পুলিশ সপ্তাহে বিপিএম পিপিএম পদক পাচ্ছেন ৩৪৯ জন

89
gb

এবার রেকর্ড ৩৪৯ পুলিশ সদস্যকে পদক দেয়া হচ্ছে। উপসচিব ফারজানা জেসমিনের সই করা এক প্রজ্ঞাপনে মঙ্গলবার এ তথ্য জানা গেছে।

পুলিশ সদর দফতর সূত্রমতে, ৪ ফেব্রুয়ারি শুরু হতে যাওয়া পুলিশ সপ্তাহের প্রথম দিনে এসব পুলিশ সদস্যের হাতে পদক তুলে দেবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

এ বছর পদকের জন্য সহস্রাধিক আবেদন পুলিশ সদর দফতরে জমা পড়ে। এগুলো বাছাই শেষে সদর দফতর থেকে তালিকা স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়। মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগ ৩৪৯ নাম চূড়ান্ত করে মঙ্গলবার প্রজ্ঞাপন জারি করে।

গত বছর বাংলাদেশ পুলিশ পদক (বিপিএম) ও রাষ্ট্রপতি পুলিশ পদকের (পিপিএম) জন্য সারা দেশ থেকে প্রায় ৬০০ আবেদন জমা পড়েছিল। ১৮২ জন পদকের জন্য বিবেচিত হন।

২০১৭ সালের ১৩২ জন, ২০১৬ সালে ১০২ জন, ২০১৫ সালে ৮৬ জনকে বিপিএম ও পিপিএম দেয়া হয়। ২০১৪ সালের পুলিশ সপ্তাহে ২০ জনকে বিপিএম এবং ৪০ জনকে পিপিএম দেয়া হয়েছিল।

প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, ২০১৮ সালে পুলিশ বাহিনীর সদস্যদের অসীম সাহসিকতা ও বীরত্বপূর্ণ কাজের স্বীকৃতি হিসেবে ৪০ পুলিশ সদস্যকে বিপিএম ও ৬২ জনকে পিপিএম দেয়া হল। তাছাড়া গুরুত্বপূর্ণ মামলার রহস্য উদ্ঘাটন, অপরাধ নিয়ন্ত্রণ, দক্ষতা, কর্তব্যনিষ্ঠা, সততা ও শৃঙ্খলামূলক আচরণে প্রশংসনীয় অবদান রাখায় ১০৪ জনকে বিপিএম-সেবা ও ১৪৩ জনকে পিপিএম-সেবা দেয়া হল।

পুলিশের ইতিহাসে প্রথমবারের মতো দেশের সব জেলার পুলিশ সুপার (এসপি) এবং র‌্যাবের সব ব্যাটলিয়নের অধিনায়করা পদক পাচ্ছেন। পদকপ্রাপ্তদের মধ্যে দু’জন মরণোত্তর বিপিএম পদক পাচ্ছেন।

তারা হলেন- ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের সাবেক পরিদর্শক জালাল উদ্দিন ও ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের সাবেক কনস্টেবল শামীম মিয়া।

বিপিএম পদক প্রাপ্তদের উল্লেখযোগ্যরা হলেন- র‌্যাব মহাপরিচালক বেনজীর আহমেদ, ডিএমপি কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া, ডিএমপির অতিরিক্ত কমিশনার মনিরুল ইসলাম, পুলিশ সদর দফতরের ডিআইজি আনোয়ার হোসেন ও র‌্যাবের সাবেক অতিরিক্ত মহাপরিচালক কর্নেল আনোয়ার লতিফ খান।

