রংপুর সিটি নির্বাচন: ৬ মেয়রপ্রার্থীর মনোনয়নপত্র বাতিল

531
gb

জিবিনিউজ24 ডেস্ক:

রংপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে মনোনয়নপত্র দাখিলকারী ছয় মেয়র প্রার্থীসহ ১৮ জনের মনোনয়নপত্র বাতিল ঘোষণা করা হয়েছে। অন্যদিকে আওয়ামী লীগ, বিএনপি ও জাতীয় পার্টির প্রার্থীসহ সাতজন মেয়র প্রার্থীর মনোনয়নপত্র বৈধ ঘোষণা করা হয়েছে।

মনোনয়নপত্র যাছাই-বাছাই শেষে রিটানিং অফিসার ও রংপুর আঞ্চলিক নির্বাচন অফিসার সুভাষ চন্দ্র সরকার আজ রবিবার সন্ধ্যায় তার কার্যালয়ে এ ঘোষণা দেন।

মেয়র প্রার্থী যাদের মনোনয়নপত্র বাতিল হয়েছে তারা হলেন স্বতন্ত্রপ্রার্থী সাবেক পৌর মেয়র আব্দুর রউফ মানিক, মেহেদী হাসান বনি, একমাত্র নারী মেয়রপ্রার্থী সুইটি আঞ্জুম, আব্দুল মজিদ (বীর প্রতীক), সাকিল রায়হান এবং বিএনপির বিদ্রোহী প্রার্থী জেলা যুবদলের সভাপতি নাজমুল হক নাজু (যদিও তিনি গত শনিবার সংবাদ সম্মেলন করে তার মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করে নেওয়ার ঘোষণা দিয়েছিলেন)। এছাড়া সাধারণ কাউন্সিলর পদের আটজন ও সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদের চারজনের মনোনয়নপত্র বাতিল ঘোষণা করা হয়।

অন্যদিকে যে সাতজন মেয়র প্রার্থীর মনোনয়নপত্র বৈধ ঘোষণা করা হয়েছে তারা হলেন আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী সরফুদ্দিন আহাম্মেদ ঝন্টু, বিএনপি প্রার্থী কাওছার জামান বাবলা, জাতীয় পার্টির প্রার্থী মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা, স্বতন্ত্রপ্রার্থী (জাতীয় পার্টির বিদ্রোহী) জাপা চেয়ারম্যান এরশাদের ভাতিজা হোসেন মকবুল শাহরিয়ার আসিফ, এলডিপির প্রার্থী সেলিম আখতার, বাসদের আব্দুল কুদ্দুস ও ইসলামী শাসনতন্ত্র আন্দোলনের প্রার্থী এটিএম গোলাম মোস্তফা। তবে সাধারণ কাউন্সিলর পদে ২১৮ জন এবং সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদে ৬৩ জনের মনোনয়ন পত্র বৈধ ঘোষণা করা হয়েছে।

রংপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ ও জমাদানের সময়সীমা ছিল ৫ নভেম্বর থেকে ২২ নভেম্বর। নির্ধারিত সময়ের মধ্যে মেয়র পদে ১৩ জনসহ ৩০৬ জন প্রার্থী তাদের মনোনয়নপত্র দাখিল করেছিলেন। এর মধ্যে ছিল ৩৩টি ওয়ার্ডে ৩৩টি সাধারণ কাউন্সিলর পদের বিপরীতে ২২৬ জন এবং ১১টি সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদের বিপরীতে ৬৭ জন।

ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী ২২ নভেম্বর ছিল মনোনয়নপত্র জমাদানের শেষ দিন।

প্রার্থিতা বাছাই করে বৈধ প্রার্থী ঘোষণা ২৫ ও ২৬ নভেম্বর। প্রার্থিতা বাতিল হলে তিনদিনের মধ্যে আপিল করা যাবে। ৩০ নভেম্বর থেকে ২ ডিসেম্বর আপিল নিষ্পত্তি হবে। মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ তারিখ ৩ ডিসেম্বর। প্রতীক বরাদ্দ দেওয়া হবে ৪ ডিসেম্বর। ২১ ডিসেম্বর ভোট নেওয়া হবে।

রিটানিং অফিসার ও রংপুর আঞ্চলিক নির্বাচন অফিসার সুভাষ চন্দ্র সরকার জানান, মনোনয়নপত্র দাখিলের সময় প্রত্যেক প্রার্থীর পক্ষে ৩০০জন ভোটারের সমর্থন প্রয়োজন হয়। প্রার্থীরা সেই অনুযায়ী ভোটারের তালিকাও জমা দেন। কিন্তু যাছাই-বাছাইকালে ওই তালিকায় অসঙ্গতি থাকায় তাদের মনোনয়নপত্র বাতিল বলে ঘোষণা করা হয়। তবে তিনি বলেন, আগামী তিনদিনের মধ্যে ওই প্রার্থীরা বিভাগীয় কমিশনারের কাছে আপীল করতে পারবেন।