এডমন্টনে বাংলাদেশ হেরিটেজ সোসাইটির স্বাধীনতা দিবস উদযাপন

302
gb

রোববার ২৫ মার্চ, ২০১৮ ||

গতকাল সন্ধ্যায় বাংলাদেশ হেরিটেজ সোসাইটির উদ্যোগে আলবার্টা প্রদেশের এডমোনটন সিটির পার্কডেইল কমিউনিটি হলে মহান স্বাধীনতা ও গণহত্যা দিবস পালিত হয়। এ উপলক্ষে একটি ভিডিও উপস্থাপনা ও মনোজ্ঞ আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়।

প্রধান অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, কানাডা ইউনিট কমান্ডের নির্বাহী সদস্য বাংলাদেশ প্রেসক্লাব সেন্টার অব আলবার্টা এর সভাপতি, হেরিটেজ সোসাইটির স্পেশাল প্রজেক্ট কমিটির চেয়ারপার্সন দেলোয়ার জাহিদ।

সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ হেরিটেজ এসোসিয়েশনের সভাপতি মাসুদ ভুইয়া। আলোচনায় অংশ নেন সোসাইটির সাধারন সম্পাদক মুহাম্মদ আলী, এক্স-অফিসিও ফয়সল ভুইয়া, সহ-সভাপতি -সাব্বির আহমেদ (যার দুই ভাই বীরপ্রতিক উপাধি প্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধা), রুকনুদ্দিন জাপান, আমির হোসেন প্রমুখ এছাড়াও স্বেচ্ছা কার্য্যক্রমে অংশ নেন মহিউদ্দিন, আমির হোসেন,  বুলেন, ইকবাল হাসান, মুজাফ্ফর হোসেন, রুকনুদ্দিন জাপান, ম. সাঈদ, ফারহানা কাদের, সাইফুর হাসান, চাদনী লস্কর,আসমা আক্তার, শিরীন সুলতানা, জিন্নাত আফরীন, মুজিয়ুল আলম, সুফিয়া আলম প্রমুখ.

প্রধান অতিথি তার ভাষনে বলেন বাঙালি জাতির একটি শ্রেষ্ঠ অর্জন স্বাধীনতা, এ অর্জন আমরা এক সাগর রক্তের বিনিময়ে লাভ করেছি। লাভ করেছি আমাদের জাতীয়আত্মপরিচয়, লাভ করেছি বিশ্ব মানচিত্রে আমাদের গৌরবোজ্বল অবস্থান,  দূর্ভাগ্যজনকভাবে লাভ করতে পারিনি এ অর্জনকে অর্থবহ করতে আমাদের স্বস্ব দায়িত্ববোধ.

তিনি প্রবাসী ও দেশবাসীকে আন্তরিক শুভেচ্ছা এবং অভিনন্দন জানান. মুক্তিযুদ্ধের শুরুর দিন ২৬শে মার্চ, যেদিন পরাধীনতার শিকল ভাঙার দিন, যেদিন বাঙালির সহস্র বছরের নতুন ইতিহাস লিখার একটি দিন।

সভাপতি মাসুদ ভুইয়া স্বাধীনতা দিবসের অনুষ্ঠানকে সফল করায় সকলকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন। এক্স-অফিসিও ফয়সল ভুইয়া জাহানারা ঈমামের লেখা থেকে একটি অধ্যায় পাঠ করে শোনান.

এবার বাংলা নববর্ষ উদযাপনকালে প্রদানের জন্য একুশে হেরিটেজ এয়ার্ড ২০১৮ মনোনীতদের নাম ঘোষনা করা হয়. যা দিনব্যাপী (২৯ এপ্রিল, রোজ রোববার) এডমন্টনের পিসিএই হলে অনুষ্ঠিতব্য আড়ম্বরপূর্ণ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে প্রদান করা হবে।

রাতে নৈশভোজের আয়োজন করা হয়।