ফুলের মতো হাসি ফুটেছে ফুলমতির

209
gb

 

ছাদেকুল ইসলাম রুবেল,গাইবান্ধা ||

বীরঙ্গনা ফুলমতি রানী। সেই ৭১ এরক্ষত যন্ত্রণা নিয়ে বসবাস করে আসছিলেন একটি ঝুপড়ী ঘরে। সেই
ঘরেই খেয়ে না খেয়ে দিনাতিপাত করতো ফুলমতি। আর অশ্ধসঢ়;রু ভেজানয়নে ফ্যাল ফ্যাল করে তাকিয়ে থাকতো মানবপ্রাণে। এখন যেন ফুলেরমতো হাসি ফুটেছে ফুলমতির। মহান মুক্তিযুদ্ধে বিরোচিত অবদানেরজন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপহার হিসেবে ফুলমতি
পেয়েছেন বীর নিবাস।গাইবান্ধার সাদুল্যাপুর উপজেলা শহরের উত্তরপাড়াস্থ নারী মুক্তিযোদ্ধা(বীরাঙ্গনা) রাজকুমারী রবিদাস ফুলমতি রানী সোমবার দুপুওেআনুষ্ঠানিক ভাবে সেই বীর নিবাসে উঠেছেন। এ উপলক্ষে স্থানীয়প্রশাসন, রাজনৈতিক ও সাংবাদিক সহ আরও অনেককেই দাওয়াতকরেছিলেন ফুলমতি। উপস্থিত হয়েছিলেন একঝাঁক বীরমুক্তিযোদ্ধা,সাংবাদিক ও সুধিমহল।এর আগে নির্মিত বীর নিবাসটি উদ্বোধন করেন গাইবান্ধা-৩,(সাদুল্যাপুর-পলাশবাড়ী) আসনের সংসদ সদস্য ডাঃ মোঃ ইউনুস আলীসরকার।
উল্লেখ্য, গত বছরের মার্চ মাসে মুক্তিযোদ্ধা কাউন্সিলের সভায়
সাদুল্যাপুর শহরের উত্তরপাড়স্থ মৃত কুশিরাম রবি দাসের স্ত্রী রাজকুমারীরবিদাস ফুলমতিকে বীরাঙ্গনা মুক্তিযোদ্ধার স্বীকৃতি দিয়েছে সরকার।জীবনের শেষ সময়ে এসে রাষ্টীয় মুক্তিযোদ্ধার স্বীকৃতি ও বসতঘর সহ,গাভী ও নগদ টাকা পেয়ে রাজকুমারী রবিদাস ফুলমতি বেশ আনন্দিত।মায়ের থাকার ঘর হওয়ায় ছেলে-মেয়েসহ তার পরিবারের লোকজনও মহাখুশি।এছাড়া সে সরকারীভাবে প্রতি মাসে মুক্তিযোদ্ধা ভাতা পাচ্ছেন।