পলাশবাড়ীতে পানি উন্নয়ন বোর্ডের বাধের মাটি কাটায় হুমকির মুখে ৫০ মিটার বাধ

250
gb

ছাদেকুল ইসলাম রুবেল,গাইবান্ধা ঃ

সরকারী নির্দেশ উপেক্ষা করে গাইবান্ধার পলাশবাড়ীতে পানি উন্নয়ন বোর্ডের বাধ কেটে ট্রাক্টর দিয়ে মাটি সরবরাহ অব্যাহত রেখেছে বেশ কয়েকটি ইটভাটা মালিক।ফলে হুমকির মুখে পরেছে করতোয়া নদীর উপর নির্মিত পানি উন্নয়ন বোর্ডের ৫০ মিটার বাধ।এলাকাবাসীর অভিযোগের প্রেক্ষিতে দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণের আশ্বাস দিয়েছেন জেলা নবাগত জেলা প্রশাসক সেবাষ্টিন রেমা। সরেজমিন তথ্যানুসন্ধানে জানানায় গত মাসে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে শহরের গুরুত্বপুর্ন সড়ক মহাসড়ক – ও পানি উন্নয়ন বোর্ডের বাধের উপর সকল প্রকার ট্রাক্টর ও ইন্ধিসঢ়;জন চালিত কাকরা ভটভটি চলাচলের উপর স্থায়ী নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে ব্যাপক প্রচারণা চালানো হয়। কিন্ত বিধিবাম! প্রচার প্রচারনার পর গুরুত্বপুর্ন সড়ক মহাসড়ক ও বাধে এসব যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। সম্প্রতি বেশ কয়েকটি ইট ভাটা মালিক করতোয়া বাধ কেটে ট্রাক্টর দিয়ে মাটি আনা নেওয়ার ফলে বাধের ৫০ থেকে ১০০ মিটার জায়গা চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পরেছে। গত কয়েক দিন আগে এলাকাবাসী ও সংবাদকর্মীরা উপজেলা সহকারী কমিশনার ভুমি আরিফ হোসেনের হস্তক্ষেপ কামনা করলে তিনি ব্যবস্থা গ্রহনের নামে সময় ক্ষেপন করেন। ভুক্তভোগীরা দুই দিন অতিবাহিত হলে আবারো সহকারী কমিশনারের হস্তক্ষেপ কামনা করলে তিনি বিষয়টি ইউ এন ও পলাশবাড়ীকে অবগত করার কথা বলেন। পলাশবাড়ী উপজেলা নির্বাহী অফিসার মেজবাউল আলম জানান আমি এসি ল্যান্ডকে ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ দিয়েছি। জেলা পানি উন্নয়ন বোর্ডের প্রধান প্রকৌশলী জানান, ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য ইতোমধ্যেই প্রশাসনের সহযোগিতা চাওয়া হয়েছে। গাইবান্ধা জেলার নবাগত জেলা প্রশাসক সেবাষ্টিন রেমা জানান বাধের উপর এসব যানবাহন চলাচল বন্ধ করার জন্য ইউএনও পলাশবাড়ীকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এলাকাবাসীর অভিযোগ বাধের উপর এসব যানবাহন চলাচল বন্ধ না করা হলে আগামীতে নদ নদীর পানি বৃদ্ধি হলে বাধ ভেঙ্গে লক্ষ লক্ষ মানুষ পানি বন্দি হয়ে পরবে।