নকশা অনুযায়ী ভাস্কর্যে নারী মুক্তিযোদ্ধার অবয়ব পুনর্স্থাপনের দাবি বিএনপিএস’র

268
gb

জিবিনিউজ24 ডেস্ক:অনুমোদিত নকশা উপেক্ষা করে কিশোরগঞ্জের তাড়াইল উপজেলা পরিষদ চত্বরে নির্মাণাধীন মুক্তিযুদ্ধের ভাস্কর্যের নারী মুক্তিযোদ্ধার অবয়বকে রাতারাতি পুরুষের আকৃতি দেওয়ার ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে বাংলাদেশ নারী প্রগতি সংঘ (বিএনপিএস)। আজ মঙ্গলবার সংস্থার পক্ষ থেকে নকশা অনুযায়ী ভাস্কর্যে নারী মুক্তিযোদ্ধার অবয়ব পুনর্স্থাপনের দাবি জানানো হয়েছে।বিএনপিএস এর নির্বাহী পরিচালক মুক্তিযোদ্ধা রোকেয়া কবীর স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এই দাবি জানানো হয়েছে। বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, উক্ত ঘটনায় আমরা অত্যন্ত্ম বিক্ষুব্ধ ও চেতনাহত। আমরা মনে করি, এই ঘটনা মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের এদেশের সকল নাগরিকের চেতনায় তীব্র আঘাত করবে।  আরো বলা হয়েছে, জেলা পরিষদের অর্থায়নে নির্মিতব্য এই ভাস্কর্যের নকশা পরিবর্তনের যারা মূল হোতা, তারা রাষ্ট্রীয় কর্তৃপক্ষের নির্দেশ অমান্য করার পাশাপাশি মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাসকে খ্লিত ও বিকৃত করার অপরাধ করেছে। আমরা অপরাধীদের শনাক্ত করে শাস্তির আওতায় আনা ও নকশা অনুযায়ী নির্দিষ্ট ভাস্কর্যে নারী মুক্তিযোদ্ধার অবয়ব পুনর্স্থাপনের জোর দাবি জানাচ্ছি।
বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, মহান মুক্তিযুদ্ধে সকল ধর্ম ও জাতির নারী-পুরুষ কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে একসঙ্গে যুদ্ধ করে এ দেশ স্বাধীন করেছিল। স্বাধীনতার ৪৬ বছর পরে নারী-পুরুষ উভয়ের সম্মিলিত চেষ্টায় বাংলাদেশ যখন দ্রুত সামনে এগিয়ে যাচ্ছে, তখনো যারা মুক্তিযুদ্ধে নারীর অবদানকে অস্বীকার করবার স্পর্ধা দেখায়, তারা দেশের মহান স্বাধীনতা, সংবিধান ও উন্নয়নবিরোধী। এই গোষ্ঠীর সমস্ত অপতৎপরতা কঠোর হস্তে দমন করতে না পারলে বাংলাদেশের সব ইতিবাচক অর্জন বারবার মুখ থুবড়ে পড়বে। তাই সরকারের যথাযথ কর্তৃপক্ষ বিষয়টি যথা দ্রুত আমলে নিয়ে নকশা অনুযায়ী সুউচ্চ বেদির ওপর দুজন রাইফেলধারী পুরুষ মুক্তিযোদ্ধা ও জাতীয় পতাকা হাতে একজন নারী মুক্তিযোদ্ধার অবয়ব নির্মাণ যথাযথভাবে সম্পন্ন করবে বলে আমরা আশা করি।