আত্মহত্যা করা সেই চিকিৎসকের স্ত্রী মিতুর জামিন বহাল

বিশেষ প্রতিনিধি জিবি নিউজ ২৪

চট্টগ্রামে চিকিৎসক মোস্তফা মোরশেদ আকাশের আত্মহত্যায় প্ররোচণার মামলায় তার স্ত্রী তানজিলা হক চৌধুরী মিতুকে হাইকোর্টের দেওয়া জামিন বহাল রেখেছেন আপিল বিভাগের অবকাশকালীন চেম্বার বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী। আজ বৃহস্পতিবার শুনানি শেষে ‘নো-অর্ডার’ বলে আদেশ দেন আদালত। ডা. মিতুকে হাইকোর্টের দেওয়া জামিন স্থগিত চেয়ে আবেদন করেছিল রাষ্ট্রপক্ষ। 

এর আগে গত ২৮ আগস্ট ডা. মিতুকে জামিন দেন হাইকোর্ট।                                                         ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল জাহিদ সারোয়ার কাজল আজ আদালতে রাষ্ট্রপক্ষে আইনজীবী ছিলেন। মিতুর পক্ষে আইনজীবী ছিলেন অ্যাডভোকেট এএম আমিন উদ্দিন। 

চলতি বছরের ৩১ জানুয়ারি চট্টগ্রাম নগরের চান্দগাঁও আবাসিক এলাকার একটি বাসায় মোস্তফা মোরশেদ আকাশ ইনজেকশনের মাধ্যমে শিরায় বিষ প্রয়োগে আত্মহত্যা করেন।                               এর আগে, অন্য পুরুষের সঙ্গে সম্পর্ক থাকাকে কেন্দ্র করে আকাশ ও তার স্ত্রীর মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে ভোর ৪টার দিকে বাসা থেকে বের হয়ে বাবার বাড়ি চলে যান মিতু। 

পরে স্ত্রীর সমালোচনা করে মিতুর স্বামী মোস্তফা মোরশেদ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে একটি স্ট্যাটাস দেন। সেখানে তিনি লেখেন, ‘আমাদের দেশের ভালোবাসায় চিটিংয়ের শাস্তি নেই, তাই আমিই বিচার করলাম আর আমি চিরশান্তির পথ বেছে নিলাম। ’

এই আত্মহত্যার পর আত্মহত্যায় প্ররোচনার অভিযোগে ডা. আকাশের স্ত্রী, শ্যালিকা, দুই বন্ধুসহ ছয়জনকে আসামি করে ১ ফেব্রুয়ারি চান্দগাঁও থানায় মামলা করেন আকাশের মা জোবেদা খানম।      এ মামলায় ওইদিন রাতেই রাতে পুলিশ নগরের নন্দনকানন এলাকায় এক আত্মীয়ের বাসা থেকে ডা. মিতু আটক করে। 

এই মামলায় চট্টগ্রামের আদালতে জামিনের আবেদন করলে আদালত তা খারিজ করে। এরপর হাইকোর্টে জামিন আবেদন করেন ডা. মিতু। জামিন শুনানি নিয়ে আদালত রুল জারি করেন। রুলের চূড়ান্ত শুনানি শেষে মিতুর জামিন মঞ্জুর করে গত ২৮ আগষ্ট রায় দেন হাইকোর্ট। 

২০০৯ সাল থেকে আকাশের সঙ্গে মিতুর প্রেমের সম্পর্ক চলে আসছিল। এরপর ২০১৬ সালে তারা বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন।  

এই ওয়েবসাইটটি আপনার অভিজ্ঞতা উন্নত করতে কুকি ব্যবহার করে। আমরা ধরে নিচ্ছি যে আপনি এটির সাথে ঠিক আছেন তবে আপনি চাইলে অপ্ট-আউট করতে পারেন Accept আরও পড়ুন