‘তুমি আমার স্বামী, আমি গর্বিত’

79
gb

ভারতীয় ক্রিকেটে জনপ্রিয় মুখ অলরাউন্ডার যুবরাজ সিং আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে বিদায় নিয়েছেন। বিশ্বকাপ চলাকালে যুবরাজের হঠাৎ অবসর ঘোষণা মেনে নিতে পারছেন না তার অগনিত ভক্ত। নিযুত ক্রিকেট ফ্যান মনে করছেন, যুবরাজের অবসর ঘোষণায় ভারতীয় ক্রিকেটের ক্ষতি হয়ে গেল। যুবরাজের বিদায়ে ভারতীয় ক্রিকেটের একটা অধ্যায়েরই যেন সমাপ্তি ঘটে গেল। তবে অবসরের সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছেন যুবরাজের স্ত্রী।

মুম্বাইয়ের এক হোটেলে সোমবার আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে যুবরাজ সিং বলেন, ‘২৫ বছর ধরে টানা খেলে যাচ্ছি। এখন মনে হচ্ছে ক্যারিয়ারে ইতি টানা দরকার। ক্রিকেট আমাকে অনেক কিছু দিয়েছে। যে কারণে আমি আজকের এ অবস্থানে।’

‘ভারতের হয়ে ৪০০ আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলতে পেরে সত্যিই আমি ভাগ্যবান। আমি যখন খেলাটা শুরু করি, তখন চিন্তাও করতে পারিনি এতদূর আসতে পারব’-বলেন যুবরাজ।

এ সময় আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসর নেয়ার ঘোষণা দিয়ে বেশ আবেগপ্রবণ হন যুবরাজ। অতীত স্মৃতি মনে করে বলেন, ২০১৪ সালে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ফাইনালে (ঢাকায়) শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ২১ বলে ১১ করেছিলাম। ক্যারিয়ারের সবচেয়ে জঘন্য দিন ছিল সেটা। মনে হচ্ছিল, আমার ক্যারিয়ারই শেষ!

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসরের ঘোষণা দেয়ার পর যুবরাজ সিংয়ের পাশে এসে দাঁড়িয়েছেন তার স্ত্রী হ্যাজেল কিচ। তিনি ব্রিটিশ মডেল, অভিনয় করেছেন ভারতের হিন্দি, তেলেগু আর পাঞ্জাবের ছবিতে। অভিনয়ের চেয়ে আইটেম গান দিয়ে তিনি বেশি পরিচিত। এ ছাড়া ‘কমেডি সার্কাস’, ‘ঝলক দিখলা যা ৬’ ও ‘বিগ বস ৭’ রিয়েলিটি শোতে তিনি ছিলেন প্রতিযোগী আর ‘দ্য কপিল শর্মা শো’তে অতিথি হিসেবে দেখা গেছে তাকে। তিনি স্বামীকে নতুন জীবনে অভিনন্দন জানিয়েছেন।

ইনস্টাগ্রামে স্বামীকে দ্বিতীয় ইনিংসের জন্য শুভেচ্ছা জানিয়েছেন হ্যাজেল কিচ। তিনি শুভেচ্ছা বার্তার সঙ্গে সংবাদ সম্মেলনের একটি ছবি দিয়েছেন। লিখেছেন- ‘তুমি আমার স্বামী, আমি গর্বিত। তুমি অবসর নিয়েছ, একই সঙ্গে ভারতীয় ক্রিকেটের একটি অধ্যায় শেষ হলো। এই অবসর তোমাকে হয়তো মাঠ থেকে দূরে রাখবে, কিন্তু ভক্তদের হৃদয় থেকে তুমি কখনও হারিয়ে যাবে না। তোমাকে খুব ভালোবাসি।’

আগেই জানা গেছে, আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসর নিলেও ঘরোয়া ক্রিকেট খেলবেন যুবরাজ সিং। রঞ্জি ট্রফিতে তিনি পাঞ্জাব দলের সদস্য। আইপিএলেও খেলবেন।

যুবরাজ চেয়েছিলেন ২০১৯ বিশ্বকাপ খেলেই তিনি অবসরের কথা জানিয়ে দেবেন। মানুষ যা ভাবে, তা তো সব সময় হয় না। মহেন্দ্র সিংহ ধোনি, বিরাট কোহালিরা যখন ইংল্যান্ডে নিজেদের নিংড়ে দিচ্ছেন, তখনই যুবরাজ হৃদয়বিদারক সিদ্ধান্তটা নিয়ে ফেললেন।

যুবরাজ সিংহের ক্রিকেট ক্যারিয়ার বর্ণাঢ্য। ২০১১ বিশ্বকাপ প্রায় একাই জিতিয়ে দিয়েছিলেন তিনি। তার পরেই ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে ক্রিকেট থেকে সাময়িক বিরতির পর ফিরে আসেন রাজকীয়ভাবেই। আইপিএল খেলে জাতীয় দলে ফেরার স্বপ্ন দেখছিলেন তিনি। সেই স্বপ্ন সফল হবে না বুঝতে পেরেই বিশ্বকাপের মাঝখানে অবসরের ঘোষণা দিলেন তিনি।

যুবরাজ ৪০ টেস্ট খেলে ৩৩.৯২ গড়ে করেছেন ১৯০০ রান। এর মধ্যে সেঞ্চুরি তিনটি ও সর্বোচ্চ স্কোর ১৬৯।

৩০৪ ওয়ানডে খেলে ৮৭০১ রান করেছেন যুবরাজ। এর মধ্যে সেঞ্চুরি ১৪টি, আর অর্ধশতক ৪২টি। গড় ৩৬ দশমিক ৫৫। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সর্বোচ্চ ১৫০ রানের স্কোর আছে তার ব্যাট থেকে।

টি-টোয়েন্টিতে ৫৮ ম্যাচ খেলে ১১৭৭ রান করেছেন। তার ব্যাটিং গড় ১৩৬.৩৮। সর্বোচ্চ ৭৭ রান করেছেন অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে।

দীর্ঘ ক্যারিয়ারে যুবরাজ সিং ক্যান্সারের মুখোমুখি হন। যুবরাজ একমাত্র ক্রিকেটার যিনি ক্যান্সারের চিকিৎসা শেষে সুস্থ হয়ে ফের ক্রিকেটে ফিরেন। ক্রিকেটে ফিরে ২০১৭ সাল পর্যন্ত তিনি ভারতীয় ক্রিকেট দলের নিয়মিত সদস্য ছিলেন। এর পর অনেকটা সাইড লাইনে চলে যান।

যুবরাজ সিং ভারতের হয়ে ওয়ানডে, টি-টোয়েন্টি ও টেস্ট মিলিয়ে ৪০০ আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলেছেন। ১৯ বছরের ক্যারিয়ার শুরু করেন ২০০০ সালে ওয়ানডে অভিষেকের মধ্য দিয়ে। ২০০৩ সালে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে তার টেস্ট অভিষেক হয়। আর স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে ২০০৭ সালে তার টি-টোয়েন্টি অভিষেক হয়।

gb
মন্তব্য
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More