বিপিএম পাওয়া অন্যরা হলেন : র‌্যাবের বর্তমান অতিরিক্ত মহাপরিচালক কর্নেল জাহাঙ্গীর আলম, পুলিশের ঢাকা রেঞ্জ ডিআইজি আসাদুজ্জামান, লে. কর্নেল মাহাবুব আল, সিআইডির অতিরিক্ত ডিআইজি আবদুল কাহার আকন্দ, র‌্যাব-৮ এর অধিনায়ক অতিরিক্ত ডিআইজি আতিকা ইসলাম, র‌্যাব-১৩ এর অধিনায়ক অতিরিক্ত ডিআইজি মোজাম্মেল হক, কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্স ন্যাশনাল ক্রাইম (সিটিটিসি) ইউনিটের উপ-কমিশনার (ডিসি) এএইচএম আবদুর রকিব, কক্সবাজারের এসপি এবিএম মাসুদ হোসেন, সিটিটিসি ডিসি প্রলয় কুমার জোয়ারদার, এসপি পদে পদোন্নতিপ্রাপ্ত সিটিটিসি অতিরিক্ত উপকমিশনার (এডিসি) মোহাম্মদ আসাদুজ্জামান, র‌্যাব সদর দফতরের আর্টিলারি মেজর নইম আবদুল্লাহ, র‌্যাব-৭ এর মেজর মেহেদী হাসান, র‌্যাব-৭ এর উপ-অধিনায়ক শাফায়াত জামিল ফাহিম, সিটিটিসি এডিসি জাহাঙ্গীর আলম, পুলিশ সদর দফতরের অতিরিক্ত এসপি নূরে আলম, সিটিটিসি সিনিয়র সহকারী কমিশনার এসএম জাহাঙ্গীর হাছান, ডিবির সিনিয়র সহকারী কমিশনার শাহাদত হোসেন সুমা, সিআইডির পরিদর্শক সৈয়দ গোলাম মাওলা, টেকনাফ মডেল থানার ওসি প্রদীপ কুমাদ দাস, বগুড়া ডিবির পরিদর্শক নুর-এ-আলম সিদ্দিকী, সন্দীপ থানার ওসি মো. শাহজাহান, গাজীপুর জেলার এসআই শহিদুল ইসলাম মোল্লা, মৌলভীবাজার সদর মডেল থানার এএসআই বিকাশ চন্দ্র দে, চুয়াডাঙ্গা সদর থানার এসআই ওহিদুল ইসলাম, র‌্যাব-১১ এর সিনিয়র ওয়ারেন্ট অফিসার মোকারম হোসেন খান, বগুড়া ডিবির এএসআই রুহুল আমিন, র‌্যাব-৭ এর ল্যান্স কর্পোরাল শহিদুল ইসলাম, র‌্যাব-১১ এর ল্যান্স নায়েক শাফায়েত হোসেন, সিআইডির কনস্টেবল সোহরাব হোসেন, সিএমপি কোতোয়ালি থানার কনস্টেবল রাসেল মিয়া, র‌্যাব-৭ এর সৈনিক আরিফুল ইসলাম, ইন্ডাস্ট্রিয়াল পুলিশ চট্টগ্রাম অঞ্চলের কনস্টেবল মমিনুল ইসলাম এবং সিলেট পুলিশ লাইন্সের কনস্টেবল ইব্রাহিম ইসলাম সুফন।

বিপিএম-সেবার জন্য মনোনীতরা হলেন : পুলিশ সদর দফতরের অতিরিক্ত ডিআইজি মইনুর রহমান চৌধুরী, এসবির অতিরিক্ত আইজি মীর শহীদুল ইসলাম, পুলিশ সদর দফতরের অতিরিক্ত আইজি মোহাম্মদ শফিকুল ইসলাম,

অতিরিক্ত আইজি ইকবাল বাহার, বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশ-বিএমপি কমিশনার মোশারফ হোসেন, পুলিশের ঢাকা রেঞ্জ ডিআইজি চৌধুরী আবদুল্লাহ আল মামুন, ময়মনসিংহ রেঞ্জের ডিআইজি নিবাস চন্দ্র মাঝি, সিলেট রেঞ্জের ডিআইজি কামরুল আহসান, চট্টগ্রাম রেঞ্জের ডিআইজি গোলাম ফারুক, বরিশাল রেঞ্জের ডিআইজি শফিকুল ইসলাম,

