মন্ত্রিসভায় কক্সবাজার থেকে শেষ হাসি কার

240
gb

বিশেষ প্রতিনিধি, কক্সবাজার ||
বিজয়রের মাসে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের বিজয় এসেছে। এরই মধ্যে নবনির্বাচিত সংসদ সদস্যরা শপথ গ্রহণ করেছেন। সোমবার মন্ত্রিসভার শপথ। এমন সময়ে কক্সবাজারের রাজনৈতিক অঙ্গনে এবং চায়ের টেবিলে ঝড় উঠছে নতুন মন্ত্রিসভায় কক্সবাজার থেকে চমক আসছে। এবার একজন পুর্ণ বা প্রতিমন্ত্রি এবং একজন টেকনোক্রেট মন্ত্রি হতে পারেন। আসলে কি সত্যি তাই? পর্যটন নগরি হিসেবে এবং মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার অগ্রাধিকার অনেক উন্নয়ন প্রকল্প কক্সবাজারে চলমান রয়েছে। এসব দেখভালসহ সার্বিক উন্নতিতে কক্সবাজারের একজন যোগ্য মানুষকে মন্ত্রি হিসেবে দেখতে চান কক্সবাজারবাসি। পাশাপাশি একজন টেকনোক্রেট মন্ত্রিও।
কে আসবেন মন্ত্রিসভায় এবার। কে হবেন টেকনোক্রেট কোটায় মন্ত্রি। মন্ত্রি হিসেবে কক্সবাজার-১ আসনের সাংসদ জাফর আলম ও কক্সবাজার-২ আসনের সাংসদ আশেক উল্লাহ রফিক আসতে পারেন। অপরদিকে টেকনোক্রেট মন্ত্রি হিসেবে উঠে আসছেন প্রাক্তন বৃহত্তর চট্টগ্রাম জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ,বাংলাদেশ ছাত্রলীগ ,যুবলীগ ও কৃষক লীগের প্রাক্তন সহ সভাপতি, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের জাতীয় কমিটির মাননীয় সদস্য, বঙ্গবন্ধুর ঘনিষ্ট সহচর ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার আস্তাভাজন জয়বাংলা বাহিনী৭১ এর প্রধান বীর মুক্তিযোদ্ধা কামাল হোসেন চৌধুরী ও সাংসদ বীর মুক্তিযোদ্ধা খোরশেদ আরা হকের নাম। এই কোটায় মন্ত্রি হতে পারেন বীর মুক্তিযোদ্ধা কামাল হোসেন চৌধুরী! উল্লেখ্য যে, ১৯৭৫ সালে আগষ্ট মাসে বঙ্গবন্ধু মরহুম শেখ ফজলুল হক মনি, মরহুম আব্দুর রাজ্জাক, বর্তমান বাণিজ্য মন্ত্রী তোফাইল আহমেদ এর মাধ্যমে ডেকেছিল কামাল চৌধুরীকে যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রীর দ্বায়িত্ব নেওয়ার জন্য, কিন্ত সু দূর কক্সবাজার থেকে রওনা দেওয়ার এক দিন আগে ঘাতকরা বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করে। কামাল চৌধুরী কি সত্যিই শেষ বয়সে চমক দিতে যাচ্ছেন সবাইকে?
কক্সবাজাবাসি সৎ, যোগ্য ও পরিচ্ছন্ন রাজনীতিকদের মন্ত্রিসভায় অগ্রাধিকার এবং মূল্যায়ন করার জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার কাছে বিনীত আহবান করেন।

এই ওয়েবসাইটটি আপনার অভিজ্ঞতা উন্নত করতে কুকি ব্যবহার করে। আমরা ধরে নিচ্ছি যে আপনি এটির সাথে ঠিক আছেন তবে আপনি চাইলে অপ্ট-আউট করতে পারেন Accept আরও পড়ুন