Bangla Newspaper

গাইবান্ধায় হরিজন সম্প্রদায়ের মানববন্ধন ও সমাবেশ

28

 ছাদেকুল ইসলাম রুবেল,গাইবান্ধা ঃ গাইবান্ধায় বিশ্ব মানবিক মর্যাদা দিবস পালিত হয়েছে। জাত-পাত ও পেশাভিত্তিক বৈষম্য প্রতিরোধে বৈষম্য বিলোপ আইন দ্রুত বাস্তবায়ন করতে হবে এই দাবিতে মানববন্ধন ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। বুধবার অবলম্বন, বাংলাদেশ দলিত ও বঞ্চিত জনগোষ্ঠী অধিকার আন্দোলন (বিডিইআরএম), বাংলাদেশ রবিদাস ফোরাম, বাংলাদেশ হরিজন ঐক্য পরিষদ, হরিজন যুব ঐক্য পরিষদ, বাংলাদেশ রবিদাস উন্নয়ন পরিষদ ও জনউদ্যোগের আয়োজনে গাইবান্ধা শহরের ডিবি রোডে এ কর্মসূচি পালিত হয়। মানববন্ধন ও সমাবেশ চলাকালে বক্তব্য দেন, পরিবেশ আন্দোলন গাইবান্ধার সভাপতি ওয়াজিউর রহমান রাফেল, জেলা জেএসডি সভাপতি লাসেন খান রিন্টু, জনউদ্যোগের সদস্য সচিব প্রবীর চক্রবর্তী, হরিজন ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক সন্তোষ বাশফোর, হরিজন যুব ঐক্য পরিষদের নেতা রাজেশ বাশফোর, বিডিআরইএম-এর সাধারণ সম্পাদক খিলন রবিদাস, রবিদাস উন্নয়ন পরিষদের সভাপতি সন্তোষ রবিদাস, বাংলাদেশ রবিদাস ফোরামের সভাপতি সুনীল রবিদাস, শেফালী রানী দেবনাথ, শ্যামলী রবিদাস, হরিলাল রবিদাস প্রমুখ। বক্তারা বলেন, বাংলাদেশের দলিত সম্প্রদায় জাত-পাত অস্পৃশ্যতার কারণে সবচেয়ে পশ্চাৎ জনগোষ্ঠী হিসেবে পরিচিত। আধা কোটির ওপরে দলিত জাত-পাতের কারণে শত শত বছর ধরে অর্থনৈতিক, সামাজিক ও রাজনৈতিকভাবে শোষিত নিপীড়নের শিকার। জন্ম থেকে মৃত্যু পর্যন্ত অস্পৃশ্যতার গ্লানি নিয়ে তাদের সমাজে সবচেয়ে নিচু শ্রেণির মানুষের পরিচয়ে পরিচিত করে এবং তারা বঞ্চিত হয় মৌলিক নাগরিক সুবিধা থেকে। পেশাজীবী পরিচ্ছন্নকর্মীরা শিক্ষিত হলেও জাত-পাত বৈষম্যের কারণে অন্য পেশায় অংশগ্রহণ বা টিকতে পারে না। যথেষ্ট যোগ্য বা শিক্ষিত হলেও সরকারি বা বেসরকারি চাকরিতে আবেদনকারীকে শুধু পরিচ্ছন্নতাকর্মী পদে যোগ্য বলে ধরা হয়। দলিতদের শিক্ষা ও যোগ্যতা অনুযায়ী চাকরি দিতে হবে, সরকারি ও বেসরকারি যেকোনো চাকরিতে প্রবেশের ক্ষেত্রে দলিতদের প্রতি জাত- পাতভিত্তিক বৈষম্য বন্ধ করতে হবে। হরিজনদের হোটেল-রেস্টুরেন্টে প্রবেশে বাধা দেওয়া হয়। তাদের খাবার দেওয়া হয় খবরের কাগজে বা পলিথিনে মুড়ে। রেললাইন, রাস্তা, ময়লা আবর্জনার পাশে বসে খাবার খেতে অথবা হরিজনদের নিজস্ব আলাদা কাপ, গ্লাস ও প্লেট নিয়ে হোটেলের সামনে দাঁড়িয়ে খাবার গ্রহণ করতে বাধ্য করা হয়। এর প্রতিবাদ করলে হোটেল মালিক শ্রমিক দ্বারা চরম নির্যাতনের স্বীকার হতে হয়। বক্তারা আরো বলেন, বাংলাদেশ দলিত জনগোষ্ঠীর প্রতি সব বৈষম্য অবসান ঘটাতে আইন কমিশন সুপারিশকৃত বৈষম্য বিলোপ আইন-২০১৪ প্রণয়ন করতে হবে। দলিতদের জন্য বিকল্প কর্মসংস্থান সৃষ্টি করতে হবে। বিকল্প পেশায় সক্ষমতা ও সুযোগ সৃষ্টি না হওয়া পর্যন্ত সরকারি, আধা সরকারি ও স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠান, সিটি করপোরেশন, পৌরসভায় পরিচ্ছন্নতাকর্মীর পেশায় অগ্রাধিকার দিতে হবে। দলিত জনগোষ্ঠীকে বিকল্প পেশায় উৎসাহিত করতে তাদের জন্য কারিগরি প্রশিক্ষণের সুযোগ বাড়ানো, দলিত শিক্ষার্থীদের শিক্ষা থেকে ঝরে পড়া রোধকল্পে সরকারকে কার্যকরী উদ্যোগ গ্রহণ এবং এই জনগোষ্ঠীর ছাত্র-ছাত্রীদের বিশেষ উপবৃত্তি প্রদান, সরকারি চাকরিতে দলিত জনগোষ্ঠীর জন্য কোটা ব্যবস্থা প্রবর্তন। দেশের সব জেলার দলিত জনগোষ্ঠীর আবাসন সমস্যা সমাধানে বিশেষ পরিকল্পনা গ্রহণ করার দাবি জানান।

Comments
Loading...