পুলিশ সদর দফতরের ডিআইজি আবু হাসান মুহম্মদ তারিক, পিবিআইয়ের ডিআইজি বনজ কুমার মজুমদার, সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশ (এসএমপি) কমিশনার গোলাম কিবরিয়া, কেন্দ্রীয় পুলিশ হাসপাতালের পরিচালক ড. হাসান-উল-হায়দার, পুলিশ সদর দফতরের ডিআইজি হুমায়ুন কবির,

গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার ওয়াই এম বেলালুর রহমান, সিএমপি কমিশনার মাহাবুবুর রহমান, পুলিশ সদর দফতরের ডিআইজি ব্যারিস্টার হারুন আর রশিদ, ডিএমপির অতিরিক্ত কমিশনার মীর রেজাউল আলম, এসবির ডিআইজি মোহাম্মদ আলী মিয়া,

রংপুর রেঞ্জের ডিআইজি দেবদাস ভট্টাচার্য, রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার আবদুল আলীম মাহমুদ, ডিএমপির অতিরিক্ত কমিশনার কৃষ্ণ পদ রায়, আরএমপি কমিশনার একেএম হাফিজ আক্তার, পুলিশ সদর দফতরের ডিআইজি ড. খ. মহিদ উদ্দিন,

ডিএমপির অতিরিক্ত কমিশনার আবদুল বাতেন, র‌্যাব-৪ এর অধিনায়ক চৌধুরী মঞ্জুরুল কবির, র‌্যাব-১০ এর অধিনায়ক কাইয়ুমুজ্জামান খান, পুলিশ সদর দফতরের অতিরিক্ত ডিআইজি আমিনুল ইসলাম, ডিএমপির যুগ্ম কমিশনার শেখ নাজমুল আলম, ইমাম হোসেন, মনির হোসেন, খুলনা রেঞ্জের অতিরিক্ত ডিআইজি একেএম নাহিদুল ইসলাম,

পুলিশ সদর দফতরের অতিরিক্ত ডিআইজি মনিরুজ্জামান, কেএমপির অতিরিক্ত কমিশনার রকিবুল ইসলাম, সিলেট রেঞ্জের অতিরিক্ত ডিআইজি জয়দেব কুমার ভদ্র, ডিএমপি ডিবির যুগ্ম কমিশনার মাহবুব আল, র‌্যাব লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইংয়ের পরিচালক মুফতি মাহমুদি খান,

র‌্যাব-১ এর অধিনায়ক সারওয়ার বিন কাশেম, র‌্যাব-২ এর অধিনায়ক আনোয়ার উজ জামান, র‌্যাব-৩ এর অধিনায়ক লে. কর্নেল এমরানুল হাসান, র‌্যাব-৫ এর অধিনায়ক লে. কর্নেল মোহাম্মদ মাহবুবুল আলম, র‌্যাব-৯ এর অধিনায়ক লে. কর্নেল আলী হায়দার আজাদ আহমেদ, র‌্যাব-১৪ অধিনায়ক লে. কর্নেল মোহাম্মদ এফতেখার উদ্দিন, র‌্যাব-৬ এর অধিনায়ক উইং কমান্ডার আবদুল আহাদ,

র‌্যাব ১১ অধিনায়ক কমান্ডার রাসেল আহমেদ কবির, সাতক্ষীরার এসপি সাজ্জাদুর রহমান, ঢাকার এসপি শাহ মিজান শাফিউর রহমান, সুনামগঞ্জের এসপি বরকতউল্লাহ খান, পুলিশ সুপার (ট্রেনিং) তবারক উল্লাহ, সিআইডির বিশেষ পুলিশ সুপার মোল্যা নজরুল ইসলাম,

চাঁদপুরের এসপি জিহাদুল কবির, যশোরের এসপি মঈনুল হক, নোয়াখালীর এসপি ইলিয়াছ শরীফ, চট্টগ্রামের এসপি নুরে আলম মিনা, ব্রাক্ষণবাড়িয়ার এসপি আনোয়ার হোসেন খান, ময়মনসিংহের এসপি শাহ আবিদ হোসেন, পুলিশ সদর দফতরের এআইজি সাঈদ তারিকুল হাসান, সিরাজগঞ্জের এসপি টুটুল চক্রবর্তী, ডিএমপি রমনা বিভাগের ডিসি মারুফ হোসেন সরদার, বরিশালের এসপি সাইফুল ইসলাম,

