করোনার প্রতিষেধক হিসেবে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প যে ওধুষ হাইড্রোক্সিক্লোরোকুইন খাওয়ার কথা জানিয়েছেন, তা প্রকৃতপক্ষে কোভিড-১৯ রোগীদের মৃত্যুর ঝুঁকি বাড়াচ্ছে

113
gb

মো: নাসির নিউ জার্সি, আমেরিকা থেকে

করোনার প্রতিষেধক হিসেবে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প যে ওধুষ খাওয়ার কথা জানিয়েছেন, তা প্রকৃতপক্ষে কোভিড-১৯ রোগীদের মৃত্যুর ঝুঁকি বাড়াচ্ছে। যুক্তরাজ্য-ভিত্তিক প্রসিদ্ধ জনস্বাস্থ্য ও চিকিৎসা সাময়িকী ল্যানসেট-এর এক গবেষণায় এই তথ্য উঠে এসেছে। আজ শনিবার বিবিসি অনলাইনের প্রতিবেদনে এ কথা জানানো হয়।
সোমবার ট্রাম্প জানান, তিনি করোনা পরীক্ষা করেছেন। পরীক্ষায় নেগেটিভ এসেছে। তাঁর মধ্যে করোনার কোনো উপসর্গ নেই। কিন্তু তা সত্ত্বেও তিনি করোনার প্রতিষেধক হিসেবে নিয়মিত হাইড্রোক্সিক্লোরোকুইন ওধুষ খাচ্ছেন। কারণ, তিনি মনে করেন, এই ওষুধ ভালো। এই ওষুধ সম্পর্কে অনেক ভালো কথা শুনেছেন তিনি। হাইড্রোক্সিক্লোরোকুইনের সঙ্গে জিঙ্কও খাওয়ার কথা জানান ট্রাম্প।

হাইড্রোক্সিক্লোরোকুইন মূলত ম্যালেরিয়ার ওষুধ। ম্যালেরিয়ার চিকিৎসায় হাইড্রোক্সিক্লোরোকুইন ওষুধ নিরাপদ। কিন্তু করোনার চিকিৎসায় এই ওধুধের কার্যকারিতা এখন পর্যন্ত প্রমাণিত হয়নি। জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা সতর্ক করে বলেছেন, করোনায় এই ওষুধ খেলে হৃদযন্ত্রে সমস্যা সৃষ্টি হতে পারে।
ল্যানসেট-এর গবেষণায় বলা হয়, করোনা রোগীদের চিকিৎসায় ম্যালেরিয়ার ওষুধ হাইড্রোক্সিক্লোরোকুইন ব্যবহারের কোনো উপকারিতা নেই।

ল্যানসেট-এর গবেষণাটি ৯৬ হাজার করোনা রোগীর ওপর করা হয়। তাঁদের মধ্যে প্রায় ১৫ হাজার রোগীকে হাইড্রোক্সিক্লোরোকুইন বা একই জাতীয় ওষুধ দেওয়া হয়েছিল।

গবেষণায় দেখা যায়, তুলনামূলকভাবে হাইড্রোক্সিক্লোরোকুইন গ্রহণকারী করোনা রোগীদের হাসপাতালে মৃত্যুর আশঙ্কা ও হৃদযন্ত্রে সমস্যার অভিযোগ বেশি।

গবেষণায় দেখা যায়, হাইড্রোক্সিক্লোরোকুইন গ্রহণকারী করোনা রোগীদের মধ্যে মৃত্যুর হার ১৮ শতাংশ। ক্লোরোকুইন গ্রহণকারী করোনা রোগীদের মধ্যে মৃত্যুর হার ১৬ দশমিক ৪ শতাংশ। আর নিয়ন্ত্রিত গ্রুপে মৃত্যুর হার ৯ শতাংশ। (The death rates of the treated groups were: hydroxychloroquine 18%; chloroquine 16.4%; control group 9%. )
গবেষকেরা সতর্ক করেছেন, ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল ছাড়া কোনোভাবেই হাইড্রোক্সিক্লোরোকুইন ওষুধ করোনার চিকিৎসায় ব্যবহার করা উচিত হবে না।