স্লিপ যার চাল তার! পলাশবাড়ীতে ভিজিএফ চাল বিতরনে ব্যাপক অনিয়ম

93
gb

গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধি ।। জিবি নিউজ ।।

গাইবান্ধা জেলা পলাশবাড়ী উপজেলার নবগঠিত পৌরসভার ভিজিএফ চাল বিতরনে ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ ওঠেছে। পৌর সচিব সূত্রে জানা যায়, আসন্ন পবিত্র ঈদ উল আযহা উপলক্ষে নবগঠিত পলাশবাড়ী পৌরসভার অনুকুলে ১৫৪০ টি কার্ডের অনুকুলে ২৩ মেঃ টন ১০০ কেজি চাল বরাদ্দ করা হয়।বরাদ্দ অনুযায়ী তালিকা প্রনয়নের কথা থাকলে ও বিগত সময়ের তালিকা মোতাবেক চাল বিতরনের সিদ্ধান্ত গ্রহন করা হয়।পদ অধিকার বলে পৌরসভার সদস্যদের নামে ২০ টি করে স্লিপ বরাদ্দের সিদ্ধান্ত গ্রহন করে পৌর প্রশাসক। এই সিদ্ধান্ত অনেক সদস্যই মেনে নিতে পারেনি। কিন্তু পৌর প্রশাসক নিজের ইচ্ছা মত চালের স্লিপ বিভিন্ন ব্যাক্তি, ও দলের হাতে তুলে দেন।তালিকায় নাম থাকলে ও স্লিপ পায়নি অনেকেই! স্লিপ যার চাল তার! কেবল মাত্র স্লিপ যার হাতে ছিল সেই চাল পেয়েছে।পৌরসভা এলাকার বাসিন্দা নয় এমন কয়েক জন ব্যাক্তির হাতে ও ভিজিএফ স্লিপ দেখা যায়। অথচ পৌরসভা এলাকার বাসিন্দারা অনেই চাল না পেয়ে খালি হাতে ফিরে যায়। আবার অনেক সরকারী কর্মচারীদের স্লিপ বিতরন করতে দেখা গেছে।

সাবেক সদর ইউপি চেয়ারম্যান ও পৌরসভার পদ অধিকার বলে সদস্য হাবিবুর রহমান ইসলাম জানান পৌর প্রশাসক নিজের খেয়াল খুশি মত ভিজিএফ বিতরন করছেন।

পৌর সভার সচিবের নিকট মতামত জানতে চাইলে তিনি জানান স্থানীয় সাংবাদিকদের নামে ১০০ স্লীপ বরাদ্দ করা হয়েছে।

পলাশবাড়ী প্রেসক্লাবের একাংশের সভাপতি রবিউল হোসেন পাতা বলেন আমি পৌরসভা কাছ থেকে ২০ টি স্লিপ ভাগ পেয়েছি।

প্রেসক্লাব অপরাংশের সভাপতি রফিকুল ইসলাম জানান, আমার প্রেসক্লাবের নামের ২০টি স্লিপ সাধারন সম্পাদক মাসুদার রহমান মাসুদ রিসিভ করেছেন।

উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মোকছেদ চৌধুরী বিদুৎ জানান, আমি কিছু জানিনা! পৌরসভায় আমি কোন হস্তক্ষেপ করি নাই।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও পৌর প্রশাসক মেজবাউল হোসেন বলেন পুর্বের ন্যায় তালিকা অনুযায়ী ভিজিএফ বিতরনের সিদ্ধান্ত নিয়েছি।ভিজিএফ বিতরনে কোন অনিয়ম হয় নি।

ভিজিএফ বিতরনে অনিয়মের অভিযোগ সুষ্ঠু ভাবে তদন্তের জন্য পৌরবাসী জেলা প্রশাসকসহ স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More