মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জে স্বাস্থ্য পরিদর্শকের অপসারণের দাবিতে ব্যবসায়ীদের বিক্ষোভ

7
gb

জিবিনিউজ 24 ডেস্ক //

মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ পৌরসভার ভানুগাছ বাজারে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে পূজা এন্টারপ্রাইজ নামে এক মোদী দোকানে নগদ ৮ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। কিন্তু টাকা পরিশোধ না করায় দোকানের ম্যানেজার ঝলক দত্তকে আটক করে নিয়ে যাওয়া হয়। এ খবর ভানুগাছ বাজারের ব্যবসায়ীদের মধ্যে ছড়িয়ে পড়লে তাৎক্ষনিক ব্যবসায়ীরা স্বাস্থ্য পরিদর্শক দুলাল মিয়ার অপসরণের দাবিতে দোকান-পাট বন্ধ রেখে ভানুগাছ চৌমুহনায় বিক্ষোভ মিছিলসহ পথসভা করেন।

বুধবার (১৯ ফেব্রুয়ারি) বিকাল ৪টায় এ ঘটনাটি ঘটে।

ব্যবসায়ীরা জানান, দীর্ঘ দিন ধরে কমলগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য পরিদর্শক দুলাল মিয়া পরিদর্শনের নামে ভানুগাছ বাজারের ব্যবসায়ীদের নানা ভাবে ভয়ভীতি দেখিয়ে উৎকোচ আদায়ের করে ব্যবসায়ীদের হয়রানী করে আসছেন।  বুধবার ১৯ ফেব্রুয়ারি সকাল ১১টায় ভানুগাছ বাজারের লোকনাথ ষ্টোরে গিয়ে নানা ভাবে বাহানা দেখিয়ে উৎকোচ দাবি করেন। ওই সময় স্বাস্থ্য পরিদর্শক দুলাল মিয়া লোকনাথ ষ্টোর থেকে হাকিমপুরী জর্দা বস্তায় করে নিয়ে যান। তখন মাছ বাজারের এক ব্যবসায়ী আপত্তি করেন এবং পার্শ্ববর্তী দোকান পূজা ষ্টোরের ম্যানেজার ঝলক দত্ত ভিডিও করলে তার দোকানে জরিমানা করা হবে বলে হুমকি দেন দুলাল মিয়া ।

এ ঘটনার পর বিকাল ৩টায় কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার( চলতি দায়িত্ব) ও সহকারী কমিশনার ভূমি নাসরিন চৌধুরী নেতৃত্বে ভানুগাছ বাজারের পূজা ষ্টোরে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে প্লাস্টিক ব্যাগ রাখার অপরাধে ৮ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। কিন্তু মালিক না থাকায় ম্যানেজার ঝলক দত্ত টাকা পরিশোধ করতে পারেননি। তাই তাকে আটক করে নিয়ে যাওয়া হয়। এ খবর ভানুগাছ বাজারের ব্যবসায়ীদের মধ্যে ছড়িয়ে পড়লে তাৎক্ষনিক ব্যবসায়ীরা দোকান পাট বন্ধ রেখে ধর্মঘট পালন করে।

ব্যবসায়ীরা সমবেত হয়ে ভানুগাছ চৌমুহনী মোড়ে কমলগঞ্জ-শ্রীমঙ্গল সড়ক অবরোধ করলে যান চলাচল বন্ধ হয়ে পড়ে। খবর পেয়ে কমলগঞ্জ পৌরসভার মেয়র জুয়েল আহমেদ, কমলগঞ্জ থানার অফিসার ইনর্চাজ আরিফুর রহমান, ভানুগাছ পৌর বাজার মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট মো. সানোয়ার হোসেন, পৌর কাউন্সিলর মো. আনোয়ার হোসেনসহ বাজার ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দ  ছুটে আসেন। তারা ব্যবসায়ীদের শান্ত হওয়ার আহবান জানিয়ে রাস্তা থেকে সরে যাবার অনুরোধ করেন এবং অভিযুক্ত কমলগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য পরিদর্শক দুলাল মিয়ার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার আশ্বাস দেন। এছাড়া ইউএনওর সাথে কথা বলে আটক দোকান কর্মচারীকে ছাড়ানোর ব্যবস্থা করবেন বলেও আশ্বাস দেন। তারপরও ব্যবসায়ীরা প্রতিবাদ সমাবেশ ও ধর্মঘট অব্যাহত রাখেন।

প্রতিবাদ সমাবেশে ব্যবসায়ীরা স্বাস্থ্য পরিদর্শক দুলাল মিয়ার ঘুষ-দুর্নীতির অনিয়মের কথা তুলে ধরে অপসারণের দাবী করেন। প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তব্য দেন,  ভানুগাছ পৌর বাজার বণিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট মো. সানোয়ার হোসেন, যুগ্ম সম্পাদক গোলাম রাব্বানী তৈমুর, ব্যবসায়ী আনহার  আলী, কেশব পাল, পৌর কাউন্সিলর আনোয়ার হোসেন ও ব্যবসায়ী সুব্রত দেবরায় প্রমুখ।

ধর্মঘট চলাকালে ভানুগাছ বাজারে সবকয়টি দোকান বন্ধ থাকে। অচলাবস্থা নিরসনে কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ভারপ্রাপ্ত) নাসরিন চৌধুরী ও উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা মাহবুবুল আলম ভুঁইয়া সাথে পৌরসভার মেয়র জুয়েল আহমেদ ও ওসি আরিফুর রহমান টেলিফোনে যোগাযোগ করেন। এরপর আটক ম্যানেজার ঝলক দত্তকে ছেড়ে দেয়া হয়। এবং প্রায় ২ ঘণ্টার পর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা মাহবুবুল আলম ভুঁইয়া প্রতিবাদ সমাবেশে উপস্থিত হয়ে স্বাস্থ্য পরিদর্শকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের আশ্বাস দেন। তার আশ্বাসে বিকাল সাড়ে ৫ টায় ধর্মঘট প্রত্যাহার করে নিজ নিজ ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে ফিরে যান ব্যবসায়ীরা।

এই ওয়েবসাইটটি আপনার অভিজ্ঞতা উন্নত করতে কুকি ব্যবহার করে। আমরা ধরে নিচ্ছি যে আপনি এটির সাথে ঠিক আছেন তবে আপনি চাইলে অপ্ট-আউট করতে পারেন Accept আরও পড়ুন