কুমিল্লার এসপি সৈয়দ নুরুল ইসলাম, পুলিশ সদর দফতরের এআইজি আনিসুর রহমান, নারায়ণগঞ্জের এসপি হারুন অর রশীদ, পাবনার এসপি শেখ রফিকুল ইসলাম, কিশোরগঞ্জের এসপি মাশরুকুর রহমান খালেদ, নেত্রকোনার এসপি জয়দেব চৌধুরী, ডিএমপি তেজগাঁও বিভাগের ডিসি বিপ্লব কুমার সরকার, ৮ আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়নের কমান্ডিং অফিসার মোহাম্মদ রাশিদুর ইসরাম খান, পুলিশ সদর দফতরের এআইজি এএফএম আনজুমান কালাম,

এসবির বিশেষ পুলিশ সুপার মিজানুর রহমান, জামালপুরের এসপি দেলোয়ার হোসেন, ডিবি ডিসি (পূর্ব) খোন্দকার নুরুন্নবী, গাইবান্ধার এসপি আবদুল মান্নান মিয়া, সিএমপির ডিসি এসএম মেহেদী হাসান, পুলিশ সদর দফতরের এআইজি আবিদা সুলতানা, টাঙ্গাইলের এসপি সঞ্জিত কুমার রায়, ডিএমপির ডিসি আলিমুজ্জামান, ডিবি পশ্চিমের উপ-কমিশনার মোহাম্মদ মোখলেছুর রহমান, রাজশাহীর এসপি মো. শহিদুল্লাহ, বগুড়ার এসপি আলী আশরাফ ভুঞা, ডিএমপির ডিসি সুদীপ কুমার চক্রবর্তী, খুলনার এসপি এসএম শফিউল্লাহ,

পুলিশ সদর দফতরের এআইজি মোহাম্মদ মাহফুজুর রহমান আল মামুন, মীর আবু তৌহিদ, ডিএমপি ডিবির এডিসি কাজী শফিকুল আলম, আইজিপির স্টাফ অফিসার মাসুদ আলম, পুলিশ সদর দফতরের অতিরিক্ত এসপি ইসতিয়াক উর রশিদ, সিটিটিসির এডিসি জাহিদুল হক তালুকদার, র‌্যাব সদর দফতরের অতিরিক্ত এসপি শাকিল আহমেদ, পুলিশ সদর দফতরের অতিরিক্ত এসপি দেবাশীষ দাশ,

ডিএমপি মতিঝিল বিভাগে এডিসি এসএম শিবলী নোমান, ডিএমপি মিরপুর জোনের সহকারী কমিশনার (এসি) সৈয়দ মামুন মোস্তফা, ডিএমপি ডিবি দক্ষিণের এসি ফজলুর রহমান, র‌্যাব সদর দফতরের এএসপি শ্যামল চৌধুরী, এসবির এএসপি রুহুল ইসলাম, তেজগাঁও থানার ওসি মাজহারুল ইসলাম, এসবির পরিদর্শক শেখ মোস্তাফিজুর রহমান, সোহেল রেজা ও তেজগাঁও থানার এসআই শবনম সুলতানা।

পিপিএমের জন্য মনোনীত : র‌্যাব-৭ এর অধিনায়ক ও র‌্যাব-১৫ (প্রস্তাবিত) এর ভারপ্রাপ্ত অধিনায়ক লে. কর্নেল মিফতাহ উদ্দিন আহমদ, বগুড়ার (পূর্ব) অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (এসপি পদে পদোন্নতিপ্রাপ্ত) অরিফুর রহমান মণ্ডল, বরিশালের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (এসপি পদে পদোন্নতিপ্রাপ্ত) মুহাম্মদ আবদুর রকিব,

