিনেটর ও চ্যানেল এস‘র সিনিয়র রিপোর্টার ইব্রাহিম খলিল। বক্তব্য রাখেন কমিউনিটি নেতা ও প্রবীন সাংবাদিক কে এম আবু তাহের চৌধুরী, লন্ডন বাংলা প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি নবাব উদ্দিন, চ্যানেল আই ইউরোপের ম্যানেজিং ডাইরেক্টর রেজা আহমদ ফয়সল চৌধুরী শুয়েব, চ্যানেল এস‘র হেড অব প্রোগ্রাম ফারহান মাসুদ খান, চ্যারিটি সংগঠন ইচএসএলটি’র ডাইরেক্টর আশিকুর রহমান ও ক্যাম্পেইন কমিটির সদস্য ও ব্রিটবাংলা টুয়েন্টিফোরের এক্সিকিউটিভ এডিটর আহাদ চৌধুরী বাবু।
সভাপতির বক্তব্যে মহিব চৌধুরী এই ক্যাম্পেইনকে সফল করে তোলার জন্য সকলের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন।
অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, সাপ্তাহিক বাংলাদেশের সম্পাদক শেখ মোজাম্মেল হোসেন কামাল, এনটিভি ইউরোপের ডাইরেক্টর মোস্তফা সারোয়ার বাবু, লন্ডনবাংলা প্রেসক্লাবের ভাইস প্রেসিডেন্ট মাহবুব রহমান, জনমতের বার্তা সম্পাদক মোসলেহ উদ্দিন আহমেদ, সাপ্তাহিক দর্পন সম্পাদক রহমত আলী,এটিএন বাংলা ইউকে’র সিনিয়র রিপোর্টার ও বেতারবাংলার ডাইরেক্টর মোস্তাক আলী বাবুল, শেফ অনলাইনের ম্যানেজিং ডাইরেক্টর সালিক মুমিন, লন্ডন বাংলা প্রেসক্লাবের প্রেস সেক্রেটারী এম এ কাইয়ুম, এনটিভি ইউরোপের চীফ রিপোর্টার আকরামুল হোসাইন, এটিএন বাংলার সাবেক রিপোর্টার মহি উদ্দিন কাদের, বিশ্ববাংলা টুয়েন্টিফোরের সম্পাদক শাহ বেলাল, চ্যানেল এস‘র সিনিয়র ক্যামেরাপার্সন রেজাউল করিম মৃধা, চ্যানেল নাইনের সাবেক রিপোর্টার আব্দুল হান্নানসহ আরো অনেকে।

উল্লেখ্য ‘‘জার্নালিস্ট কাউসার কিডনী ট্রিটমেন্ট ফান্ড ইউকে‘ কমিটির সদস্যরা হলেন, চীফ কো-অর্ডিনেটর মুহিব চৌধুরী, কো-অর্ডিনেটর ইব্রাহিম খলিল, সদস্য মনির আহমদ, শফিকুল ইসলাম, মুহাম্মদ জুবায়ের, তাইসির মাহমুদ, আব্দুল মুনিম ক্যারল, আহাদ চৌধুরী বাবু ও জাকির হোসেন কয়েছ।