মাদ্রাসার শিশু ছাত্রীকে ২০ টাকা দিয়ে নিয়মিত ধর্ষণ করতো সিএনজি চালক

295

জিবি নিউজ ডেস্ক।।

২০ টাকা দিয়ে শিশুকে নিয়মিত ধর্ষণের অভিযোগ ওঠেছে মো. সোহেল (২৪) নামের এক সিএনজি চালকের বিরুদ্ধে। সিএনজি চালক ১১ বছরের মাদ্রাসা ছাত্রীকে নিয়মিত ধর্ষণ করত। ঘটনাটি ঘটে কুমিল্লার দেবিদ্বার উপজেলায়।

গ্রেপ্তারকৃত সোহেল উপজেলার এলাহাবাদ ইউনিয়নের মোহাম্মদপুর গ্রামের বলাগাজীর বাড়ির শফিকুল ইসলামের ছেলে। ধর্ষণের শিকার শিশুও একই এলাকার বাসিন্দা।

ওই শিশুর মা দেবিদ্বার থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়েরের পর সোহেলকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। নির্যাতিত শিশুকে স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

সাংবাদিকদের ওই শিশুর জানায়, সোহেল তাকে নিয়মিত ধর্ষণ করত। সবশেষ গত ৮ জুন তাকে ২০ টাকা হাতে দিয়ে ধর্ষণ করেন তিনি। এ ঘটনা কাউকে জানালে তাকে মেরে ফেলারও হুমকি দেন সোহেল।

আজ সকালে শিশুটি অসুস্থতা বোধ করতে শুরু করলে তার মা কারণ জিজ্ঞাসা করেন। এ সময় তার মেয়ে পুরো ঘটনা তাকে জানায়। পরে দেবিদ্বার থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করেন তিনি।

দুপুরে মামলার পর পরই সোহেলকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. জহিরুল আনোয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেছেন, শিশুটিকে কুমিল্লা মেডিকেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। সোহেলকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। মামলার প্রক্রিয়া শেষে তাকে আদালতে পাঠানো হবে।