সাপাহারে ধান ছেড়ে বাণিজ্যিক ভাবে আম চাষে কৃষকের ভাগ্য বদল

105

গোলাপ খন্দকার সাপাহার(নওগাঁ) প্রতিনিধিঃ

নওগাঁর সাপাহারে ধান চাষ করে ধানের দাম না থাকায়,ধান চাষ করতে যে পরিমান খরচ হয়েছে সে পরিমান খরচটুকু পর্যন্ত তুলতে পারেনি এ উপজেলার কৃষকেরা তবে যে কৃষকেরা আম চাষ করেছিল সে কৃষকেরা আমের বাম্পার ফলন ও ভালো দাম থাকায় ধানের লোকসান আমে পুষে নিতে পারতেছে এবং আমের বাম্পার ফলন ও ভালো দাম থাকায় কৃষকের ভাগ্য বদল হতে চলেছে। এ উপজেলায় বর্তমানে ৫ হাজার হেক্টর জমিতে গোপালভোগ, হিমসাগর,লকনা,নাক- ফজলি,ফজলি,নেংড়া,মল্লিকা,কালীভোগ,আম্ধসঢ়;্রপালি সহ বিভিন্ন জাতের আম বাণিজ্যিক ভাবে চাষ করা হচ্ছে তবে বেশি লাভ এবং দেরিতে ওঠা আম বারি-৪,বারি- ১১,গৌড়মতী,আরশিনা ঝিনুক এই সব আম চাষে ঝুকে পড়েছে।হয়তোবা দেখা যাবে এতো পরিমান আম বাজান তৈরি হবে এক সময় দেখা যাবে ধান চাষের জন্য এ এলাকায় জমি পাওয়া যাচ্ছে না কারণ আমের দাম ভালো থাকায় এবং এ অঞ্চলের মাটি ভালো হওয়ায় আমের ফলন ভালো,রসালো,ভারি , মিষ্টি এবং খুবই সুস্বাদু তাই এই অঞ্চলের আমের দেশের বিভিন্ন এলাকায় ব্যাপক সুনাম রয়েছে। বর্তমানে জেলার এই উপজেলার বড় আকারে আমের বাজার গড়ে উঠেছে। দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে ব্যাপারীগণ বড় বড় আড়ৎ ঘর নিয়ে প্রতিদিন ট্রাকে করে শত শত গাড়ি(ট্রাক) আম দেশের বিভিন্ন এলাকায়(মোকামে) আম বাজার জাত করছে এতে কৃষকেরা আমের দামও ভালো পাচ্ছে। দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে সাপাহার আমের শহর নামে সুনাম অর্জণ করেছে। উপজেলার কলমুডাঙ্গা গ্রামের আব্দুল করিম,জবই গ্রামের আব্দুল জব্বার,শীতল গ্রামের কামরুল ইসলাম জানান, গত বছরের চেয়ে আমের বাজারে আমের ভালো দাম থাকায় আমরা অনেক খুশি এবং অনেক লাভবান হতে পারব বলে মনে করি।তবে কোন সিন্ডিকেটের মধ্যে পড়ে যেন আম বাজারে আমের দামে ধস না নামে,শেষ পর্যন্ত যেন আমের দাম ভালো থাকে সে জন্য আম বাজারে স্থানীয় প্রশাসনের সু-নজর থাকে এই দাবি জানান এবং যেহেতু আম সিজিনারি ফসল তাই আম গুলো কিছুদিন সংরক্ষণ করে রেখে দেশের বিভিন্ন স্থানে অধিক লাভে বাজার জাত করার জন্য সংরক্ষনে রাখার জন্য উপজেলায় সংরক্ষনাগার স্থাপনের দাবিও জানান। উপজেলা কৃষি অফিসার মজিবর রহমান এর সাথে কথা হলে তিনি জানান, সাপাহারে প্রায় ৫হাজার হেক্টোর জমিতে বিভিন্ন জাতের আমের চাষ হয়েছে। প্রতি হে: জমিতে ১৭মে:টন আম উৎপাদন হিসেবে সারা সাপাহারে এবারে ৮০ থেকে ৯০হাজার মে:টন আমের উৎপাদন হবে।বর্তমানে বাজারে প্রতিদিন গড়ে কয়েক হাজার মে:টন আম কেনা বেচা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন।