ঝিনাইদহে তিন শিশু যৌন নিপীড়নের শিকার

197
gb

ঝিনাইদহ প্রতিনিধিঃ
ঝিনসাইদহ সদর উপজেলার লাউদিয়া গ্রামে তিন শিশুকে যৌন নিপীড়নের অভিযোগ পাওয়াগেছে। এ ঘটনায় ঝিনাইদহ সদর থানায় একটি অভিযোগ করেছেন পাপিয়া খাতুন নামে একনারী। এদিকে থানায় অভিযোগ দেওয়ার পর থেকেই লম্পট গাঁঢাকা দিয়ে আছে। অভিযোগে
পাপিয়া খাতুন উল্লেখ করেছেন লাউদিয়া গ্রামের কলিম উদ্দীনের লম্পট ছেলে আলাউদ্দীন (৫২)তার দুই মেয়ে ও দেবরের এক শিশু কন্যাকে মিষ্টি খেতে দিয়ে শরীরের স্পর্শকাতর স্থানে হাতদেয়। এই কাজ সে দীর্ঘদিন ধরেই করে আসছে। এর মধ্যে বাদীর ১১ বছর বয়সী এক শিশুকে গত৯ জুলাই ধর্ষনের চেষ্টা করে। ওই সময় শিশুটিকে চিকিৎসকের কাছ থেকে চিকিৎসাও করানোহয়। কিন্তু তাকে যে ধর্ষন করেছে এ কথা অভিভাবকদের মাথায় আসেনি, যোগ করেন নির্যাতিতশিশুর পিতা। পরবর্তীতে লম্পট আলাউদ্দীন একের পর এক তিন শিশুকে যৌন নিপীড়ন করতেথাকলে তারা রোববার রাতে ঝিনাইদহ সদর থানায় লিখিত অভিযোগ করেন। বাদীরঅভিযোগটি তদন্ত করতে এসআই ইউনুস আলীকে ওসি নির্দেশ দেন। বাদীনির অভিযোগ,কিছুদিন আগে তার দেবরের ৫ বছরের শিশু কন্যাটি বাড়িতে এসে কান্নাকাটি করতে থাকলে তারকাছ থেকেই আমরা ঘটনাটি জানতে পারি। লাউদিয়া গ্রামের শুকুর আলী, হাসিনা বেগম ওশহিদুল ইসলাম অভিযোগ করেন, আলাউদ্দীনের মতো একজন লম্পট শিশুদের এ ভাবে দিনের পরদিন মিষ্টি খাওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে যে যৌন নিপীড়ন করবে তা আমাদের জানা ছিল না।গ্রামবাসির ঘৃনা আর লজ্জায় মাথা হেট হয়ে যাচ্ছে। তার যৌন নিপীড়নের সুষ্ঠ বিচার দাবীকরেন। বিষয়টি নিয়ে ঝিনাইদহ সদর থানার এসআই ইউনুস আলী জানান, আমরা এ ধরণেরএকটি অভিযোগ পেয়েছি। অভিযুক্তকে ধরার চেষ্টা চালাচ্ছি। তবে সে পালিয়ে আছে। তিনি আশা করে বলেন, দ্রুতই তাকে গ্রেফতার করা সম্ভব হবে।