অ্যাসিড আক্রান্ত লক্ষ্মীর ভূমিকায় দীপিকা পাডুকোন

384
gb

জিবি নিউজ24 ডেস্ক //

১৫ বছর বয়সে অ্যাসিড দ্বারা আক্রান্ত হন লক্ষ্মী আগরওয়াল, যার ফলে অনেকগুলো অস্ত্রোপচারের মধ্যে দিয়ে যেতে হয় তাঁকে। পরে তাঁর মতো অ্যাসিড আক্রান্তদের সাহায্যের জন্য হাত বাড়িয়ে দেন তিনি। প্রচার করেন অ্যাসিড আক্রমণের বিরুদ্ধে। ২০১৪ সালে আমেরিকার স্টেট ডিপার্টমেন্ট থেকে ‘ইন্টারন্যাশানাল উইমেন অব কারেজ’ অ্যাওয়ার্ডও পান তিনি। লক্ষ্মীকে সম্মানিত করেন আমেরিকার প্রাক্তন ফার্স্ট লেডি মিশেল ওবামা।

এবার তাঁর জীবন নিয়ে তৈরি হচ্ছে ছবি, নাম ভূমিকায় এবং প্রযোজনায় দীপিকা পাড়ুকোন, পরিচালনায় মেঘনা গুলজার।

ছবি নিয়ে কথা বলতে গিয়ে দীপিকা মুম্বাই মিররকে বলেন, গল্পটা শুনে আমি মুগ্ধ হয়ে গিয়েছিলাম। শুধু হিংসা নয়, যে পরিমাণ সাহস ও শক্তি, আশা এবং জয় রয়েছে প্লটটাতে, তা অনবদ্য। এটা আমার ওপর প্রভাব ফেলেছে ব্যক্তিগত এবং সৃজনশীলভাবে। আর আমি এগোতে চাই, তাই প্রযোজক হওয়ার সিন্ধান্ত নেওয়া।

মেঘনা গুলজারের শেষ ছবি ‘রাজি’ সমালোচকদের প্রশংসা কুড়িয়েছিল। তাঁর মনে হয়েছে, লক্ষ্মী আগরওয়ালের কাহিনি সমাজে সচেতনতা বাড়াতে সাহায্য করবে। মুম্বাই মিরর-কে তিনি বলেন, লক্ষ্মীর গল্পকে লেন্সের সামনে রেখে আমরা অ্যাসিড আক্রমণ ও হিংসার ঘটনাগুলো কেন হয় তার বিশ্লেষণ করতে চাইছি। আর এটাই গল্পটাকে সময়ের উপযুক্ত করে তুলবে। পরিবর্তনের তো প্রথম পদক্ষেপটাই হলো সচেতনতা।

দীপিকাকে ছবির মুখ্য চরিত্রকে নেওয়ার ব্যাপারে মেঘনা আরো বলেন, স্বাভাবিকভাবেই আমি ভীষণ আত্মবিশ্বাসী যে দীপিকা চরিত্রটার প্রতি সুবিচার করবেন। তা ছাড়াও ওর চেহারাটা লক্ষ্মীর চরিত্রটা আমি যেমন ভেবেছিলাম তার সঙ্গে মিলে যায়। আমি অত্যন্ত কৃতজ্ঞ ও উৎসাহিত যে ও স্বতঃস্ফূর্তভাবে রাজি হয়েছে চরিত্রটা করতে।