“লজ্জা হয় অহংকারে “

208

রাহিন ইবনে ইব্রাহিম।।

আমার এক বন্ধু লন্ডনে এসে সে কারো কাজ করে নাই বলে বড়াই করে ,তার নির্বোধ জ্ঞানের ধারনা কাজ করলে মানব জীবনের অপমান হয় ,কিন্তূ লোভ দেখিয়ে কৌশলে অন্যের পকেটের টাকা হাতিয়ে নিতে মোটেও অপমানবোধ করেনা। গর্বের সাথে বলে এটা তার পেশা ,এ পেশায় তাকে কেউ বাঁধা দিলে সে খুব রাগান্বিত হয় ,উন্নত দেশে এসে এধরনের মন মানষিকতা থাকলে তার অর্থনৈতিক জীবনের উন্নতি হলেও মনের দিক থেকে সে যে ফকির এ কথা বলার অপেক্ষা রাখেনা।
আমার দীর্ঘদিনের প্রবাস জীবনে কোন ভাল জিনিস শিখতে না পারলেও ,একটা শিক্ষা লাভ করতে পেরেছি যে ,কর্মহীন জীবন অপমানের জীবন।
কাজ করলে মানুষের অপমান হয়না ,কাজ না করে ,অভাবগ্রস্থ হয়ে থাকায় লজ্জা হয়, ! লজ্জায় মাথা কাটা যায়, অসৎ উপায়ে অসত্য জীবনযাপনে। লজ্জা হয় অহংকারে ,লজ্জা হয় উন্নত দেশে থেকেও গরীব আত্মীয় স্বজনদের সাহায্য করতে না পারায়। লজ্জা হয় কাজ না করে ধার-কর্জ করে চলায় ,লজ্জা হয় ভিক্ষাভিত্তি করলে। লজ্জা হয় ঘোড়া আর কোত্তার ঘরে যেয়ে সহজ উপায়ে পয়সা রোজি করতে চাইলে।
আমার বাবা বলতেন মানুষের হাত হয় দুই প্রকারের ,প্রথমত: দাতার হাত ,দ্বিতীয়ত্বঃ গ্রহীতার হাত ,দাতার হাতকে স্বয়ং সৃষ্ট্রিকর্তা পছন্দ করেন ,জীবনে হাত পেতে কিছু নেবার আগে চিন্তা কর ,কাজ না করে কোন কিছু পাওয়ার আশা করা ঠি ক নয় !জীবনটাকে কপালের উপর নির্ভর না করে কর্মের উপর নির্ভর কর,যে কাজ করনা কেন অন্তর থেকে কর, জীবনের পরিবর্তন আসতে সময় লাগবে না।
কেন তোমার নিজেকে গরীব ভাবছো ? তোমার শরীর ভাল ,বাহুতে শক্তি আছে ,দুই পা দিয়ে হাঁটতে পারো ,দুই চোঁখ দিয়ে আল্লাহর এ দুনিয়ার সকল রং দেখতে পারো ,বিশ্বাস কর তুমি ধনীর চাইতে বড় ধনী , রাজার চাইতে মহা রাজা। যার হাত নাই , পা নাই , দুই চোখ দিয়ে মহান আল্লাহর এ ধরণীর কি সুন্দর সৃষ্টির কোন কিছু সে দেখতে পারে না , তার কথা চিন্তা কর দেখবে তোমার শরীরে শক্তি নয় মহা শক্তি এসেছে , কর্মহীন হওয়ার চাইতে যে কাজ সামনে পাও সুন্দর করে কর ,মানুষের সমালোচনাকে ভয় করিওনা ,মনে রেখে মূর্খ মানুষ কাজের সমালোচনা করে। কষ্ট করা অর্জিত টাকা ধীরে স্তিরে বুদ্বিকরে কাজে লাগাও আমি রাহিন আল্লাহর কসম করে বলি তোমার জীবন থেমে থাকতে পারেনা ,তোমার জীবনের পরিবর্তন আসন্ন।
এ বিলাতে আজ যারা ধনি তাদের জীবনী খেয়াল কর ,কেউ কেউ বাড়ী ঘর বিক্রি করে এসেছেন ,বিমানের টিকেট ধার-কর্জ করে এসেছিলেন ,পরনের ভাল কাপড় ছিলনা ,
এয়ারপোর্টে আসার টাকা ছিলনা , শিক্ষা ছিলনা ,ভাষা ছিলনা ,ইংরেজি বলতে পারতেন না , শুধু ইশারায় কাজ করতেন , কাজ-কাজ-কাজ ছাড়া কিছুই বুঝতেন না , তারাই আজকের বড় বড় ধনী ,শুধু ধনী বললে ভুল হবে তারাই সম্মানি , তাদের জন্যে আজ আমাদের এ সুন্দর জগত।
কাপড়ের ময়লা যেভাবে ধুইতে হয় , থালা বাসন যে ভাবে পরিষ্কার না করলে চিক-চিক করেনা , তেমনি নিত্য দিন ভাল কাজ আর সৃষ্টিকর্তার আদেশ না মানলে মন পরিষ্কার হয় না। অসৎ উপায়ে সম্মান উপার্জন করা যেভাবে ঠিক নয় ,তেমনি ভাল বংশে আত্মীয়তা করে সম্মানীত হওয়ার চাইতে ভাল কাজ করে সম্মানিত হওয়া অধিক উত্তম।

মন্তব্য
Loading...