র‌্যাব সদর দফতরের মেজর রেজাউর রহমান, স্কোয়াড্রন লিডার রাব্বি হাসান, র‌্যাব-৫ এর স্কোয়াড্রন লিডার মোহাম্মদ সাঈদ আবদুল্লাহ আল মুরাদ, র‌্যাব সদর দফতরের লে. কমান্ডার তৌফিকুর রহমান, র‌্যাব-২ এর মেজর মোহাম্মদ আলী, র‌্যাব-১১ এর উপঅধিনায়ক মেজর অশিক বিল্লাহ,

র‌্যাব-১৩ এর মেজর আরমিন রাব্বী, মেজর সোহেল রানা, সিএমপি ডিবি অতিরিক্ত উপ-কমিশনার এএএম হুমায়ুন কবীর, চট্টগ্রাম সীতাকুণ্ড সার্কেলের অতিরিক্ত এসপি শম্পা রানী সাহা, নেত্রকোনোর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ফখরুজ্জামান জুয়েল, সিটিটিসির এডিসি আহমেদুল ইসলাম, ডিএমপি ডিবির এডিসি গোলাম সাকলায়েন, আরএমপি অতিরিক্ত এসপি একরামুল হক হক, র‌্যাব-৭ এর কোম্পানি কমান্ডার লে. মির্জা শাহেদ মাহতাব, কেএমপির সিনিয়র এসি ভাস্কর সাহা, সিএমপির সিনিয়র এসি মঈনুল ইসলাম, র‌্যাব সদর দফতরের সিনিয়র এএসপি মুযজাহিদুল ইসলাম, নাজমুল হাসান রাজিব, সিটিটিসির এসি মাহবুব-উর রশীদ,

বগুড়া ডিবির পরিদর্শক আরলাম আলী, ময়মনসিংহ ডিবির ইনচার্জ শাহ কামাল আকন্দা, কাউন্টার টোরোরিজম বিভাগের পরিদর্শক হুমায়ুন কবির, গুলশান থানার পরিদর্শক আমিনুল ইসলাম, সিটিটিসি পরিদর্শক আজিজুল হক মিঞা, মুমনি খাঁন, আশিকুল আলম চৌধুরী, পাহাড়তলী থানার পরিদর্শক সদীপ কুমার দাস,

কক্সবাজার মডের থানার ওসি ফরিদ উদ্দিন খন্দকার, সাটুরিয়া থানার পরিদর্শক আবুল কালাম, নারায়ণগঞ্জ ডিবির পরিদর্শক গিয়াস উদ্দিন, জগন্নাথপুর থানার এসআই হাবিবুর রহমান, হবিগঞ্জ ছাতিয়াইন পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের এসআই জিয়াউর রহমান, যাত্রবাড়ী থানার এসআই জাকির হোসাইন, সিটিটিসির এসআই আমিনুল ইসলাম, ডিএমপি ট্রাফিক দক্ষিণের সার্জেন্ট শিহাব মামুন, টেকনাফ মডেল থানার এসআই শরিফুল ইসলাম,

শাহপুরী হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির এসআই রাজেশ বড়–য়া, নরসিংদী গোয়েন্দা পুলিশের এসআই অবদুল গাফফার, আশলিয়া থানার এসআই মনিরুজ্জামান মোল্লা, ফতুল্লাহ মডেল থানার এসআই কামরুল হাসান, সিদ্ধিরগঞ্জ থানার এসআই রাসেল আহমেদ, সিআইডি অর্গানাইজড ক্রাইমের এসআই নিউটন কুমার দত্ত, বগুড়া ডিবির এসআই মিন্টু মিয়া,

সিটিটিসির এএসআই টিপু আলম, পাঁচশাইল থানার এএসআই আব্দুল মালেক, সিটিটিসির নায়েক মেহেদী হাসান, গোপালগঞ্জের কনস্টেবল আজিজুল শেখ, নুরুল ইসলাম, সিটিটিসি কনস্টেবল মাসুদ রানা, ইমন হোসেন, মোশাররফ হোসেন, রনি মিয়া, আল আমিন, লেবু মিয়া, মিখায়েল মণ্ডল, রবিউল হাসান রানা এবং র‌্যাব-৭ এর কনস্টেবল সাইফুল ইসলাম।

