গাইবান্ধায় টিকিট কালোবাজারি রেল কর্মকর্তা আবু রায়হান সাময়িক বরখাস্ত

122

গাইবান্ধা জেলার

বোনারপাড়া রেলওয়ে স্টেশনের ৭২০ টাকার টিকিট ১৮শ টাকায় বিক্রির সময় ৬০টি টিকিটসহ রেলওয়ে স্পেশাল ব্রাঞ্চ (আরএসবি) পুলিশের হাতে ধরা পড়েছে বুকিং সহকারী আবু রায়হান। এ ঘটনায় তাকে সাময়িকী বরখাস্ত করা হয়। গতকাল ১৩ জুন বৃহস্পতিবার বিকেলে বুকিং সহকারী আবু রায়হানকে সাময়িক বরখাস্ত করার আদেশ দেন রেলওয়ে ট্রাফিক ম্যানেজার (ডিটিএম) ও রেলওয়ে ডিভিশনাল ম্যানেজার (ডিএমডি) পশ্চিম অঞ্চল। যাত্রীরা অভিযোগ করেন, বোনারপাড়া রেলওয়ে স্টেশনের বুকিং সহকারী আবু রায়হান ১৩ জুন দুপুরে বোনারপাড়া রেলওয়ে কাউন্টার থেকে বোনারপাড়া-ঢাকা গামী লালমনি এক্সপ্রেস ট্রেনের ৩৬০ টাকা ম‚ল্যের শোভন চেয়ারের ২টি টিকিট ১৮০০ টাকায় বিক্রি করে। পরে ওই যাত্রী টিকিট নিয়ে বোনারপাড়া রেলওয়ে থানায় গিয়ে মৌখিক অভিযোগ করে। পরে বোনারপাড়া রেলওয়ে থানার স্পেশাল ব্রাঞ্চ (আরএসবি) এক পুলিশ সদস্য জাকির হোসেন লাইনে দাঁড়িয়ে টিকিট ক্রয়ের অভিনয় করে টিকিট কিনতে টাকা জমা দেয়া পরে সে দেখতে পায় বুকিং সহকারী আবু রায়হান কাউন্টার কম্পিটার থেকে নয় বরং ৪০টি টিকিট গোপন স্থান থেকে বের করে দিচ্ছে। তখন আরএসবি পুলিশ বিষয়টি রেলওয়ে থানাকে জানালে বোনারপাড়া রেলওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আব্দুর ছাত্তার সরেজমিনে বিষটির সত্যতার প্রমাণ পায়। রেলওয়ে পুলিশের ঊর্ধতন কর্মকতাসহ বোনারপাড়া রেলওয়ে স্টেশন ও রেলওয়ে বিভাগের ঊর্ধতন কর্মকর্তাদের অবহিত করেন। এক যাত্রী জানান, টিকিট প্রতি ১০০ থেকে ১ হাজার টাকা বেশি দিয়ে অনেক সময় কালোবাজারীদের কাছ থেকে কিনতে হচ্ছে। এই কালোবাজারীদের সঙ্গে বুকিং সহকারী আবু রায়হানের যোগাযোগের ফলে এই কাউন্টার থেকে টিকিট পাওয়া দুর্লভ হয়ে পড়ে । ঢাকাগামী রংপুর এক্সেপ্রেস ট্রেনের যাত্রীগণ জানান, বিভিন্ন সময় চাকরির ভাইভা বা ভর্তি পরীক্ষার টিকিট কান্টারে পাওয়া যায় না। বরং অতিরিক্ত টাকা দিলে কাউন্টার থেকেই টিকিট মিলে । স্থানীয় অন্যান্য যাত্রীরা জানান, জেলার সাঘাটা ও ফুলছড়ি উপজেলার সঙ্গে ঢাকার যোগাযোগের কোনো মহাসড়ক না থাকায় বোনারপাড়া রেলওয়ে স্টেশনে যাত্রী সমাগম বেশি হয়। এই যাত্রীদের ঢাকায় যেতে টিকিট না পাওয়ায় দীর্ঘদিন থেকে নানা ভোগান্তি পোহাতে হয়। বুকিং সহকারী রায়হানের মাধ্যমে এই কাউন্টারে বরাদ্দের টিকিট কালোবাজারে যাওয়ার ফলে এই এলাকার ঢাকাগামী যাত্রীদের অতিরিক্ত ভাড়া গুনতে হয়। ফলে সরকারের ভাবম‚র্তি নষ্ট হয়। এ বিষয়ে বোনারপাড়া রেলওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আব্দুর ছাত্তার সাংবাদিকদের জানান, বুকিং সহকারী আবু রায়হানের স্টকে টিকিট রেখে কালো বাজারে টিকিট বিক্রির অনিয়মের ঘটনা স্টেশন মাস্টার খলিলুর রহমানসহ ঊর্ধতন মহলকে জানানো হয়েছে। তারা প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবেন। এ বিষয়ে নিশ্চিত করে বোনারপাড়া রেলওয়ে স্টেশন মাস্টার খলিলুর রহমান জানিয়েছেন, বুকিং সহকারী আবু রায়হানের টিকিট বিক্রির অনিয়মের ঘটনা রেলওয়ে ট্রাফিক ম্যানেজার (ডিটিএম) ও রেলওয়ে ডিভিশনাল ম্যানেজার (ডিএমডি) পশ্চিম অঞ্চলকে জানালে তাকে সাময়িক বরখাস্ত করার আদেশ দেন।