আমিরাতে সংহতির আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন

221
gb

লুৎফুর রহমান||

সংযুক্ত আরব আমিরাতে সংহতি সাহিত্য পরিষদ আরব আমিরাত শাখার উদ্যোগে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত হয়েছে। শুক্রবার সকালে শারজাহের তারাঘরে অস্থায়ি শহিদ মিনারে পুষ্পার্ঘ্য অর্পন করা হয়েছে।

এ সময় প্রবাসে বেড়ে ওঠা বাঙালি প্রজন্মের সাথে সাথে ভিনদেশি পরিবারও এতে অংশ নেয়। বাংলাদেশী বাচ্চাদের পাশাপাশি ভিনদেশী বাচ্চাদেরকে একুশের ইতিহাস বলা হয় তখন।

দৃষ্টিনন্দন অস্থায়ি শহিদ মিনার বানিয়েছেন প্রবাসে বেড়ে ওঠা বাংলাদেশী দ্বিতীয় প্রজন্ম এবং সংহতি সাহিত্য পরিষদ আরব আমিরাত শাখার সাংস্কৃতিক সম্পাদিকা তিশা সেন।

অনুষ্ঠানে বাচ্চাদের জন্য শহিদ মিনার অংকন ও সুন্দর হাতের লেখার আয়োজন করা হয়। পরে বিজয়ীদের হাতে সনদপত্র তুলে দেয়া হয়।

দ্বিতীয় পর্বে একুশের গান কবিতায় অংশ নেন প্রবাসী শিল্পীরা। আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো গানটি সমবেত কণ্ঠে মায়াময় পরিবেশ এনে দেয় এ সময়।

সংগঠনের সভাপতি অবসরপ্রাপ্ত ল্যাফটেন্যান্ট গুলশান আরার সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক ছড়াকার লুৎফুর রহমানের পরিচালনায় এতে অংশ নেন সাইদা দিবা, আহমেদ ইফতিখার পাবেল, কাইসার হামিদ, তিশা সেন, আরিফা নুশরাত সহ আরো অনেকে।

এ সময় বক্তারা বলেন, প্রবাসে বেড়ে ওঠা প্রজন্মকে বাংলা ভাষা ও সংস্কৃতরি সাথে পরিচয় ঘটাতে পরিবার সবচে বড় ভূমিকা রাখবে। সেই সাথে একুশে ফেব্রুয়ারির গৌরবময় ইতিহাস ভিনদেশীদের কাছে তুলে ধরতে যে যার অবস্থান থেকে কাজ করতে হবে।

অনুষ্ঠানে অবাঙালি বাচ্চারাও শহিদ মিনার অংকন করে। এ সময় তাদের মা বাবারাও উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানের সার্বিক তত্তাবধানে ছিলেন সংহতি সাহিত্য পরিষদ আরব আমিরাত শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক সঞ্জয় ঘোষ, তথ্য সম্পাদক আমিনুল হক, জাবেদ আহমদ সহ আরো অনেকে।