পিপিএম-সেবা পাচ্ছেন : ঢাকার ডিআইজি (এসবি) মাহবুব হোসেন, খুলনা রেঞ্জের ডিআইজি দিদার আহম্মদ, র‌্যাবের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) ডিআইজি আতিকুল ইসলাম, রাজশাহী রেঞ্জের ডিআইজি এম খুরশীদ হোসেন, পুলিশ সদর দফতরে ডিআইজি হাবিবুর রহমান,

পুলিশ স্টাফ কলেজের পুলিশ সুপার (এসপি) মোহাম্মদ শাহজাহান, নওগাঁর এসপি ইকবাল হোসেন, ডিএমপির গুলশানের উপ-পুলিশ কমিশনার এসএম মোস্তাক আহমেদ খান, চাঁপাইনবাবগঞ্জের এসপি টিএম মোজাহিদুল ইসলাম, ফরিদপুরের এসপি জাকির হোসেন খান, ঠাকুরগাঁওয়ের এসপি মোহা. মনিরুজ্জামান, চুয়াডাঙ্গার এসপি মাহবুবুর রহমান,

কুড়িগ্রামের এসপি মেহেদুল করিম, পঞ্চগড়ের এসপি গিয়াস উদ্দিন আহমদ, রাঙ্গামাটির এসপি আলমগীর কবীর, সিলেটের এসপি মনিরুজ্জামান, পুলিশ সদর দফতরের এআইজি সহেলী ফেরদৌস, সিআইডির বিশেষ পুলিশ সুপার রুমানা আক্তার, ঝালকাঠির এসপি জোবায়েদুর রহমান, সিএমপির উপ-পুলিশ কমিশনার হামিদুল আলম,

জয়পুরহাটের এসপি রশীদুল হাসান, গোপালগঞ্জের এসপি মুহাম্মদ সাইদুর রহমান খান, গাজীপুরের এসপি শামসুন্নাহার, নাটোরের এসপি সাইফুল্লাহ আল মামুন, মাগুরার এসপি খান মুহাম্মদ রেজোয়ান, ঢাকার এসবির বিশেষ পুলিশ সুপার আসাদ উল্লাহ চৌধুরী, মৌলভীবাজারের এসপি মোহাম্মদ শাহ জালাল, সিএমপি উত্তরের উপ-পুলিশ কমিশনার বিজয় বসাক,

ডিএমপি ট্রাফিক উত্তরের ডিসি প্রবীর কুমার রায়, লক্ষ্মীপুরের এসপি আসম মাহাতাব উদ্দিন, খাগড়াছড়ির এসপি আহমার উজ্জামান, ডিএমপি ট্রাফিক পূর্বের উপ-পুলিশের কমিশনার ড. এএইচএম কামরুজ্জামান, রংপুরের এসপি মিজানুর রহমান, লালমনিরহাটের এসপি এসএম রশিদুল হক, বাগেরহাটের এসপি পংকজ চন্দ্র রায়, ভোলার এসপি মোকতার হোসেন,

মাদারীপুরের এসপি সুব্রত কুমার হালদার, বরগুনার এসপি মারুফ হোসেন, পিরোজপুরের এসপি মোহাম্মদ সালাম কবির, মুন্সীগঞ্জের এসপি জায়েদুল আলম, পুলিশ সদর দফতরের এআইজি ফারুক আহমেদ, বান্দরবানের এসপি মোহাম্মদ জাকির হোসেন মজুমদার, ডিএমপির মিরপুরের উপ-পুলিশ কমিশনার মাসুদ আহম্মদ,

ফেনীর এসপি এসএম জাহাঙ্গীর আলম সরকার, পুলিশ সদর দফতরের এআইজি নাসিয়ান ওয়াজেদ, সিএমপি পশ্চিমের উপ-পুলিশ কমিশনার ফারুক উল হক, ঝিনাইদহের এসপি হাসানুজ্জামান, ডিএমপি ওয়ারীর উপ-পুলিশ কমিশনার মোহাম্মদ ফরিদ উদ্দিন, নড়াইলের এসপি মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন, নীলফামারীর এসপি মুহাম্মদ আশরাফ হোসেন, পটুয়াখালীর এসপি মোহাম্মদ মাইনুল হাসান,

