পলাশবাড়ীতে জমিজমা সংক্রান্ত জের ধরে দফায়- দফায় সংঘর্ষ আহত-২২

62
gb

ছাদেকুল ইসলাম রুবেল,গাইবান্ধা প্রতিনিধি ।। জিবি নিউজ ।।

গাইবান্ধার পলাশবাড়ী উপজেলার জমিজমা নিয়ে দফায় দফায় সংঘর্ষে আহত ২২।

১৩ আগষ্ট মঙ্গলবার সতালে এই ঘটনাটি ঘটে।

জানা যায়, উপজেলার ৫নং মহদীপুর ইউনিয়নের দূর্গাপুর গ্রামে

জমিজমা সংক্রান্ত জের ধরে আনোয়ারুল ইসলাম তার লোকজন

নিয়ে ধান রোপন করতে গেলে শুকুর আলী গং বাধা দিলে এ

সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

আহতরা হলেন সংঘর্ষে আহতরা হলেন, শুকুল আলী (৬০) পিতা-

আজিজার রহমান, সৈয়দ আলী (৫৩) পিতা-আহম্মদ আলী, সাহেব

মিয়া (৭২) পিতা-মফিজ উদ্দিন, রেজাউল মিয়া (২৮) পিতা-সাহেব

মিয়া, মিজানুর রহমান (৩০) পিতা-সাহেব আলী, শরিফুল ইসলাম

(৩৫) পিতা-সাহেব মিয়া, অন্তর মিয়া (২৫) পিতা-শুকুর আলী,

মোছা : পারভিন বেগম (২৫) স্বামী-জাকিরুল ইসলাম, ফিরোজা

(৫৫) স্বামী-হোসেন আলী, গোলাপি বেগম (৩০) স্বামী- শুকুর

আলী, সাবিয়া আক্তার (১৮) পিতা-শুকুর আলী।অপরদিকে আনোয়ারুল

ইসলাম (৩৫) পিতা মৃত জসিমউদ্দিন, মোশারফ মিয়া (২৪) পিতা-

মতিন, সাগর (২৪) পিতা-শাহ আলম, রুবেল (৩৫) গোলা মন্ডল, ফারুক

মন্ডল পিতা শহিদুল, ফরহাদ পিতা-শহিদুল, লাভলি বেগম (৩৪) স্বামী-

হারুন, ফেন্সি বেগম স্বামী- আশরাফুল আহত হন।

এ ঘটনায় শুকুর আলী গং এর মোট ১০ জন পলাশবাড়ী উপজেলা

স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি রয়েছেন। অনোয়ারুল গং হাসপাতালে যাওয়ার

প্রস্তুতি নিচ্ছে।আনোয়ারুল গংরা জমি সংক্রান্ত এ মামলায়

একটি রায় পাওয়ার পর এ বিষয়ে একাধীকবার হামলা ও পাল্টা হামলার

ঘটনা ঘটেছে ইতিপূর্বেও।

এ বিষয়ে স্থানীয়ভাবে একাধীকবার মিটিং দরবার হয়েছে এবং

আগামী ২০ আগষ্ট পলাশবাড়ী থানায় দু-পক্ষের একটি আলোচনা

 

হওয়ার কথা আছে বলে জানা যায়। তবে আলোচনার আগেই উভয় পক্ষ

সংঘর্ষে লিপ্ত হলেন। সংঘর্ষের খবর পেয়ে পলাশবাড়ী থানা পুলিশের

এসআই সঞ্জয় কুমার ও তার নেতৃত্বে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়।

এ ঘটনার জের ধরে শুকুর আলী গং এর জামাই মৃত বীর মুক্তিযোদ্ধা

আমজাদ হোসেনের বাড়ীতে হামলা ও ইট পাটকেল নিক্ষেপেরর ঘটনা

ঘটে এবং পরিরটিকে কোনঠাসা করে রাখে। এ সময় আঁখী আক্তার

(২৫) আহত হয়। সাংবাদিকদের অভিযোগ করে বলেন, মুক্তিযোদ্ধা

পরিবারের উপর এমন হামলা কেনো? আবু হানিফ ঢাকায় চাকুরীরত

আছেন পুরুষশুন্য এ বাড়ীতে হামলা করেছে সন্ত্রাসীরা। আমরা বাধ্য

হয়ে কয়েকজন মেয়ে কোনার একটি ঘরে অবস্থান নিয়েছিলাম।

আমরা মুক্তিযোদ্ধা পরিবারটি এ হামলার বিচার চাচ্ছি বলেন,সুরভী

আকতার। তিনি জানান, ফিরোজ মন্ডল (৩৮) পিতা-গোলা, মজনু

মিয়া (৫৫) পিতা-গোলা, মকছুদুল হক পিতা-খোকা মন্ডল, তুহিন

মন্ডল, পিতা- তাঁরা মন্ডল, আনোয়ারুল ইসলাম, পিতা-জসিমুদ্দিন,

মনছুর আলী, পিতা-করিম উদ্দিন এর বাড়ীতে হামলা করেছে। সকালের

এ সংঘর্ষে আহত রুবেল মিয়ার (৪৪) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন

থাকার খবরে পেয়ে তাঁর মেয়ে জামাই আলমগির হোসেন (৩৫)

হাসপাতালে উপস্থিত হলে প্রতিপক্ষের কয়েকজন তাঁকে মারপিট

করে।

এ ঘটনার পর জামাই শশুর নীজ বাড়ীতে ফিরে আসেন ও চিকিৎসা

নিচ্ছেন। আহত জামাই সাদুল্যাপুর উপজেলার জানিপুর গ্রামের

নইমুূদ্দিন এর পুত্র।এ ঘটনার পর জামাই এর উপর হামলার প্রতিবাদে

শুকুর আলী গং এর মেয়ে জামাই মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের পুত্র আবু

হালিম এর বাড়ীতে হামলা করেছে বিরোধী পক্ষ। এমন হামলায়

পুরুষশুন্য মুক্তিযোদ্ধা পরিবারটি আতঙ্কে আছে বলে সাংবাদিকদের

জানান, কন্যা সুরভী আক্তার।

এ বিষয়ে পলাশবাড়ী থানা অফিসার ইনচার্জ মাসুদুর রহমান

জানান, দুর্গাপুর গ্রামে জমিজমা সংক্রান্ত যে সংঘর্ষের

ঘটনা ঘটেছে সেখানে পুলিশি টহল ও গ্রাম পুলিশের মাধ্যমে

নজরদারীতে রাখা হয়েছে এবং পূনরায় এমন সংঘর্ষের ঘটনা যেন

না ঘটে।

gb

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More