সাদুল্লাপুর পাইলট স্কুলের শতবর্ষ পূর্তি উৎসব পালিত

215
gb

ছাদেকুল ইসলাম রুবেল,গাইবান্ধা

শতবর্ষে সাদুল্লাপুর বহুমূখীপাইলট মডেল উচ্চ বিদ্যালয়। ‘শতাব্দীর আহবানে এসো মিলি প্রাণেরটানে’ এই শ্লোগানে প্রাচীন বিদ্যাপীঠের শতবর্ষ পূর্তি উৎসব উদযাপন হয়।রবিবার গৌরবময় শতবর্ষের বর্ণিল অনুষ্ঠানকে ঘিরে যেন সাজসাজ রবউঠেছে উপজেলা জুড়েই। তাইতো উৎসবের আমেজ এখন সবার প্রাণদোলছে আনন্দে। মাঠের মধ্যে নির্মাণ করা হয়েছে বিশাল প্যান্ডেল।
চারদিকে ব্যানার, ফেস্টুন আর প্রতিষ্ঠানের প্রাঙ্গণজুড়ে ঝলমলেআলোকসজ্জা জানান দেয় জমকালো উৎসব আবহের কথা।দেশ-বিদেশে ছড়িয়ে থাকা বিদ্যাপীঠের সাবেক শিক্ষার্থী ও শিক্ষকদেরমহামিলন মোহনায় পরিনত হয়েছে স্কুল প্রাঙ্গণ। পিছিয়ে নেইবিদ্যাপীঠের বর্তমান শিক্ষার্থী-শিক্ষকরাও। সকাল থেকে নবীন-প্রবীণশিক্ষক-শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের পদচারণায় মুখরিত হয়ে ওঠে স্কুল
প্রাঙ্গণ।দিনব্যাপী বর্ণাঢ্য উৎসব আয়োজন, মিলন মেলা, স্মৃতিচারণ,আলোচনা সভা, খাওয়া-দাওয়া, হৈ-হুল্লোর আর আনন্দ।১৯১৮ সালে গাইবান্ধার জেলার সাদুল্যাপুর উপজেলা শহরের প্রাণকেন্দ্রেপ্রতিষ্ঠিত হয় বিদ্যালয়টি। আলোকিত মানুষ তৈরীর প্রাণকোষবিদ্যালয়টি। প্রতিষ্ঠার পর থেকে অদ্যাবধি শত বছরের পথের বাঁকে বাঁকেস্বগৌরবে জ্ঞানের আলো বিকিরণ করে যাচ্ছে। একশো বছরে অসংখ্যজ্ঞানী-গুণী, এমপি, শিক্ষক-সাংবাদিক, কবি-সাহিত্যিক, শিল্পী, ডাক্তার-ইঞ্জিনিয়ার, বিজ্ঞানী, ক্রীড়াবিদ, মুক্তিযোদ্ধা, ভাষা সৈনিক ওরাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব সম্পন্ন ছাড়া বিভিন্ন ক্ষেত্রে অনেক খ্যাতিমানদেরজন্ম দিয়েছে উক্ত বিদ্যালয়টি।বর্ষপূর্তির অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ও বক্তব্যরাখেন সাংস্কৃতিক বিষয়ক মন্ত্রী আসাদুজ্জামান নুর।প্রফেসর মো. আব্দুল কাউয়ুমের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে
বক্তব্য রাখেন সংসদ সদস্য ডা. মো. ইউনুস আলী সরকার এমপি, মাননীয়প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের মহা-পরিচালক (প্রশাসন) কবির বিন আনোয়ার ওবিশিষ্ট অভিনেতা, ঢাকা মেডিকেল কলেজের নিউক্লিয়ার মেডিসিনবিভাগের অধ্যাপক ডা. এজাজুল ইসলাম গাইবান্ধা জেলা বিএনপিরসভাপতি ও শহীদ জীয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজের সাবেক পরিচালকঅধ্যাপক ডাঃ মইনুল হাসান সাদিক।শতবর্ষ উদযাপন প্রচার উপ-কমিটির সদস্য সচিব ও সাদুল্যাপুরপ্রেসক্লাবের সভাপতি মোস্তাফিজার রহমান ফারুক বলেন,‘যথাযোগ্য মর্যাদায় সুষ্ঠ ও আড়ম্বরপূর্ণ পরিবেশে শতবর্ষ পূতিউৎসব উদযাপনের লক্ষ্যে ইতোমধ্যে সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করার মাধ্যমেকাংখিত দিনটি আজ উৎযাপিত হলো।অধ্যাপক ডাঃ মইনুল হাসান সাদিক উৎসবে স্থানীয় প্রশাসন,রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, জনপ্রতিনিধি, সূধি মহল ও
গণমাধ্যমকর্মীরা এসময় উপস্থিত হওয়ায় অনুষ্ঠান সফল ও সার্থক করারজন্য আযোাজক কমিটির পক্ষ থেকে সংশ্লিষ্ট সকলকে ধন্যবাদ জানানতিনি।শতবর্ষের সাদুল্লাপুর বহমূখী পাইলট মডেল উচ্চ বিদ্যালয় আলোর দিশারীহিসেবে পরিচিত হলেও সরকারী করণ হয়নি আজও। বিদ্যাপীঠটি সরকারীকরণের দাবিতে শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও এলাকাবাসী বিক্ষোভ-মানববন্ধন,স্বরকলীপি প্রদানসহ আন্দোলন কর্মসূচি পালন করেও তা বাস্তবায়নহচ্ছেনা।এদিকে বর্ষপূর্তি অনুষ্ঠানকে ঘিরে চার দফাদাবী আদায়ে এদিনঅনুষ্ঠান স্থলে গণস্বাক্ষর কর্মসূচীতে অংশ নিয়ে কর্মসূচী পালন করেউপজেলার সর্বস্তরের মানুষ।