ঝিনাইদহের কালীগঞ্জে পুলিশের উপর বোমা হামলা মামলায় ২৪ জনকে অভিযুক্ত করে চার্জশিট দাখিল

 

ঝিনাইদহ প্রতিনিধিঃ

ঝিনাইদহের কালীগঞ্জে পুলিশের উপর বোমা হামলা মামলায় জামায়াত-বিএনপির ২৪ নেতা-কর্মীকে অভিযুক্ত করে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করা হয়েছে বলে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা কালীগঞ্জ থানার এসআই নিরব হোসেন। দীর্ঘ প্রায় ১ বছর ৬ মাস তদন্তের পর ১০৭ পৃষ্ঠার অভিযোগপত্রটি দাখিল করেছে পুলিশ। তদন্তকারী কর্মকর্তা জানান, গত ১৬/০৭/২০১৬ ইং তারিখ দিবাগত রাতে কালীগঞ্জ উপজেলার নিয়ামতপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মাঠে জামায়াত-বিএনপির সদস্যরা গোপন বৈঠক করছিল। পুলিশ গোপন সংবাদে সেখানে অভিযানে গেলে বৈঠক থেকে পুলিশের উপর বোমা হামলা চালানো হয়। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে অস্ত্রসহ নিয়ামতপুর ইউনিয়ন শিবিরের সাধারণ সম্পাদক ও হরিগোবিন্দপুর গ্রামের আরিফুল ইসলামের ছেলে মিলন হোসেনকে গ্রেফতার করেন। সে সময় অন্যান্য জামাত-বিএনপির সদস্যরা পালিয়ে যায় এবং ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ একটি সাটারগান, একটি কার্তুজ, একটি তলোয়ার, একটি হাসুয়া ও বোমার অংশ বিশেষ উদ্ধার করে। এ ঘটনায় কালীগঞ্জ থানার সাবেক এসআই ( বর্তমান ওসি-ডিএসবি-২ ঝিনাইদহ) ইমরান আলম বাদি হয়ে ১৫ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত ব্যক্তিদের নামে মামলা করেন। যার মামলা নং-৯। তারিখ-১৬/০৭/২০১৬ ইং।এ মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা নিরব হোসেন দীর্ঘ তদন্তকালে প্রথমে মিলন ও পরে সন্দিদ্ধ আরো ৯ জনসহ মোট ১০ জনকে গ্রেফতার করেন। মামলার এজাহারভুক্ত ১৫ জনসহ তদন্তকালে আরো ৯ জনের সম্পৃক্ততা থাকায় অভিযোগ পাওয়ায় তিনি মোট ২৪ জনকে আসামি করে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন।পুলিশের উপর বোমা হামলা হামলায় জামাত-বিএনপি’র যেসব নেতা-কর্মীর বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করা হয়েছে তারা হচ্ছেন, কালীগঞ্জ উপজেলার হরিগোবিন্দপুর গ্রামের মিলন হোসেন (২১), একই গ্রামের ইসমাইল হোসেন (২৯), রাজু আহম্মেদ (২০), মল্লিকপুর গ্রামে মাজহারুল ইসলাম (১৯), অনুপমপুর গ্রামের রায়হান (২১), দামোদরপুর গ্রামের শফিউর রহমান (২৪), একই গ্রামের নওশের আলী (৬০), রফিকুল ইসলাম ওরফে বুলবুল (২৩) ও কওসার আলী (৫৫), ভাটপাড়া গ্রামের মিঠুন (২৩), বারপাখিয়া গ্রামের সাইফুল ইসলাম ওরফে শিমুল (২৬), বলাকান্দর গ্রামের সবুজ (১৯), একই গ্রামের ইউনুচ (৩১), তাইজেল (৩১), জসিম (২৬), শাহজাহান (৩১), শাহীন (২৯) ও আজাদ (৩৩), ছোট ঘিঘাটি গ্রামের হাফিজুর রহমান (৩৭), নিয়ামতপুর গ্রামের নজরুল ইসলাম (৫৫), ছোট ঘিঘাটি গ্রামের মোস্তাফিজুর রহমান (৩৭), ভাটাডাঙ্গা গ্রামের সিদ্দিকুর রহমান (৪৩), ঈশ্বরবা গ্রামের আতিয়ার রহমান ওরফে নাইস (২৩) ও মধুপুর গ্রামের ইউসুফ আলী বিশ্বাস (৩৮)।এসআই নিরব হোসেন বলেন, মামলাটি তদন্ত করে এজাহার নামীয় ১৫ জন ও সন্ধিদ্ধ ৯জনসহ মোট ২৪ জনকে আসামি করে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করা হয়েছে। বেশিরভাগ আসামিই জামায়াত ও শিবির কর্মী। বিএনপির আসামি রয়েছে মাত্র কয়েকজন।

এই ওয়েবসাইটটি আপনার অভিজ্ঞতা উন্নত করতে কুকি ব্যবহার করে। আমরা ধরে নিচ্ছি যে আপনি এটির সাথে ঠিক আছেন তবে আপনি চাইলে অপ্ট-আউট করতে পারেন Accept আরও পড়ুন