ডিএমপি লালবাগের উপ-পুলিশ কমিশনার মোহাম্মদ ইব্রাহিম খান, হাবগঞ্জের এসপি মোহাম্মদ উল্যা, ঢাকা এসবির বিশেষ পুলিশ সুপার আবদুল্লাহ আল জহির, মানিকগঞ্জের এসপি রিফাত রহমান শামীম, পুলিশ সদর দফতরের এআইজি নেছার উদ্দীন আহমেদ, ডিএমপি উত্তরার উপ-পুলিশ কমিশনার নাবিদ কামাল শৈবাল, মেহেরপুরের এসপি মোহাম্মদ মোস্তাফিজুর রহমান,

পুলিশ সদর দফতরের এআইজি ড. মো. মঞ্জুরে আলম প্রামানিক, রাজবাড়ীর এসপি আসমা সিদ্দিকা মিলি, ডিএমপি আইএডি উপ-পুলিশ কমিশনার মোহাম্মদ আশিকুর রহমান, পুলিশ সদর দফতরের এসপি মোহাম্মদ জিয়াউর রহমান, শেরপুরের এসপি কাজী আশরাফুল আজীম, শরীয়তপুরের এসপি আবদুল মোমেন, কুষ্টিয়ার এসপি এসএম তানভীর আরাফাত,

পুলিশ সদর দফতরের এসপি মোহাম্মদ খোরশেদ আলম, পুলিশ সদর দফতরের এসপি ছাইদুল হাসান, পুলিশ সদর দফতরের এসপি শহীদুল ইসলাম, কেন্দ্রীয় পুলিশ হাসপাতালের এসপি ডা. এসএম শহীদুল ইসলাম, ডিএমপির এসপি আসাদুজ্জামান, পিবিআই মৌলভীবাজারের এসপি শাহাদাত হোসেন, এসপি পদে পদোন্নতিপ্রাপ্ত মাসুম আহমেদ ভুঞা,

এসএম আশরাফুল আলম, আফম আল কিবরিয়া ও মনিরুজ্জামান ফকির, ঢাকা জেলা অপরাধ উত্তরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ সাইদুর রহমান, পুলিশ সদর দফতরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এম নাজেম আহমেদ, আফম নিজাম উদ্দিন, মাহবুব উজ জামান, গাজীপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ রাসেল শেখ,

নীলফামারীর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার অশোক কুমার পাল, ডিএমপি ওয়ারী বিভাগের অতিরিক্ত উপ-পুলিশের কমিশনার মোহাম্মদ নুরুল আমীন, ঝালকাঠির অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এসএম মাহমুদ হাসান, রাষ্ট্রপতির কার্যালয়ের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এএইচএম শাহাদাত হোসাইন, দিনাজপুরের অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার সুশান্ত সরকার,

র‌্যাব সদর দফতরের অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার মোহাম্মদ নুর আলম, পুলিশ সদর দফতরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মাসুক মিয়া, সুদীপ্ত সরকার, মোস্তফা কামাল, মুন্সীগঞ্জের শ্রীনগর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মাকসুদা লিমা, ডিএমপি ধানমণ্ডি জোনের অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার আবদুল্লাহিল কাফী,

কুষ্টিয়া সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার নুরানী ফেরদৌস দিশা, এসএমপি অপরাধ দক্ষিণের অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার জ্যোর্তিময় সরকার, ঢাকা সিটি এসবির অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মিজানুর রহমান,

ময়মনসিংহের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এসএ নেওয়াজী, ডিএমপি এয়ারপোর্ট জোনের সিনিয়র সহকারী পুলিশ কমিশনার মিজানুর রহমান, ডিএমপির কোতোয়ালি জোনের সিনি. সহ. পুলিশ কমিশনার বদরুল হাসান, ডিএমপির ডিবি দবিভাগের সিনি. সহ. পুলিশ কমিশনার আহসানুজ্জামান,

