পলাশবাড়ী ফি আদায় কে কেন্দ্র করে শিক্ষক – শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের মধ্যে উত্তেজনা

284
gb

 ছাদেকুল ইসলাম রুবেল ,গাইবান্ধা //

পলাশবাড়ী পঃ নয়ানপুর উচ্চ বিদ্যালয়ে পরীক্ষা ফি আদায় কে কেন্দ্র করে শিক্ষক – শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের মধ্যে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। ঘটনার পর থেকে বিদ্যালয়ে দফায় দফায় অস্ত্রের মহরা অব্যহত রয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে শনিবার দুপুরে উপজেলার কিশোরগাড়ী ইউপির পঃ নয়ানপুর উচ্চ বিদ্যালয়ে। সরেজমিন তথ্যানুসন্ধানে জানাযায়,ঐ বিদ্যালয়ে ১০ম শ্রেনীর নির্বাচনী পরিক্ষার ফি নিদ্ধারত করা হয় ৩০০টাকা।বিদ্যালয়ের নির্দেশনা অনুযায়ী অধিকাংশ শিক্ষার্থী তাদের পরীক্ষার ফি প্রদান করেন। অর্থাভাবে দশম শ্রেনীর ছাত্র শাওন মিয়া ৩০০ টাকার স্থলে ২৫০ টাকা পরীক্ষার ফি জমা নেওয়ার জন্য শ্রেনী শিক্ষক শহিদুল ইসলাম কে অনুরোধ জানান। এসময় শ্রেনী শিক্ষক পরীক্ষার্থী শাওনের কোন না শুনেই তাকে মারপিট করে পরীক্ষার রুম থেকে বের করে দেয়।এসময় শিক্ষক শহিদুল ইসলাম ও রেজাউল করিম অন্য শিক্ষার্থীদের নির্দেশ দেন শাওন কে মারপিট করা জন্য। খবরপেয়ে তাৎক্ষনিক শাওনের পরিবার ও এলাকাবাসী অস্ত্র সস্ত্রে সজিত হয়ে বিদ্যালয় মাঠে প্রবেশ করে অভিযুক্ত শিক্ষক কে খুজতে থাকে। এসময় ভয়ে সাধারন শিক্ষার্থীরা দিকবিদিক ছুটতে থাকে। ঘটনার পর থেকে বিদ্যালয়ে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। এ বিষয়ে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আজিজুর রহমান বলেন আমি বিদ্যালয়ে না থাকায় এমন পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছিল। বর্তমানে শান্তি পুর্ন অবস্থা বিরাজ করছে। ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি ও সাবেক উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আলহাজ্জ্ব একেএম মোকছেদ চৌধুরী বিদুৎ বলেন বিষয়টি দুখঃ জনক। উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মহাতাব হোসেন জানান বিষয়টি আমি অবগত নেই তবে ক্ষতিয়ে দেখে ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।