লন্ডনে ডক্টর জফির সেতুকে সংবর্ধনা দিয়েছে এমসি আইটিসি ইউকে

274
gb

জিবি নিউজ 24 ডেস্ক//

সিলেট এমসি কলেজের সাবেক ও শাহ জালাল বিজ্ঞান প্রযুক্তি বিশ্ববিদালয়ের  বাংলা বিভাগের অধ্যাপক, সুলেখক ডক্টর জফির উদ্দিন সেতুর সংক্ষিপ্ত সফরে যুক্তরাজ্য আগমন উপলক্ষে এমসি আইটিসিইউকের উদ্দোগে তাঁরি সম্মানে এক প্রীতিসভা ও ক্লাবের ইদ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠিত হয় ।সোমবার ( ২৫ জুন ২০১৮ ) পূর্ব লন্ডনের স্টেপনিগ্নিনে বিন এন্ড লিফ কাফেতে এমসি ইন্টারন্যাশনাল ট্যুরিস্ট ক্লাব ইউকের প্রেসিডেন্ট তাজুল ইসলামের সভাপতিত্বে ও জয়েন-সেক্রেটারি ইমরান মাহমুদের পরিচালনায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন – ডক্টর রোয়াব উদ্দিন ; বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন- সৈয়দপুর আদর্শ কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ ও এমসি আইটিসির প্রতিষ্ঠাতা সদস্য মুহাম্মদ শাহেদ রাহমান ,জগন্নাথপুর ডিগ্রী কলেজের সাবেক অধ্যাপক ও এমসি আইটিসির প্রতিষ্ঠাতা সদস্য মো. সাজিদুর রহমান, সিলেট ব্লু বার্ড স্কুল এন্ড কলেজের প্রাণি বিদ্যা বিভাগের ( কলেজ শাখার ) প্রভাষক সাহেদা শিমুল।প্রধান অতিথির বক্তব্য – ডক্টর রোয়াব উদ্দিন – এমসি আইটিসি ইউকের প্রসংশা করে বলেন, বাংলাদেশের একজন গবেষক, শক্তিমান কবি, মাতৃভাষার শিক্ষক ডক্টর জফির উদ্দিন সেতুকে এই  বিলেতের মাটিতে তথা যুক্তরাজ্যের লন্ডনে সম্মান জানানো হচ্ছে— এ ক্লাবের মাধমে ; যে ক্লাবের শিকড় সিলেটের এমসি কলেজ ।  আমি আনন্দিত , আমি ঋণী আমাকে এ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে আমন্ত্রণ জানানোর জন্য । এখানে এসে আমার মনে হচ্ছে— আমি এখন বাংলাদেশের এমসি কলেজের ক্যাম্পাসে আছি। এমসি কলেজের স্মৃতির সেতার এখনো আমাদের অন্তরে নাড়া দেয় ।সংবর্ধিত অতিথি সম্পর্কে তিনি আরো বলেন- ড. জফির সেতু হলেন জ্ঞানের স্ফুরণ, বিকিরণ । তিনি যে জ্ঞান শিক্ষা দিচ্ছেন তা সমাজকে আলোকিত করছেন । আমি তাঁকে অন্তর থেকে শ্রদ্ধা জানাই, স্যালুউট জানাই একজন মানুষ গড়ার কারিগরকে  ।

সংবর্ধনার জবাবে আবেগে আপ্লুত হয়ে সংবর্ধিত অতিথি ডক্টর জফির সেতু বলেন – লন্ডনে এমসি আইটিসি ইউকের আজকের এ প্রীতিসভা ও ক্লাবের ইদ পুনর্মিলনীতে  উপস্থিত হয়ে  সম্মানিত হয়ে আমি বিলেতে একখন্ড বাংলাদেশকে দেখতে পাচ্ছি । একঝাঁক মেধাবী মুখকে দেখতে পাচ্ছি , তাদের কথা ও স্মৃতি আজীবন আমার অন্তরে গাঁথা থাকবে । তিনি বলেন- প্রবাসে আজকের এই মেধাবী তরুণ বিলেতে তাদের মেধা যৌবন, তারুন্য বিলিয়ে দিচ্ছে সমাজ রাষ্ট্রের উন্নয়নে । তাদের এ মেধা যদি দেশের কাজে লাগানো যেতু বাংলাদেশ আরো এগিয়ে যেতে পারতো , দেশের ও এ সরকারের ভিশন বাস্তবায়নে সহায়ক হতো  । আমরা তাদেরকে দেশে রাখতে পারিনি এটিও আমার আমাদের ব্যর্থতা , রাষ্ট্রের ব্যর্থতা । এই বিলেতে যারা আছেন, শ্রম দিচ্ছেন তাদের অন্তরে আমি এক একটি বাংলাদেশ দেখতে পাচ্ছি  ।

ড. জফির সেতু এমসি কলেজের স্মৃতিচারণ করে আরো বলেন- এমসি কলেজ আমাদের স্বপ্নের জায়গা, ভালোবাসার জায়গা । তিনি এমসি কলেজের প্রতিষ্ঠার ইতিকথা ও (পূর্বে প্রস্তাবিত)  সিলেট বিশ্ববিদ্যালয় গঠন নিয়ে নানা নাটকের ইতিকথা এ সভায় তুলে ধরেন । উক্ত প্রীতিসভায় শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন এমসি আইটিসি ইউকের সেক্রেটারি আজমল হোসেন ইমরান ।

অনানের মধ্যে বক্তব্য রাখেন  সিলেট  এমসি কলেজ রোটারেক্ট ক্লাবের সাবেক সেক্রেটারি আব্দুস সোবহান, জাহাঙ্গীর হোসেন ;  ট্যুরিস্ট  ক্লাব অব এমসি কলেজ সিলেট এর  লাইফ মেম্বার  কবির আহমদ , এমসি আইটিসি ইউকে র সদস্য মাহমুদ রেজা , বাবুল আহমদ ,   আব্দুল মালেক । বক্তব্য রাখেন আব্দুল হামিদ খান সুমেদ , মো. আব্দুল জলিল,  আব্দুর রহমান চৌধুরী, মুরাদ চৌধুরী প্রমুখ ।

gb
মন্তব্য
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More