নৌকা প্রতীকে ভোট দিয়ে বাবুকে নির্বাচিত করুন; পাইকগাছা-কয়রা গড়ার দায়িত্ব আমি নিলাম…. শেখ হেলাল এমপি

192
gb

 মোঃ আব্দুল আজিজ, পাইকগাছা, খুলনা ঃ বঙ্গবন্ধুর ভ্রাতুষ পুত্র শেখ হেলাল উদ্দীন এমপি বলেছেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু স্বপ্ন দেখেছিলেন একটি সুখী, সমৃদ্ধিশালী বাংলাদেশের। তিনি স্বপ্ন দেখেছিলেন এ দেশের মানুষ কখনো না খেয়ে মারা যাবে না। দেশের প্রতিটি মানুষ উন্নত জীবন-যাপন করবে। তিনি বলেন, ঘাতকরা বঙ্গবন্ধুকে তার স্বপ্ন পূরণ করতে দেন নি। ঘাতকরা শুধু বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করে ক্ষ্যান্ত হয়নি। তারা বঙ্গবন্ধুর সাথে আমার পিতা ও ছোট ভাই রাসেল সহ পরিবারের বেশিরভাগ সদস্যকে হত্যা করেছিল। ঘাতকরা সে দিন বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করতে পারলেও তার যে স্বপ্ন ছিল সোনার বাংলা গড়ার, সে স্বপ্নকে মারতে পারেনি। যে স্বপ্ন পূরণের জন্য বঙ্গবন্ধুর যোগ্য উত্তরসূরী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিরলস চেষ্টা করে যাচ্ছেন। শেখ হাসিনার যোগ্য নেতৃত্বে দেশ এগিয়ে যাচ্ছে উলে­খ করে শেখ হেলাল এমপি আরো বলেন, বাংলাদেশ এখন বিশ্বের রোল মডেল। ক্ষুধা, দারিদ্র মুক্ত দেশ বিনির্মানের জন্য বিশ্বের অনেক দেশ এখন বাংলাদেশকে অনুসরণ করে। শেখ হাসিনাকে পুনরায় প্রধানমন্ত্রী দেখতে চাই উলে­খ করে বিশ্বের অনেক নেতা ইতোমধ্যে অভিমত ব্যক্ত করেছেন উলে­খ করে তিনি এলাকাবাসীর উদ্দেশ্যে বলেন, উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখার জন্য আপনারা আক্তারুজ্জামান বাবু’র নৌকা প্রতীকে ভোট দিন। অত্র এলাকার ঝুঁকিপূর্ণ সকল বেড়িবাঁধ সংস্কার ও সুপেয় পানি সমস্যার সমাধান করা হবে। নির্বাচনের পর প্রধানমন্ত্রীকে পাইকগাছায় আনার এবং নির্বাচনী এলাকা পাইকগাছা-কয়রা গড়ার সকল দায়িত্ব আমি নিলাম। আপনারা নৌকা প্রতীকে ভোট দিয়ে বাবুকে নির্বাচিত করুন। তিনি সোমবার বিকালে নির্বাচনী এলাকা খুলনা-৬ আসনের পাইকগাছা সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় ফুটবল মাঠে এমপি প্রার্থী আক্তারুজ্জামান বাবু’র নৌকা প্রতীকের নির্বাচনী জনসভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন। উপজেলা আওয়ামী লীগের আহবায়ক গাজী মোহাম্মদ আলীর সভাপতিত্বে ও সদস্য সচিব মোঃ রশীদুজ্জামান এবং সাবেক ছাত্রনেতা শেখ আবু হানিফের পরিচালনায় সভায় বক্তব্য রাখেন, খুলনা জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান শেখ হারুনুর রশীদ, সংসদ সদস্য আলহাজ্ব এ্যাডঃ শেখ মোঃ নূরুল হক, সাবেক এমপি এ্যাডঃ সোহরাব আলী সানা, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এ্যাডঃ সুজিত অধিকারী, সিনিয়র সাংগঠনিক সম্পাদক কামরুজ্জামান জামাল, মহানগর যুবলীগের আহবায়ক এ্যাডঃ আনিছুর রহমান পপলু, জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি হালিমা ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক জাহানারা শহীদ, ইঞ্জিঃ প্রেম কুমার মন্ডল, জেলা আওয়ামী লীগনেতা এ্যাডঃ ফরিদ আহম্মেদ, ডাঃ শেখ মোহাঃ শহীদ উল­াহ, আলহাজ্ব শেখ মনিরুল ইসলাম, জিএম মহাসিন রেজা, ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক সভাপতি বদিউজ্জামান সোহাগ, পৌর মেয়র সেলিম জাহাঙ্গীর, জেলা পরিষদ সদস্য শেখ কামরুল হাসান টিপু, আব্দুল মান্নান গাজী, নাহার আক্তার, কেন্দ্রীয় জাপানেতা মোস্তফা কামাল জাহাঙ্গীর, সাবেক ছাত্রনেতা অসিত বরণ বিশ্বাস, পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি সমীরণ সাধু, ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল মজিদ গোলদার, রিপন কুমার মন্ডল, রুহুল আমিন বিশ্বাস, কেএম আরিফুজ্জামান তুহিন, কওছার আলী জোয়াদ্দার, বিজয় কুমার সরদার, ছাত্তার পাড়, নুরুল ইসলাম কোম্পানি, শেখ আনিছুর রহমান মুক্ত, এসএম শামছুর রহমান, প্রভাষক ময়নুল ইসলাম, দিঘলিয়ার উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান শামছুন্নাহার, জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের যুব সম্পাদিকা মুক্তা বেগম, সাবেক কেন্দ্রীয় ছাত্রনেতা ফরহাদুজ্জামান তুষার, কেন্দ্রীয় ছাত্রনেতা হাফিজুর রহমান হাফিজ, জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ইমরান হোসেন, মৃণাল কান্তি বাছাড়, এসএম মসিয়ার রহমান, তানজিম মোস্তাফিজ বাচ্চু ও কেষ্টপদ মন্ডল।