সিআইডির সিনি. সহ. পুলিশ কমিশনার মোহাম্মদ মাহমুদুল ইসলাম তালুকদার, নাজিম উদ্দিন আল আজাদ, পিরোজপুরের নেছারাবাদ সার্কেলের সিনি. সহকারী পুলিশ কমিশনার কাজী শাহনেওয়াজ, এসএসএফেরন সিনিয়র এ এসপি আবু নোমান, ডিএমপির সিটিটিসির সিনি. সহ. পুলিশ কমিশনার ইশতিয়াক আহমেদ ও সাইদ নাসিরুল্লাহ,

ডিএমপির মতিঝিল জোনের সিনি. সহ. পুলিশ কমিশনার মিশু বিশ্বাস, পুলিশ সদর দফতরের সহকারী পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আবু তাহের, ইশরাত জাহান ও ফারহানা ইয়াসমিন, সিআইডির সহকারী পুলিশ সুপার সুমন কুমার দাস, খাগড়াছড়ির এপিবিএনএর সহকারী পুলিশ সুপার মোস্তফা মঞ্জুর,

ঢাকা মোহাম্মদপুরের এসপিবিএন-২ এর সহকারী পুলিশ সুপার জালাল উদ্দিন, র‌্যাব সদর দফতরের এএসপি আবু মাহরুফ মো. শাহনুর, এনটিএমসির পুলিশ পরিদর্শক মোহাম্মদ হাবিবুর রহমান, এসবির পলিশ পরিদর্শক একেএম সাহাবুদ্দিন শাহীন, এসবির পুলিশ পরিদর্শক একেএম দৌলত আকবর,

আইসিটির তদন্ত কর্মকর্তা পুলিশ পরিদর্শক মোহাম্মদ আমিনুর রশিদ, ঢাকা জেলা গোয়েন্দা শাখা উত্তরের মোহাম্মদ আবুল বাসার, রংপুর জেলার পুলিশ পরিদর্শক আশিকুর রহমান, সিএমপি সদরঘাট থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ নেজাম উদ্দিন, পুলিশ সদর দফতরে সংযুক্ত পুলিশ পরিদর্শক সাইফুল ইসলাম খালিদ,

রাজধানীর মোহাম্মদপুর থানার অফিসার ইনচার্জ জামাল উদ্দিন মীর, ধানমণ্ডি মডেল থানার পুলিশ পরিদর্শক পারভেজ ইসলাম, খিলগাঁও থানার অফিসার ইনচার্জ মশিউর রহমান, ডিএমপির বিমানবন্দর থানার অফিসার ইনচার্জনুরে আজম মিয়া, তুরাগ থানার অফিসার ইনচার্জ নুরুল মোত্তাকিন, রংপুর জেলা পিবিআইয়ের পুলিশ পরিদর্শক আবুল হাসান কবির,

ময়মনসিংহ জেলা পিবিআইয়ের পুলিশ পরিদর্শক আবুর কাশেম, ভৈরব রেলওয়ে থানার অফিসার ইনচার্জ আবদুল মজিদ, ঢাকা এসবির এসআই মহিউদ্দিন, আইসিটির তদন্ত কর্মকর্তা এসআই আনিসুর রহমান, মনিকগঞ্জের সিঙ্গাইর থানার এসআই আনোয়ার হোসেন, নরসিংদী জেলা গোয়েন্দা শাখার এসআই রুপন কুমার সরকার, চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা গোয়েন্দা শাখার এসআই আবু আবদুল্লাহ জাহিদ,

সিলেটের ওসমানীনগর থানার এসআই মমিনুল ইসলাম, র‌্যাব সদর দফতরের হাবিলদার আফতাবুজ্জামান, পুলিশ সদর দফতরের এএসআই শাহ আলম, এএসআই কামরুল ইসলাম, নোয়াখালী পিটিসির এএসআই মো. সুমন,

টাঙ্গাইল জেলা গোয়েন্দা শাখার কনস্টেবল শামসুজ্জামান, র‌্যাব সদর দফতরের কর্পোরাল মামুনুর রশীদ, পুলিশ সদর দফতরের কনস্টেবল রেজাউল করিম এবং আলমগীর হোসেন।

gb
মন্তব্য
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More