বন্যার পানি ডুবে  যাওয়ায় গাইবান্ধায় ১৫৫ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ

56
gb
ছাদেকুল ইসলাম রুবেল,গাইবান্ধা প্রতিনিধিঃ
গাইবান্ধার চরাঞ্চল ও নদীবেষ্টিত এলাকার শিক্ষা-প্রতিষ্ঠানগুলোতে বন্যার পানিতে ডুবে ১৫৫টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পাঠদান বন্ধ ঘোষণা করেছে শিক্ষা অফিস।
রোববার ১৪ জুলাই রাতে সর্ব শেষ খবরে গাইবান্ধা জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা হোসেন আলী বন্যাকবলিত ১৫৫টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পাঠদান বন্ধ ঘোষণা করেন।
শিক্ষা কর্মকর্তা হোসেন আলী বলেন, বন্যার কারণে বিভিন্ন প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মাঠে পানি জমেছে।  বিভিন্ন সড়ক তলিয়ে গিয়ে বাড়িঘরে পানি প্রবেশ করায় কোমলমতি শিক্ষার্থীরা বিদ্যালয়ে আসা নিরাপদ নয়। যে কোনো সময় দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। এসব কারণে বন্যাকবলিত ১৫৫টি বিদ্যালয় বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।
পানি উন্নয়ন বের্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. মোখলেছুর রহমান বলেন, গত কয়েক ঘণ্টায় ব্রহ্মপুত্র নদের পানি ২০ সেন্টিমিটার বৃদ্ধি পেয়ে বিপৎসীমার ৮৮ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। ঘাঘট নদীর পানি গাইবান্ধা শহর পয়েন্টে ১৩ সেন্টিমিটার বৃদ্ধি পেয়ে বিপৎসীমার ৫৭ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। তিস্তা নদীর পানি কাউনিয়া পয়েন্টে তিন সেন্টিমিটার কমে বিপৎসীমার ১৭ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।
বনার সার্বিক বিষয়ে জেলা প্রশাসক মো আব্দুল মতিন বলেন, গাইবান্ধার চারটি উপজেলার প্রায় ৫০ হাজার মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়েছে। পানিবন্দি মানুষের জন্য ৬৩টি আশ্রয়কেন্দ্র খোলা হয়েছে। বন্যাদুর্গত এলাকার মানুষের জন্য জরুরি পরিস্থিতি মোকাবেলায় বন্যাকবলিত চার উপজেলায় ২৪০ মেট্রিক টন চাল, নগদ দুই লাখ টাকা, দুই হাজার শুকনা খাবারের প্যাকেট বরাদ্দ দেয়া হয়েছে।
gb
মন্তব্য
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More