এক পায়ে ১০ কিলোমিটার ম্যারাথন দৌড়!

168
gb

জিবি নিউজ24 ডেস্ক //

ম্যারাথন দৌড় এমনিতেই ভীষণ কষ্টকর। প্রচুর প্রাণশক্তির প্রয়োজন হয়। দুই পা ওয়ালা স্বাভাবিক মানুষেরাই হাঁপিয়ে ওঠেন। কিন্তু ভারতের এই যুবক যেন অন্য ধাতুতে গড়া। এক পা নিয়ে তিন দুই পায়ের অধিকারীদের সঙ্গে লড়াই চালালেন। লড়াইয়ের মাঝে তিনি দুই-একবার হোঁচট খেলেন ঠিকই। কিন্তু হাল ছাড়লেন না। একেবারে পায়ে পা মিলিয়ে ১০ কিমি ম্যারাথন ছুটলেন। দৌড় শেষ হওয়ার পর আবার ক্যামেরার সামনে দিলেন নাচ! এটাও কি সম্ভব!

অবিশাস্য এই ঘটনা ঘটিয়েছেন ভারতের পুনের বাসিন্দা ২৪ বছর বয়সী যুবক জাভেদ রমজান। পেশাগত দিক দিয়ে তিনি একজন হুইলচেয়ার বাস্কেটবল খেলোয়াড়। বর্তমানে তার দৌড় আর দৌড় শেষে নাচের ভিডিও ইন্টারনেটে ভাইরাল। ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, ১০ কিমির ম্যারাথন শেষ করার আনন্দে তিনি আনন্দে আত্মহারা হয়ে নাচছেন। এক পায়ে তাঁর সেই নাচের স্টেপ সত্যিই দেখার মতো।

জীবনে অনেক সময়ই অনেক কিছুতে আমাদের অনেক না পাওয়ার আক্ষেপ থাকে। অনেক সময়ই আমরা কোনো কাজে এগিয়ে যাওয়ার আগে ভয় পাই। আত্মবিশ্বাসের অভাবও হয়। মনের মধ্যে খচখচানি থাকে, আদৌ কাজটা আমি বা আমরা করতে পারব তো? না পারলে সমাজের কাছ থেকে টিটকিরি শোনার একটা ভয়ও কাজ করে। সব শেষে হয়তো দেখা যায়, আমরা সেই কাজটা করার জন্য এক পা এগিয়েও তিন পা পিছিয়ে আসি। কিন্তু জাভেদ সকল ভয় ও সংশয়কে জয় করার উদাহরণ সৃষ্টি করলেন।

জাভেদ গণমাধ্যমের কাছে বলেছেন, ‘যে কাজটা আমি করতে পারবনা বলে মনে করে মানুষ, আমি সেই কাজটাই করে দেখাই। আমি বাইক স্টান্টও করি। অনেকবার ব্যর্থ হই; কিন্তু ওইসব ব্যর্থতা থেকেই আমি শিক্ষা নেই। আমার পরিবারের কেউ শিক্ষিত নয়। আমিই একমাত্র গ্যাজুয়েট। এই মুহুর্তে আমি সিভিল সার্ভিস পরীক্ষার প্রস্তুতি নিচ্ছি।’

২১ কিমি, ১০ কিমি ও ছয় কিমি ম্যারাথনের আয়োজন করেছিলেন উদ্যোক্তারা। প্রায় ২৫০০ প্রতিযোগী অংশ নিয়েছিলেন তিনটি বিভাগের ম্যারাথনে। মূলত কেন্দ্রীয় সরকারের স্বচ্ছ ভারত অভিযান- প্রজেক্ট নিয়ে সচেতনতা বাড়াতেই এই ম্যারাথন আয়োজন করা হয়েছিল। ম্যারাথন শেষেও হাঁপিয়ে উঠেননি জাভেদ। নীল জার্সি পরে রীতিমতো নাচ শুরু করেন তিনি! আয়োজকদের সঙ্গে উপস্থিত দর্শকরাও তার শারীরিক ভারসাম্য দেখে চমকে ওঠেন। আর সোশ্যাল মিডিয়ায় জাভেদকে দেখা হচ্ছে অদম্য মনোভাবের প্রতীক হিসেবে।

gb
মন্তব্য
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More