বেলজিয়ামে বাংলা নববর্ষ উদযাপন এবং বৈশাখী মেলা অনুষ্ঠিত    

491
gb

 অ্যান্টওয়ারপেন, ১৪ এপ্রিল ||

বেলজিয়াম প্রবাসী বাংলাদেশীদের সংগঠন বেলজিয়াম-বাংলাদেশ উইমেন এ্যান্ড চাইল্ড কেয়ার এর উদ্যোগে শনিবার বেলজিয়ামের অ্যান্টওয়ারপেন নগরীতে বাংলা নববর্ষ ১৪২৫ উপলক্ষ্যে অনুষ্ঠিত হয় নববর্ষ উৎসব ও বৈশাখী  মেলা।

উৎসবে হাজির হন বেলজিয়াম, নেদারল্যান্ডস, জার্মানি, ইটালি ও ফ্রান্সের বিভিন্ন নগরীতে বসবাসকারী শতাধিক বাঙালি এবং ইউরোপীয় অতিথি। অতিথিরা বৈশাখী মেলায় ঐতিহ্যবাহী বাঙ্গালি খাবার ঝালমুড়ি, চটপটি, হালিম, পান্তা-ইলিশ, মুখরোচক ভর্তা, বিরিয়ানি, বোরহানি, বাহারি মিষ্টি উপভোগ করেন।

বাংলা নববর্ষের প্রেক্ষাপট ও বর্তমান প্রেক্ষিত এবং বাঙালি জাতির উন্নয়নের বিভিন্ন দিক তুলে ধরে বক্তব্য রাখেন বেলজিয়ামে নিযুক্ত বাংলাদেশের মান্যবর রাষ্ট্রদূত মোঃ সাহাদৎ হোসেন, সংগঠনের সভাপতি ও বিশিষ্ট সামাজিক ব্যক্তিত্ব শায়লা শারমিন, স্থানীয় কমিউনিটি নেতা আরফান সাবের, বেলজিয়ামের স্থানীয় জনপ্রতিনিধি পিটার মারটিন্স এবং ক্যারোলিন বাস্টিয়েন্স এবং বেলজিয়ামে বাংলাদেশ দূতাবাসের কাউন্সেলর আরিফুর রহমান।  

অনুষ্ঠানে বক্তাগণ বলেন, বাঙ্গালির সার্বজনীন উৎসব বাংলা বর্ষবরণ। ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে বিশ্বের সকল প্রান্তে বসবাসকারী বাংলাদেশিরা আজকের দিনটিকে মহাধুমধাম করে উদযাপন করছে। এই উৎসবের মাধ্যমে একদিকে আমাদের নতুন প্রজন্মের কাছে নিজেদের সংস্কৃতি সঠিকভাবে তুলে ধরার প্রয়াস চালাতে হবে। অন্যদিকে বৈশাখী উৎসবের শিক্ষা যেন আমাদের মধ্যে সব ভেদাভেদ দূর করে ভ্রাতৃত্ব ও ঐক্যের বন্ধনে আবদ্ধ করে – সেটিই আমাদের প্রত্যাশা। সবাইকে নববর্ষের শুভেচ্ছা জানিয়ে সংগঠনের জন্য আশীর্বাদ ও সহযোগিতা কামনা করেন এর আয়োজকরা।

বক্তাগণ বাংলাদেশের চলমান উন্নয়নের ধারাকে অব্যাহত রাখতে দেশে ও প্রবাসে সবাইকে ঐক্যবদ্ধভাবে বিভিন্ন অঙ্গনে সক্রিয় ভূমিকা রাখার আহ্বান জানান। আলোচনা পর্ব ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান উপস্থাপন করেন শিমু নাহার, আয়েশা ইকবাল সরকার, আবু জাফর এবং রাজীব আহসান।  সাংস্কৃতিক পর্বে জাতীয় সঙ্গীত এবং বৈশাখের গান পরিবেশন করেন সংগঠনের শিল্পীবৃন্দ। অনুষ্ঠানের বিশেষ আকর্ষণ ছিল জার্মানি থেকে আসা জনপ্রিয় শিল্পী আব্দুল মুনিমের গান, যুক্তরাজ্য থেকে আসা শিল্পী লাবনী বড়ুয়া এবং ইটালি থেকে আসা মুরাদ খান ও বাবু বাঙ্গালের গান। কবিতা আবৃত্তি করেন মামুন খান, কবি ও চিত্রকর মীর জাবেদা ইয়াসমিন এবং সাংবাদিক কবি হোসাইন আব্দুল হাই।

এছাড়াও গান, ছড়া ও নৃত্য পরিবেশন করেন পৃথা, রায়না পারভেজ, হিমামনি, সুমাইয়া, ওমি রেজা, কোহিনুর আখতার, মোঃ ইকরাম শিকদার, এনি, শারমিন রিমু, রুমা, শিমু নাহার, আয়েশা ইকবাল সরকার, আবু জাফর মহম্মদ, জাহিদুল ইসলাম ও স্বর্ণা।