কাঞ্চননগর মডেল স্কুল এন্ড কলেজের শিক্ষক কবীর গ্রেফতার

1,084
gb

স্টাফ রিপোর্টার, ঝিনাইদহঃ
ঝিনাইদহের কাঞ্চননগর মডেল স্কুল এন্ড কলেজের ছাত্র পিটিয়ে আহত করার ঘটনায় জড়িত শিক্ষক কবীর উদ্দিনকে পুলিশ গ্রেফতার করেছে। তাকে ঘটনার পর পরই আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে। শহরের আদর্শ পাড়ায় অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেফতার করা হয়। অভিযোগ পাওয়া গেছে, গত মঙ্গলবার জেলার শহরের কাঞ্চননগর মডেল স্কুল এন্ড কলেজের অংক শিক্ষক কবীর উদ্দিন ৪র্থ শ্রেনীর মেধাবী সাইমুন হক ওরফে ইফতি নমের এক ছাত্রকে কাঠের স্কেল দিয়ে পিটিয়ে আহত করে। আহত ছাত্রকে ঘটনার দিন বেলা ২টার দিকে ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তার বাম পায়ে গুরুতর আঘাত করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন হাসপাতালের চিকিৎসকরা। পুলিশের একটি সুত্র জানায় আটকের পরে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের সময় কবীর উদ্দিন মারপিটের ঘটনা স্বীকার করেছেন। সুত্র আরো জানায়, সে ছাত্র-ছাত্রীকে মারপিট করার অভিযোগে এ পর্যন্ত ১৮ বার কারন দর্শানোর নোটিশসহ এক দফায় সাময়িক ভাবে করা হয়েছে বলে স্বীকার করেছে। ঝিনাইদহ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ওই ছাত্রের বাবা গ্রামীণ ফোনে কর্মরত আজমল হক ঝান্টু বলেছেন তার ছেলের অবস্থা অপরির্বতিত রয়েছে। তিনি আরো বলেছেন বাম পায়ের হাটুর নীচের অংশে গুরুতর আঘাতের ফলে হাটতে পারছেনা তার ছেলে। তিনি অভিযোগ করেন এ ঘটনার পর পর স্কুল কতৃপক্ষ বিনা চিকিৎসায় প্রায় ২ ঘন্টা ইফতিকে ক্লাস রুমের সামনে বসিয়ে রাখে। খবর পেয়ে তিনি ছেলেকে উদ্ধার করে ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন। তিনি আরো অভিযোগ করেছেন লাইব্রেরিয়ান থেকে স্কুলটির অধ্যক্ষ হওয়া প্রদীপ কুমার সঠিক ভাবে দায়িত্ব পালন করেননি। সময় মত চিকিৎসার খোজ খবর নেননি ওই অধ্যক্ষ। অভিযোগ করা হয়েছে ঘটনা আড়াল করতে স্কুল কতৃপক্ষ খন্ডকালীন ওই শিক্ষককে চাকরি থেকে সাময়িক ভাবে বরখাস্ত করেছে। ঝিনাইদহ সদর থানার ওসি শেখ এমদাদুল হক বলেছেন, সত্যতা পাওয়ায় ঘটনার সাথে জড়িত শিক্ষককে গ্রেফতার করা হয়েছে। তিনি আরো বলেছেন জেলা পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকে বিষয়টি গুরুত্বসহকারে দেখা হচ্ছে।