সাতক্ষীরায় সাংবাদিকদের প্রতিবাদ সভায়- সাতদিনের আলটিমেটা মধ্যরাতে মদ্যপ নারী পুলিশ কর্মকর্তার কান্ড

403
gb

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি:
মধ্যরাতে ওসির কক্ষে মদ্যপ অবস্থায় ঢুকে সাতক্ষীরার এএসপি সার্কেলমেরিনা আকতার কর্তৃক উপস্থিত সাংবাদিক নেতৃবৃন্দের সাথে অশোভনআচরনের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে সাতক্ষীরা প্রেসক্লাব।মঙ্গলবার রাতের এ ঘটনায় ক্ষোভ প্রকাশ করে সাতদিনের আলটিমেটাম দিয়েসাংবাদিক নেতৃবৃন্দ বলেন এর বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা না নেওয়া হলেকঠোর কর্মসূচি দেওয়া হবে। পুলিশের একজন নারী অফিসার যদি মদ খেয়েমাতলামি করতে করতে থানায় ঢোকেন তাতে পুলিশ বাহিনীর মর্যাদাই নষ্টহয় বলে মন্তব্য করেছেন তারা। এ ধরনের কর্মকর্তা পুলিশের ভাবমূর্তিওবিনষ্ট করছেন বলে দাবি তাদের।গত মঙ্গলবার রাতে সাতক্ষীরা সদর থানায় ওসির কক্ষে এই অশোভন ও অশালীন এবংবেআইনি ঘটনা ঘটে।সাংবাদিকরা জানান সাতক্ষীরা শহরে একজন পুলিশ কনস্টেবলের স্কুল পড়–য়া
ছেলেকে নৃশংসভাবে হত্যার ঘটনা সম্পর্কে জানবার জন্য রাতে সাতক্ষীরাপ্রেসক্লাব সভাপতি অধ্যক্ষ আবু আহমেদ, সাধারন সম্পাদক আবদুল বারীএবং সাবেক সভাপতি আবুল কালাম আজাদসহ বেশ কয়েকজন সাংবাদিকওসির সাথে সাক্ষাত করতে থানায় যান। এ সময় ওসি মারুফ আহমেদেরঅনুপস্থিতিতে তারা সেখানে অপেক্ষা করছিলেন। কিছুক্ষন পর ওসি রুমে
আসার পর কথাবার্তার এক পর্যায়ে সাতক্ষীরা সদর সার্কেলের এএসপিমেরিনা আক্তার মাতাল অবস্থায় তার কক্ষে প্রবেশ করেন। এ সময় বেসামালঅবস্থায় তিনি সাংবাদিক নেতৃবৃন্দের সাথে অশোভন আচরন করে বলেন‘আপনাদের জন্য কাজ করতে পারছি না। ঠিকমতো তদন্তও করতে পারছি না।এই এদের সরিয়ে রুম খালি করো’। এ সময় তার মুখ থেকে মদের গন্ধ
বেরিয়ে আসছিল। সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ তারা বেসামাল অবস্থা দেখে লজ্জিতহয়ে পড়েন। তারা কথা না বাড়িয়ে ওসির কক্ষ ত্যাগ করেন।
এদিকে এ ঘটনার প্রতিবাদ ও নিন্দা জানাতে সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবেবুধবার দুপুরে প্রেসক্লাব সভাপতি অধ্যক্ষ আবু আহমেদের সভাপতিত্বে একজরুরি সাধারন সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় সাংবাদিকরা ঘটনার নিন্দা ওপ্রতিবাদ জানিয়ে বলেন মেরিনা একজন সরকারি কর্মকর্তা হয়ে এ ধরনেরবেআইনি কাজ করতে পারেন না। তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা না নেওয়া হলে আরওকঠোর কর্মসূচি দেওয়া হবে বলে সভায় মন্তব্য করেন সাংবাদিকরা।

সাধারন সভায় বক্তব্য রাখেন সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের সাধারন সম্পাদক আবদুলবারী , সাবেক সভাপতি সুভাষ চৌধুরী , সাবেক সভাপতি আবুল কালামআজাদ, সাবেক সভাপতি মনিরুল ইসলাম মিনি, দৈনিক দৃষ্টিপাত সম্পাদকজিএম নুর ইসলাম, প্রথম আলোর কল্যাণ ব্যনার্জি, সাবেক সাধারনসম্পাদক রুহুল কুদ্দুস , সাবেক সাধারন সম্পাদক এম কামরুজ্জামান,সাবেক সাধারন সম্পাদক মমতাজ আহমেদ বাপী প্রমূখ।