স্মিথ-ওয়ার্নার-ব্যানক্রফট নিষিদ্ধ

337
gb

জিবিনিউজ ডেস্ক:: বল টেম্পারিং বিতর্কে কাঁপছে অস্ট্রেলিয়া, কাঁপছে গোটা ক্রিকেট বিশ্ব। কেপটাউন টেস্টে বল টেম্পারিংয়ের ঘটনায় অজিদের সমৃদ্ধ অতীত ক্রিকেট ইতিহাস-ঐতিহ্য নিয়েও প্রশ্ন উঠে গেছে। এর কড়া মাসুল গুনতে হচ্ছে তিন তারকা স্টিভেন স্মিথ, ডেভিড ওয়ার্নার ও ক্যামেরন ব্যানক্রফটকে। ইতিমধ্যে তাদের নিষিদ্ধ করেছে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া (সিএ)।

সিএর প্রধান নির্বাহী জেমস সাদারল্যান্ড এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।

তবে স্মিথ-ওয়ার্নার-ব্যানক্রফটকে কত দিনের জন্য নিষিদ্ধ করা হয়েছে তা জানা যায় যায়নি। সংবাদ সম্মেলন করে আজ এ বিষয়ে বিস্তারিত জানাবে বোর্ড।

স্মিথদের ন্যক্কারজনক কাণ্ডের পর দক্ষিণ আফ্রিকায় তদন্ত করতে প্রতিনিধি দল পাঠায় সিএ। সেই প্রতিনিধি দলই তদন্ত শেষে তিন ক্রিকেটারকে নিষিদ্ধ করেছে।

তবে এ প্রতারণার সঙ্গে দলের আর কেউ জড়িত নয় বলে দাবি করেছেন সাদারল্যান্ড। এ অপকর্মে আর কোনো সদস্যের সম্পৃক্ততা পাওয়া যায়নি। এ পরিকল্পনার কথা আর কেউ জানতেন না।

যদিও স্মিথের দাবি, দলীয় সিদ্ধান্তে এটি করা হয়েছে।

এ ঘটনায় অস্ট্রেলিয়া কোচ ড্যারেন লেহম্যানের ভবিষ্যৎ নিয়েও সংশয় দেখা দিয়েছিল। তবে তিনি দায়িত্ব চালিয়ে যেতে পারবেন। সিএপ্রধান জানান, চুক্তি মোতাবেক কাজ করে যাবেন লেহম্যান। তাতে কোনো সমস্যা নেই।

স্মিথের পরিবর্তে এখন অস্ট্রেলিয়াকে নেতৃত্ব দেবেন টিম পেইন। আর এ তিনজনের পরিবর্তে দলে ডাক পেয়েছেন ম্যাট রেনশ, জো বার্নস ও অলরাউন্ডার গ্লেন ম্যাক্সওয়েল। ইতিমধ্যে দেশে ডেকে পাঠানো হয়েছে স্মিথ-ওয়ার্নার ও ব্যানক্রফটকে।

কেপটাউন টেস্টের তৃতীয় দিন (শনিবার) বল টেম্পারিং করেন ব্যানক্রফট। পরে টেলিভিশন ফুটেজে তা স্পষ্ট হয়ে ওঠে। দেখা যায়, ট্রাউজারের পকেট থেকে হলুদ টেপ বের করে বলে ঘষছেন তিনি। সংবাদ সম্মেলনে সেই দায় স্বীকার করেন অজি অধিনায়ক।

ফলে চরম সমালোচনার রোশানলে পড়েন স্মিথ-ওয়ার্নার ও ব্যানক্রফট। অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী ম্যালকম টার্নবুলের নির্দেশে অধিনায়ক ও সহঅধিনায়কের পদ ছাড়তে বাধ্য হন স্মিথ-ওয়ার্নার। এ ছাড়া স্মিথকে এক টেস্ট নিষিদ্ধসহ ম্যাচ ফির পুরোটা জরিমানা করে আইসিসি। আর ব্যানক্রফটকে ম্যাচ ফির ৭৫ শতাংশ জরিমানা করে। পাশাপাশি ৩টি ডিমেরিট পয়েন্ট দেয়া হয়।