পুলিশ কর্মকর্তা স্বামী’র প্রতারনার প্রতিবাদে স্ত্রীর সংবাদ সম্মেলন

561
gb

জাকির হোসেন পিংকু, চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি: চাঁপাইনবাবগঞ্জ শহরের লাখেরাজপাড়ার মহল্লার বাসিন্দা সানজিদা ইয়াসমিন রানী তাঁর পুলিশ কর্মকর্তা (উপপরিদর্শক) স্বামীর বিরুদ্ধে প্রতারনার অভিযোগ এনে এর প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন করেছেন। তিনি ওই মহল্লার বীরঙ্গনা লিলি বেগমের মেয়ে। এসময় তিনি স্বামী আমিনুল ইসলামের নিকট স্ত্রী’র মর্যাদা দাবী করেন। শনিবার সকালে চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রেসক্লাবে এ সাংবাদিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। সানজিদা লিখিত বক্তব্যে বলেন, জেলার শিবগঞ্জ থানায় কর্মরত অবস্থায় ২০০৮ সালে ভূল ঠিকানা ব্যবহার করে এসআই আমিনুল ইসলাম তাঁকে বিয়ে করেন। ২০০৯ সালে তাঁদের এক পুত্র সন্তান হয়। হাবিব আজমি আসিফ নামে ওই পুত্রের বর্তমান বয়স ৯ বছর। কিন্তু ২০১২ সালের পর থেকে আমিনুল পরিবারের ভরন-পোষন বন্ধ করে দেন। সংসারকালে আমিনুল তাঁকে নির্যাতন এমনকি মারধর করতেন বলেও সানজিদা বক্তব্যে উল্লেখ করেন।

আমিনুল বর্তমানে রাজশাহী মেট্রোপলিটন পুলিশে (আরএমপি) কর্মরত রয়েছেন। এর প্রতিকার চেয়ে সানজিদা আরএমপি কমিশনারের নিকট লিখিত আবেদন করেন। সানজিদা বলেন, এ বছরের ১৮ ফেব্রুয়ারী পুলিশ কমিশনার কার্যালয়ে জবানবন্দী প্রদান শেষে ফেরার পথে রাজশাহী’র আদালত পাড়ায় আমিনুল স্থানীয় কয়েকজন মাস্তান দিয়ে জোরপূর্বক তাঁর নিকট থেকে অভিযোগ প্রত্যাহার করার জন্য কাগজে স্বাক্ষর ও সন্তান অপহরনের চেষ্টা করে। সাধারণ মানুষের সহযোগীতায় তিনি রক্ষা পন। কিন্তু স্বামীর হুমকি অব্যাহত থাকায় গত ২১ মার্চ চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর মডেল থানায় সানজিদা একটি জিডি করেন। সানজিদা বলেন, তিনি বর্তমানে অন্যের বাড়ীতে কাজ করে সন্তান নিয়ে কষ্টে জীবনযাপন করছি। স্বামী আমিনুল ইসলাম মাস্তান দিয়ে তাঁর সন্তান অপহরণের হুমকি দেয়ায় নিরাপত্তার কারনে সন্তানের লেখাপড়া বন্ধ করে দিতে বাধ্য হয়েছি। তিনি এসবের সুষ্ঠু প্রতিকার চান। সম্মেলনে সানজিদার মা বীরঙ্গনা লিলি বেগম ও সন্তান হাবিব আজমি আসিফ উপস্থিত ছিলেন। এব্যাপারে এসআই আমিনুল ইসলামের সাথে ০১৮৬৮-৫২৭২১৫ এবং ০১৭১২-৭৭৯৫২১ নম্বর মোবাইল ফোনে একাধিকবার যোগাযোগ করা হলেও তাঁর ২টি নম্বরই বন্ধ পাওয়া যায়। ###