মেট্রোরেলের নমুনা মক-আপ ট্রেন উন্মুক্ত হচ্ছে মার্চে

28
gb

জিবিনিউজ 24 ডেস্ক //

স্বপ্নের মেট্রোরেল নিয়ে রাজধানীর বাসিন্দাদের জল্পনাকল্পনার অবসানে উন্মুক্ত হচ্ছে মক-আপ বা নমুনা ট্রেন। উত্তরার মেট্রোরেল প্রকল্পের মাস র‍্যাপিড ট্রানজিট- এমআরটি ৬ (উত্তরা-মতিঝিল রুট) এর প্রদর্শনী ও তথ্য কেন্দ্রে স্থাপন করা মক-আপ ট্রেন আগামী মার্চ মাসেই নগরবাসীর পরিদর্শনের জন্য খুলে দেওয়া হবে। মক-আপ ট্রেন পরিদর্শনে জানা যাবে মেট্রোরেলের ব্যবহার বিধি, ব্যবস্থাপনা, টিকিট ক্রয়, আসন গ্রহণসহ নানা কারিগরি তথ্য।

ঢাকাবাসীর স্বপ্নের মেট্রোরেল প্রকল্পের কাজ বাস্তবায়নে কাজ করছে ঢাকা মাস ট্রানজিট কোম্পানি লিমিটেড (ডিএমটিসিএল)। সরকারি মালিকানাধীন প্রতিষ্ঠানের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এম এ এন সিদ্দিক জানান, মক-আপ ট্রেনের মাধ্যমে মানুষজন এই ট্রেন দেখতে কেমন, কীভাবে টিকিট কাটতে হবে তার সবকিছুই জানতে পারবেন।

 

মক-ট্রেনটিকে প্রদর্শনী কেন্দ্রে সংযুক্ত করা হয়েছে উল্লেখ করে ডিএমটিসিএলের প্রধান কর্মকর্তা সিদ্দিক জানান, গত ২৬ ডিসেম্বর জাপান থেকে মেট্রো রেলের এই নমুনাটি ট্রেন আনা হয়েছে। এরইমধ্যে মক-ট্রেনটিকে উত্তরার দিয়াবাড়ির স্থাপন করা হয়েছে। এর কিছু আনুষাঙ্গিক কাজ এখনও বাকি আছে। এসব কাজ শিগগিরই শেষ হয়ে যাবে এবং আগামী মাসের শেষের দিকে এটি সবার জন্য উন্মুক্ত করে দেয়া হবে।

এম এ এন সিদ্দিক বলেন, কেমন করে স্টেশন থেকে মেট্রোরেলের টিকিট কাটতে হবে সেটিও হাতে কলমে দর্শনার্থীরা শিখতে পারবেন এখান থেকে।

২০১৬ সালে ২২ হাজার কোটি টাকা ব্যয়ে এমআরটি-৬ এর কাজ শুরু হয়। জানুয়ারিতে প্রকল্পের ৪০ দশমিক ৩৬ শতাংশ কাজ শেষ হয়েছে এবং আগামী বছর ১৬ ডিসেম্বর স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীতে এটি চালু হবে বলে জানানো হয়েছে।

মেট্রোরেলের ২০ দশমিক ১০ কি.মি লাইনের নয় কি.মি দৃশ্যমান হয়েছে। বাকি কাজও এগিয়ে চলছে। তবে এরইমধ্যে সরকার সিদ্ধান্ত নিয়ে উত্তরা-মতিঝিল লাইন বাড়িয়ে কমলাপুল পর্যন্ত করার। যাতে করে আরো বেশি সংখ্যক মানুষ এর সুবিধা নিতে পারে। এ কাজ শেষ হলে মেট্রোরেলের স্টেশন সংখ্যা আরো বেড়ে ১৭টিতে দাঁড়াবে এবং দৈর্ঘ্য হবে ২১ দশমিক ২৬ কি.মি তে।

এই ওয়েবসাইটটি আপনার অভিজ্ঞতা উন্নত করতে কুকি ব্যবহার করে। আমরা ধরে নিচ্ছি যে আপনি এটির সাথে ঠিক আছেন তবে আপনি চাইলে অপ্ট-আউট করতে পারেন Accept আরও পড়ুন