জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের প্রত্যাশিত সংস্কারের জন্য পরিষদের কর্মকান্ডে অধিকতর মানবিক সম্পৃক্ততা প্রয়োজন – জাতিসংঘে রাষ্ট্রদূত মাসুদ বিন মোমেন

391
gb

 

হাকিকুল ইসলাম খোকন,নিউইয়র্ক,

:জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের প্রত্যাশিত সংস্কারের জন্য পরিষদের কর্মকান্ডে অধিকতরমানবিক সম্পৃক্ততা প্রয়োজন বলে নিরাপত্তা পরিষদের কার্যপদ্ধতির উপর এক উন্মুক্ত আলোচনায়মন্তব্য করেছেন জাতিসংঘে নিযুক্ত বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি রাষ্ট্রদূত মাসুদ বিন মোমেন।তাঁর বক্তব্যে তিনি রোহিঙ্গাদের উপর নির্যাতনের অভিজ্ঞতা বর্ণনা ও তাদের বক্তব্য তুলে ধরার জন্যনিরাপত্তা পরিষদে রোহিঙ্গা প্রতিনিধিদের আমন্ত্রণ জানানোর তাগিদ দিয়েছেন। পরিষদের সভাপতিহিসেবে কুয়েত আজকের এ উন্মুক্ত আলোচনার আয়োজন করে।
স্থায়ী প্রতিনিধি তাঁর বক্তব্যে জাতিসংঘ সনদের ৯৯ ধারা অনুযায়ী গত সেপ্টেম্বরেনিরাপত্তা পরিষদে রোহিঙ্গাদের মানবিক বিপর্যয়ের উপর জাতিসংঘ মহাসচিবের প্রেরিত চিঠিরকথা উল্লেখ করে মহাসচিবকে যে কোন জরুরী মানবিক প্রয়োজনে এ ধরনের আরো উদ্যোগ নেবার
আহŸান জানান। তিনি নিরাপত্তা পরিষদকে বেসামরিক মানুষের উপর নিপীড়ন ও নৃশংসতা বন্ধে ওহত্যাযজ্ঞের ক্ষেত্রে ‘ভেটো’ ক্ষমতা ব্যবহার না করারও অনুরোধ জানান।রোহিঙ্গাদের উপর গত ২৫ আগস্টের পর সংঘটিত অপরাধের জবাবদিহিতা নিশ্চিত করার উপর
জোর দিয়ে স্থায়ী প্রতিনিধি মাসুদ বলেন, “এটা রোহিঙ্গাদের নিরাপদ, স্বেচ্ছায় ও সম্মানজনকপ্রত্যাবসনের ক্ষেত্রে তাদের আত্মবিশ্বাস ফিরিয়ে আনবে”।রাষ্ট্রদূত মাসুদ রোহিঙ্গাদের মানবিক বিপর্যয়ের প্রেক্ষিতে গত বছর গৃহীত নিরাপত্তা
পরিষদের সভাপতির বক্তব্য কে ভিত্তি ধরে একটি রেজুলেশন পাস করার আহŸান জানান। পাশাপাশিনিরাপত্তা পরিষদের সদস্যদেরকে শীঘ্রই বাংলাদেশ ও মিয়ানমারে সফর করে রোহিঙ্গাদের বর্তমান অবস্থাসরজমিনে প্রত্যক্ষ করা এবং তাদের প্রত্যাবাসনের বিষয়টি নিশ্চিত করার আহŸান জানান।নিরাপত্তা পরিষদের কার্যপদ্ধতির উপর আজকের আলোচনায় ৬০টিরও বেশী দেশ অংশ নিয়েবিভিন্ন ধরনের প্রস্তাবনা পেশ করে। এর মধ্যে জাতিসংঘ শান্তিরক্ষী প্রেরণকারী অধিকাংশ দেশইনিরাপত্তা পরিষদ ও তাদের মধ্যে শান্তিরক্ষা বিষয়ে আরো গভীর মতবিনিময়ের উপর গুরুত্বারোপ করেন।