ব্রিটিশ বাংলাদেশী সেলিব্রেটি শেফ টমি মিয়া কর্তৃক ইন্ডিয়ান ইন্টারন্যাশনাল শেফ অব দ্যা ইয়ার প্রতিযোগিতার ২৮তম এওয়ার্ড বিতরনী অনুষ্ঠান সম্পন্ন

264
gb

জিবি নিউজ 24 ডেস্ক//

ব্রিটিশ বাংলাদেশী সেলিব্রেটি শেফ টমি মিয়া কর্তৃক ১৯৯১ সালে চালু হওয়া ইন্ডিয়ান ইন্টারন্যাশনাল শেফ অব দ্যা ইয়ার প্রতিযোগিতার ২৮তম এওয়ার্ড বিতরনী অনুষ্ঠান সম্পন্ন হয়েছে গত ১২ নভেম্বর সোমবার। অনুষ্ঠানে বাংলাদেশী রেস্টুরেন্ট ব্যবসায়ী ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন বিভিন্ন কমিউনিটির নেতৃবৃন্দ। এওয়ার্ড অনুষ্ঠানে বিভিন্ন রিজিওয়নের বেস্ট রেস্টুরেন্ট এওয়ার্ড ছাড়াও বেস্ট শেফ অব দ্যা ইয়ার একজনকে এওয়ার্ড প্রদান করা হয়।
ইংলিশ ধারাবাহিক নাটক স্ট্যান্ডার এর জনপ্রিয় অভিনেতা নিতিন গ্যান্ট্রা ও নিশা পারমার এর যৌথ পরিচালনায় অনুষ্ঠানের শুরুতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন সেলিব্রেটি শেফ টমি মিয়া ও বিচারক প্যানেলের প্রধান কিথ বেস্ট। অনুষ্ঠানে বাঁচাইকৃত সেরা ৬ শেফ থেকে বেস্ট শেফ অব দ্যা ইয়ার এওয়ার্ড লাভ করেন ভারতীয় শেফ লতা টেন্ডেন্ট। বাকী ৫ শেফদের মধ্যে ১ জন পাকিস্থানী ও ৪ জন বাংলাদেশী ছিলেন।
যে সকল রেস্টুরেন্ট এওয়ার্ড পেয়েছে সেগুলি হচ্ছে স্কটল্যান্ড থেকে বেস্ট রেষ্টুরেন্টে এওয়ার্ড লাভ করে নাজমা তান্দুরী। লন্ডন থেকে বেস্ট রেষ্টুরেন্টে এওয়ার্ড লাভ করে ব্রিকলেনের ইস্টার্ন আই রেস্টুরেন্ট। স্টাফোর্ডশায়ার থেকে বেস্টুরেন্ট এওয়ার্ড লাভ করে দ্যা লজ রেস্টুরেন্টে। শ্রপশায়ার থেকে বেস্ট রেস্টুরেন্ট এওয়ার্ড লাভ করে সীপনাল রেস্টুরেন্টে।

অক্সফোর্ডশায়ার থেকে বেস্ট রেস্টুরেন্ট এওয়ার্ড লাভ করে স্পাইস লাউঞ্জ। বাকিংহাম শায়ার থেকে বেস্ট রেস্টুরেন্ট এওয়ার্ড লাভ করে দিনাজপুর রেস্টুরেন্ট। হার্টফোর্ড শায়ার থেকে বেস্ট রেস্টুরেন্ট এওয়ার্ড লাভ করে অলিভ লাইমস। সারে থেকে বেস্ট রেস্টুরেন্ট এওয়ার্ড লাভ করে গিলফোর্ড স্পাইস।
লাইফ টাইম এচিভমেন্ট এওয়ার্ড লাভ করে তান্দুরী রয়্যাল রেস্টুরেন্ট। মার্কেটিং এওয়ার্ড লাভ করে সিনেমন লাউঞ্জ। নিউ কনসেপ্ট এওয়ার্ড লাভ করে টিফিন টু গো। টেইকওয়ে অব দ্যা ইয়ার এওয়ার্ড লাভ করে দ্যা রুবী রেস্টুরেন্ট। নিউ কামার অব দ্যা ইয়ার এওয়ার্ড লাভ করে চ্যুখা রেস্টুরেন্ট। ইউকে রেস্টুরেন্ট অব দ্যা ইয়ার এওয়ার্ড লাভ করে সাউথাম্পটনের কুটি‘স রেস্টুরেন্ট।

বিজয়ীদের মধ্যে অতিথি হিসেবে ক্রেস্ট তুলেদেন চ্যানেল এস এর এমডি তাজ চৌধুরী, ঢাকা রিজেন্সির মুসলেহ আহমদ, শেফ অনলাইনের মুনিম সালিক, সাবেক মেয়র দরস উল্লাহ, হ্যামলেটস ট্রেনিংয়ের জামাল আহমদ, বিচারকদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, নাইজাল টেরি, সাঈদ শেখ, স্টিভ গমেজ, পেট কার এসপিপি।