এবার ওসামা বিন লাদেনের ছেলেকে ধরতে ব্রিটিশদের গোপন মিশন

1,513
gb

এবার ওসামা বিন লাদেনের ছেলে হামজা বিন ওসামা বিন লাদেনকে ধরার জন্য একটি অতি গোপন মিশন শুরু করেছে ব্রিটিশ সশস্ত্র বাহিনীর সদস্যদের সমন্বয়ে গঠিত একটি দল। তারা আল-কায়েদার এই নতুন প্রধানকে জীবিত বা অথবা মৃত ধরতে চায়।

দলটির নেতৃত্বে আছে ব্রিটিশ সেনাবাহিনীর স্পেশাল এয়ার সার্ভিস (এসএএস) ইউনিট।

পাকিস্তানে ২০১১ সালে মার্কিন নৌবাহিনীর এক অভিযানে তার বাবা ওসামা বিন লাদেনের মৃত্যুর পর থেকেই ২৮ বছর বয়সী হামজা বিন লাদেন পশ্চিমা দেশ অর্থাৎ ইউরোপ-আমেরিকার দেশগুলোতে হামলা চালানোর পরিকল্পনা করছেন বলে জানিয়েছেন গোয়েন্দারা।

তার বাবার মৃত্যুর মাত্র কয়েক সপ্তাহ আগে হামজা আত্মগোপনে চলে যান। এরপর দুই বছর আগে হামজা এক ভিডিও বার্তায় ইউরোপ-আমেরিকার দেশগুলোতে যেসব জঙ্গিরা একাকী হামলা চালিয়েছে তাদের প্রশংসা করে পুনরায় দৃশ্যপটে হাজির হন। ইন্টারনেটে প্রকাশিত ওই ভিডিও বার্তায় হামজা পশ্চিমা সভ্যতার ওপর আরো হামলা চালানোর আহবান জানান।

আগে ধারণা ছিল হামজা পাকিস্তানে আত্মগোপন করে আছেন। কিন্তু নতুন গোয়েন্দা তথ্যমতে, তিনি সিরিয়ায় চলে গেছেন। মার্কিন নেতৃত্বাধীন সন্ত্রাসবিরোধী পশ্চিমা সামরিক জোট তাকে মোস্ট ওয়ান্টেড ইসলামি সন্ত্রাসীদের শীর্ষ ১০ জনের তালিকায় রেখেছে। হামজাকে সহ ওই ১০ জনকে ধরার জন্য পশ্চিমারা ‘অপারেশ শেডার’ নামের এই অতি গোপন অভিযান চালাচ্ছে।

ওসামা লাদেনকে হত্যার সময় তার বাঙ্কারে পাওয়া একটা চিঠিতে জানা যায়, ওসামা তার ছেলে হামজাকে আল-কায়েদার নেতৃত্ব গ্রহণের জন্য উপযোগী করে গড়ে তুলছিলেন। আর গোয়েন্দাদেরও বিশ্বাস হামজারও চুড়ান্ত লক্ষ্য আল-কায়েদার নেতৃত্ব দেওয়া।

এসএএস এর ৪০ সদস্যের একটি দল এখন সিরিয়ায় হামজা বিন ওসামা বিন লাদেন সহ আল কায়েদার ওই শীর্ষ ১০ নেতাকে ধরার জন্য সক্রিয় আছে বলে ব্রিটিশ দৈনিক দ্য ডেইলি স্টারকে জানিয়েছে এসএএস এর একটি সিনিয়র সূত্র।

মার্কিন সেনাদের সহায়তায় ব্রিটিশ আর্মির এসএএস ইউনিটের সদস্যরা উচ্চ-প্রযুক্তি, গোয়েন্দা বিমান, ড্রোন, ভয়েস রিকগনিশন সিস্টেম ব্যবহার করে হামজার অবস্থান সনাক্ত করার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। ফ্রি সিরিয়ান আর্মিও তাদেরকে সহায়তা করছে।