মুক্তিযোদ্ধার প্রজন্ম’র বৃক্ষরোপন কর্মসূচি উদ্বোধন বৃক্ষরোপনকে সামাজিক আন্দোলনে রূপ দিতে হবে – ইয়াহইয়া চৌধুরী এম.পি

178
gb

৭১ এর বীর মুক্তিযোদ্ধার গর্বিত সন্তানদের সংগঠন মুক্তিযোদ্ধার প্রজন্ম’র দেড়যুগ (১৮ বছর) পূর্তি উপলক্ষে ১৮ দিনের অনুষ্ঠানমালার অংশ হিসেবে বৃক্ষরোপন কর্মসূচি পালিত হয়েছে। সংগঠনের সভাপতি গীতিকার কবি নাজমুল ইসলাম মকবুল’র সভাপতিত্বে বৃক্ষরোপন পূর্ববর্তি আলোচনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন সিলেট-২ বিশ্বনাথ বালাগঞ্জ ওসমানী নগর আসনের এম.পি এবং বন ও পরিবেশ সংক্রান্ত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য ইয়াহইয়া চৌধুরী এহিয়া।

বক্তব্যে তিনি বলেন, পরিবেশের উন্নয়নে বৃক্ষরোপনের বিকল্প নেই। আমরা প্রত্যেকে বছরে অন্তত একটি করে গাছ লাগালে নির্মল বাতাস ও অক্সিজেন পেতে সমস্যা হওয়ার কথা নয়। তাই বৃক্ষরোপনকে সামাজিক আন্দোলনে রূপ দিতে হবে।

মুক্তিযোদ্ধার প্রজন্ম’র সাংগঠনিক সম্পাদক নাজমুল হোসেনের পরিচালনায় শনিবার বিশ্বনাথের অলংকারী পৌদনাপুর হাফিজিয়া দাখিল মাদরাসা প্রাঙ্গনে আয়োজিত অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, কামাল বাজার ফাযিল মাদরাসার প্রিন্সিপাল মাওলানা মুফতি এ কে এম মনোওর আলী, ৩নং অলংকারী ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান নাজমুল ইসলাম রুহেল, ইসহাক একাডেমীর প্রতিষ্ঠাতা ও পরিচালনা কমিটির সভাপতি মিজানুর রহমান মোজাহিদ, রামধানা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি সালেহ আহমদ তোতা, যুক্তরাজ্য প্রবাসী সমাজসেবী ও শিক্ষানুরাগী আমিনুর মিয়া, মাদরাসার সুপার মাওলানা মোঃ আজিজুর রহমান।

মাওলানা মুফতি এ কে এম মনোওর আলী বলেন, পরিবেশ বিনষ্ট করে এমন বিদেশী গাছগুলোকে পরিহার করতে হবে। বেশি করে ফলজ গাছ লাগাতে হবে।

চেয়ারম্যান নাজমুল ইসলাম রুহেল বলেন, মুক্তিযোদ্ধার প্রজন্ম’র প্রশংসনীয় সব কাজ আমাদের নজর কেড়েছে। এসব কার্যক্রমে আমাদের সর্বাত্ত¡ক সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে।

সভাপতির বক্তব্যে কবি নাজমুল ইসলাম মকবুল বলেন, আমাদের প্রত্যেকেই বেশি করে ফলের গাছ লাগাতে হবে। পরিবেশ বিনষ্ট করে এমন বিদেশী গাছ লাগানো বন্ধ করতে সকলকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে।

এলাকাবাসীর পক্ষ থেকে বক্তব্য রাখেন মোঃ লিয়াকত আলী, মাওলানা দিলওয়ার হোসেন, মাওলানা আমিনুল ইসলাম, ফজলুর রহমান, ছবুর আহমদ, এনাম আহমদ।

শুরুতে পবিত্র কোরআন তিলাওয়াত করেন সুমন আহমদ।

আলোচনা অনুষ্ঠান শেষে মাদরাসা প্রাঙ্গণে ফলজ বৃক্ষের চারা রোপন করেন অতিথিবৃন্দ।