একাত্তরের গণহত্যার জন্য ক্ষমা প্রার্থনা ১৯৫ যুদ্ধাপরাধীকে বাংলাদেশের কাছে হস্তান্তর ও উপমাদেশে সন্ত্রাস বন্ধের দাবিতে লন্ডনে প্রবাসী বাঙ্গালীদের পাকিস্তান হাইকমিশন ঘেরাও

345
gb

লন্ডন ||

১৯৫জন চিহ্নিত যুদ্ধাপরাধীকে বিচারে জন্যে বাংলাদেশের কাছে হস্তান্তর, বাংলাদেশ আটকে থাকা পাঁচলক্ষ (বিহারী) পাকিস্তানী নাগরিককে ফিরিয়ে নেয়া, তৎকালীন পাকিস্তানের অংশে থাকা বাংলাদেশের ন্যায্য হিস্যা ফেরত, মুক্তিযুদ্ধে ক্ষতিগ্রস্থ ও নির্যাতিত পরিবারের সদস্যদের ক্ষতিপূরন প্রদান, ১৯৭১সালে বাংলাদেশে গণহত্যার জন্যে আনুষ্টানিক ভাবে পাকিস্থানের ক্ষমা প্রার্থনা ও পাকিস্তানের পৃষ্টপোষকতায় গড়ে উঠা জঙ্গি সংগঠনগুলাকে দমন এবং বেলুচিস্থানে হত্যা নির্যাতন বন্ধের দাবীতে গতকাল বৃহস্প্রতিবার ২২মার্চ স্থানীয় সময় বিকেল চারঘটিকায় ঘটিকায় লন্ডস্থ পাকিস্থান হাইকমিশন ঘেরাও করে সর্বস্থরের প্রবাসী বাঙ্গালীরা।


সাউথ-ওয়েষ্ট লন্ডনের ৩৪/৩৫ লোনডেস স্কায়ারে পাকিস্তান হাইকমিশনের সামনে যুদ্ধাপরাধ বিচারম যুক্তরাজ্য, একাত্তরের ঘাতক-দালাল নির্মুল কমিটি ইউকে, গণজাগরণ ম ইউকে, ইন্টারন্যাশনাল ক্রাইম রিসার্চ ফাউন্ডেশন, যুক্তরাজ্য বঙ্গবন্ধু পরিষদ, বাংলাদেশ হিউম্যান রাইট কাউন্সিল ইউকে, ও বিশ্ববাংলার আয়োজনে যুদ্ধাপরাধ বিচারম ইউকের প্রেসিডেন্ট সাংবাদিক মতিয়ার চৌধুরীর সভাপতিত্বে এবং গণজাগরণ মে র মুখপাত্র অজয়ন্তা দেব ও ড. আনিছুর রহমান আনিছের যৌথ স ালনায় অনুষ্ঠিত সমাবেশ বক্তব্য রাখেন যুক্তরাজ্য বাসদের আহবায়ক গয়াছুর রহমান গয়াছ, বঙ্গবন্ধু পরিষদের সেক্রেটারী আলিমুজ্জামান, ওয়েষ্ট লন্ডন আওয়ামীলীগের সেক্রেটারী হাজী আব্দুল হান্নান, ব্যারিস্টার নিঝুম মজুমদার, উদীচি যুক্তরাজ্যের সভাপতি হারুনুর রশিদ, মুক্তিযোদ্ধা শাহ এনাম, কমরেড মশুদ আহমদ, নারী নেত্রী সৈয়দা নাজনিন সুলতানা শিখা, বাতিরুল হক সরদার, শাহ মোস্তাফিজুর রহমান বেলাল, ইঞ্জিনিয়ার মুক্তিযোদ্ধা মিফতা ইসলাম, জাসদের রেদওয়ান খান, যুক্তরাজ্য মহিলা আওয়ামীলীগের রাহেলা শেখ, যুক্তরাজ্য মহিলা আওয়ামীলীগের সহসভাপতি আনজুমানআরাা অঞ্জু, গণজাগরণ মে র সিনথিয়া আরেফিন, কামরুল হাসান তোষার, প্রবাসী মুক্তিযোদ্ধা মজুমদার মিয়া, যুক্তরাজ্য আওয়ামীলীগের ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক সৈয়দ ছুরুক, সিলেট সরকারী কলেজের সাবেক এজিএস মুক্তিযোদ্ধা শেখ আশরাফ‚জ্জামান লন্ডন মহানগর আওয়ামীলীগের সৈয়দ গোলাব আলী, সাবেক ছাত্র নেতা ঘাতক-দালাল নির্মুল কমিটির সদস্য সায়েক আহমদ, সাবেক ছাত্র নেতা মাহবুবর রহমান খোকন, নিউহ্যাম আওয়ামীলীগের সভাপতি মোবারক আলী, প্রমুখ। সভায় বক্তারা বলেন ১৯৭১ সালে বাংলাদেশে গণহত্যার জন্যে পাকিস্তানকে আনুষ্টানিকভাবে ক্ষমা প্রার্থনার পাশাপশি বাংলার ন্যায্য হিস্যা ফেরত. ১৯৫জন চিহ্নিত যুুদ্ধাপরাধীকে বিচারের জন্যে বাংলাদেশের কাছে হস্তান্তর, বাংলাদেশে থাকা পাঁচলক্ষ পাকিস্তানী নাগরিককে ফিরিয়ে নিতে হবে, সেই সাথে পাকিস্তানের পৃষ্টপোষকতায় গড়ে উঠা জঙ্গিসংগঠন গুলোকে বন্ধকরতে হবে। বিশেষ করে তালেবান, লস্করী তৈয়বা এবং জয়সী মোহাম্মদের মত জঙ্গি সংগঠন গুলো উপমহাদেশ তথা সাউথ এশিযার জন্যে হুমকী হয়ে দাড়িয়েছে। পাকিস্তানের পৃষ্টপোষকতায় গড়ে উঠা জঙ্গিদের দ্বারা পাকিস্তান সহ প্রতিবেশী ভারত এবং বাংলাদেশ আক্রান্ত হচ্ছে। বাংলাদেশের জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশনের মধ্য দিয়ে সভার সমাপ্তি ঘোষনা করা হয়। সমাবেশ শেষে সাংবাদিক মতিয়ার চৌধুরী এবং অজয়ন্তা দেবরায়ের নেতৃত্বে পাকিস্তান হাইকমিশন বরাবরে একটি স্মারক লিপি প্রদান করা হয় স্মারকলিপিটি গ্রহন করেন পাকিস্তান হাইকশিনের ফাষ্ট সেক্রেটারী আসিফ খান ও ঈয়াকুব রাজা ।