যশোরে শিশু হত্যাকারীর বাড়িতে আগুন

170
gb

ইয়ানূর রহমান ||

যশোরের পল্লীতে শিশু হত্যাকারীর বাড়িতে আগুন দিয়েছে বিক্ষুব্ধ জনতা। এর আগে গত রাতে পুলিশের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে নিহত হয় বিল্লাল।

উল্লেখ্য, যশোরের মণিরামপুরে মুক্তিপণের দাবিতে শিশুকে অপহরণের পর হত্যার ঘটনা ঘটে। এহত্যাকান্ডের অভিযুক্ত ছিল বিল্লাল।

বুধবার সন্ধ্যার দিকে ক্ষুব্ধ এলাকাবাসী বিল্লালের বাড়িতে আগুন দেয়। খবর পেয়ে মণিরামপুর ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা ঘটনাস্থলে গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনেন। ততক্ষণে আগুনে বাড়িটির তিনটি বসতঘর, আসবাবপত্র, একটি ভ্যানসহ অন্যান্য সামগ্রী পুড়ে ছাই হয়ে যায়। খবর পেয়ে মণিরামপুর থানার পরিদর্শক সহিদুল ইসলাম ও পরিদর্শক (তদন্ত) এসএম এনামুল হক ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন।

এদিকে খুনের শিকার শিশু শিক্ষার্থী তারিফ হোসেনের লাশ ময়নাতদন্ত শেষে বুধবার সন্ধ্যার আগে বাড়িতে পৌঁছেছে। এই ঘটনায় অজ্ঞাতনামাদের আসামি করে থানায় মামলা করেছেন শিশুটির বাবা সিদ্দিকুর রহমান।

মণিরামপুর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) এনামুল হক বলেন, ময়নাতদন্ত শেষে বিকেলে শিশু তারিফের লাশ বাড়িতে পৌঁছালে বিক্ষুব্ধ জনতা অপহরণকারী বিল্লালের বাড়িতে আগুন দেয়। খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। শিশু তারিফ হত্যার ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, পাঁচ লাখ টাকা মুক্তিপণের দাবিতে গত রোববার উপজেলার ফেদাইপুর গ্রামের তৃতীয় শ্রেণিপড়ুয়া তারিফকে অপহরণের পর হত্যা করে বিল্লাল। পরে মঙ্গলবার রাতে পুলিশ বিল্লালকে আটক করে লাশ উদ্ধারের অভিযানে গেলে কথিত বন্দুকযুদ্ধে নিহত হয় সে। এই ঘটনার পর বিল্লালের পরিবার বাড়ি ছেড়ে পালিয়ে যায়।

এই ওয়েবসাইটটি আপনার অভিজ্ঞতা উন্নত করতে কুকি ব্যবহার করে। আমরা ধরে নিচ্ছি যে আপনি এটির সাথে ঠিক আছেন তবে আপনি চাইলে অপ্ট-আউট করতে পারেন Accept আরও পড়ুন