অফিসিয়ালি বিবাহ-বিচ্ছেদ হলো ‘কুমকুম’ খ্যাত জুহির

588
gb

জিবি নিউজ 24 ডেস্ক//

দীর্ঘ ৮ বছরের বিবাহিত জীবন কাটানোর পর সংসার ভেঙে দেওয়া, বিচ্ছেদ এসব হয়ত খুব একটা সহজ বিষয়ও নয়। তবুও দীর্ঘদিনের সংসারও টিকিয়ে রাখা সম্ভব হলো না ভারতের টেলিভিশন দুনিয়ার দুই জনপ্রিয় মুখ জুহি পারমার ও শচিন শ্রফের। জুহি ও শচিন বিবাহ-বিচ্ছেদের আবেদন করেছিলেন গত বছর ডিসেম্বর মাসে। শেষপর্যন্ত এবছর ৬ জুলাই অফিসিয়ালি তাঁদের বিবাহ-বিচ্ছেদ হয়। আর সেই বিবাহ-বিচ্ছেদ নিয়ে বলতে গিয়ে আবেগতাড়িত হয়ে পড়লেন সচিন।

‘টাইমস অফ ইন্ডিয়া’কে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে শচিন বলেন, বিবাহ-বিচ্ছেদ দুজনের সম্মতির ভিত্তিতে স্বচ্ছতা ও সম্মানের সঙ্গেই হয়েছে। দুর্ভাগ্যজনকভাবেই জুহি এই বিচ্ছেদ নিয়ে জনসমক্ষে নিজের মতামত জানিয়েছে। তবে জুহি আমাকে কোনওদিনই ভালোবাসেনি। প্রথম থেকেই এটা একতরফা সম্পর্ক ছিল। ভালোবাসার চেয়ে ভালো কখনও ভালোবাসা ছাড়াই হারিয়ে যাওয়া। তবে এটা খুব সত্যি কথা যে বিয়েতে ভালোবাসা থাকেনা, সেটা আঘাত পায়। আমি কোনওভাবেই জুহিকে আমায় ভালোবাসাতে পারলাম না।

তিনি আবারও দ্বিতীয় বিয়ের সিদ্ধান্ত নেবেন কিনা এই প্রশ্নের উত্তরে শচিন বলেন, আমি এখন বাস্তববাদী, এখন এটা বিশ্বাস করি যেকোনও সম্পর্ক টেকাতে গেলে দুই তরফেই ভালোবাসা থাকা প্রয়োজন। তবে আমার পক্ষে এখনই দ্বিতীয় বিয়ে নিয়ে ভাবা কখনও সম্ভব নয়। আমি এখনও মানসিকভাবে ভেঙে রয়েছি, কারণ আমি ওকে ভীষণ ভালোবাসতাম। এবার ঈশ্বরই আমার ভাগ্য নির্ধারণ করবেন। আমি আমার পরবর্তী জীবনটা আনন্দের সঙ্গে ও আশা নিয়ে বাঁচতে চাই।’

প্রসঙ্গত কিছুদিন আগে বিয়ে ভাঙা নিয়ে বোম্বে টাইমসের কাছে মুখ খুলেছিলেন জুহি পারমারও। তিনি বলেন, ‘আমি বিয়ের আগে থেকেই শচিনকে চিনতাম। ও বলেছিল ও আমায় ভালোবাসে, আর আমরা তরিঘরি বিয়ে করে ফেলি। সেসময় আমি ওর প্রস্তাবে রাজি হয়ে গিয়েছিলাম, যার মূল কারণ ছিল শচিনের ভালোবাসা। আমি ভেবেছিলাম আমিও ওকে ভালোবেসে ফেলব। তবে আমি এখনও জানি না, যে এটাকে পুরোপুরি ‘লাভ ম্যারেজ’-এর তকমা দেওয়া যায় কিনা? বিয়ের বেশ কয়েকবছর পরই আঘাতটা এলো। আমার কাছে বিশ্বাস করা কষ্টকর ছিল যে এই বিয়েটা আর চালানো যাচ্ছে না। পরে আমি সিদ্ধান্ত নি, এভাবে থাকার চেয়ে আলাদা থাকাই ভালো। সেসময় অভিনেত্রী আশকা গোরাদিয়া আমার পাশে দাঁড়িয়েছিল।

প্রসঙ্গত, শচিন ও জুহির মেয়ের একমাত্র মেয়ে সামাইরা জুহির কাছেই রয়েছেন।